একদিকে টোটন বিশ্বাস উলটোদিকে রমেশ মাহাতো গোষ্ঠী। কার দখলে থাকবে চুঁচুড়া শহর?

একদিকে টোটন বিশ্বাস উলটোদিকে রমেশ মাহাতো গোষ্ঠী। কার দখলে থাকবে চুঁচুড়া শহর?

একদিকে টোটন বিশ্বাস উলটোদিকে রমেশ মাহাতো গোষ্ঠী। কার দখলে থাকবে চুঁচুড়া শহর? তা নিয়ে দুই দুষ্কৃতী দলের লড়াই দীর্ঘদিনের।

  • Share this:

#চুঁচুড়া: একদিকে টোটন বিশ্বাস উলটোদিকে রমেশ মাহাতো গোষ্ঠী। কার দখলে থাকবে চুঁচুড়া শহর? তা নিয়ে দুই দুষ্কৃতী দলের লড়াই দীর্ঘদিনের। টোটনের দাদা তারক বিশ্বাসকে খুনের সময় এলাকায় বোমাবাজি করে রমেশ অনুগামী বিশাল। সিসিটিভি ফুটেজেই তার প্রমাণ মিলেছে। বিশালের খোঁজে তল্লাশি শুরু করেছে পুলিশ।

- দুষ্কৃতী দলের এলাকা দখলের লড়াই

- সাতসকালে চুঁচুড়ায় গুলি-বোমাবাজি

- দুষ্কৃতীদের গুলিতে নিহত ১ ও জখম ১

সিসিটিভি ফুটেজে গ্যাংওয়ার অ্যাট চুঁচুড়ার ছবি। দুষ্কৃতীদের এলাকা দখলের লড়াই। দেখা যাচ্ছে মোটরবাইকে চেপে তিন দুষ্কৃতী ধেয়ে আসছে। একদম পিছনে বসে এলাকার কুখ্যাত অপরাধী বিশাল। বোমা ছুড়ছে সে। কে এই বিশাল দাস? হুগলির কুখ্যত দুষ্কৃতী রমেশ মাহাতর অনুগামী বলেই পরিচিত বিশাল। পুলিশের খাতায় দাগী অপরাধী। স্থানীয় বাসিন্দাদের দাবি, চুঁচুড়া শুটআউটের পিছনে রয়েছে এলাকা দখলের লড়াই। একসময় চুঁচুড়া ছিল বিশ্বাস ভাইদের দখলে। চুঁচুড়ার সিন্ডিকেট থেকে দুষ্কৃতীদলের রাশ নিজের হাতে নিতে চায় রমেশ মাহাত। তখন থেকেই গোলমালের শুরু।

- নিহত তারক, তাঁর ভাই টোটন ও সঞ্জীব বিশ্বাসের বিরুদ্ধে একাধিক অভিযোগ

- মাদক মামলায় টোটন বিশ্বাস জেলে রয়েছে

- এক সময়ের অপরাধী তারক ও সঞ্জীব গ্যাং ছেড়ে দিয়েছে

- বেশ কয়েক বছর ধরে হুগলির কুখ্যাত দুষ্কৃতী রমেশ মাহাতর সঙ্গে টোটনের বিবাদ

- ২০১৪-র অগাস্টে সঞ্জীবের উপর হামলা হয়

- সেই সময়ও রমেশের বিরুদ্ধে হামলার অভিযোগ ওঠে

- পালটা হামলায় রমেশের এক ঘনিষ্ঠ অনুগামীর মৃত্যু হয়

এর পর থেকে দফায় দফায় দুই দুষ্কৃতী দলের হামলা পালটা হামলা হয়েছে। গত বছর এক ট্রাক চালককে খুনের মামলায় নাম জড়ায় বিশালের। এরপর থেকেই এলাকা ছাড়া ছিল বিশাল। সিসিটিভি ফুটেজের সূত্র ধরে বিশাল ও তার সঙ্গীদের খোঁজ শুরু করেছে পুলিশ।

First published: 06:02:58 PM Mar 09, 2017
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर