corona virus btn
corona virus btn
Loading

সোনিকা সিং চৌহানের মৃত্যুর ঘটনায় অবশেষে গ্রেফতার বিক্রম, সোশ্যাল মিডিয়ায় সরব সাহেব

সোনিকা সিং চৌহানের মৃত্যুর ঘটনায় অবশেষে গ্রেফতার বিক্রম, সোশ্যাল মিডিয়ায় সরব সাহেব

সোনিকা সিং চৌহানের মৃত্যুর ঘটনায় অবশেষে গ্রেফতার বিক্রম, সোশ্যাল মিডিয়ায় সরব সাহেব

  • Share this:

#কলকাতা: প্রায় ৭০ দিন পর সোনিকা সিং চৌহানের মৃত্যুর ঘটনায় গ্রেফতার করা হল অভিনেতা বিক্রম চট্টোপাধ্যায়কে ৷ ৩০৪ ধারায় অনিচ্ছাকৃত খুনের মামলা দায়ের করা হয়েছিল বিক্রমের বিরুদ্ধে ৷ তারপর থেকেই ফেরার ছিলেন বিক্রম। সেই মামলায় বৃহস্পতিবার রাত ১টা নাগাদ কসবার শপিং মলের কাছে ক্যাব থেকে গ্রেফতার করা হয় বিক্রমকে ৷ বন্ধুদের সঙ্গে দেখা করতে যাচ্ছিলেন বিক্রম চট্টোপাধ্যায় ৷ দেরিতে হলেও বিক্রমের গ্রেফতারিতে খুশি সোনিকার বন্ধুরা। বিচারব্যবস্থার উপর ভরসা রাখছেন তাঁরা। ফেসবুকে জাস্টিস ফর সোনিকা পেজে  নাম না করে বিক্রমের বিরুদ্ধে সরব অভিনেতা সাহেব ভট্টাচার্য।

সকলের মনেই জ্বলজ্বল করছে গত ২৯ এপ্রিল ভোররাতে ঘটা দুর্ঘটনা ৷ অকালে ঝরে পড়া নিরীহ একটি মেয়ের মৃত্যুর দায় কার সেই নিয়েছে চলেছে অজস্র দোষারোপ, পাল্টা দোষারোপের পালা ৷

প্রথম থেকেই বারবার সোনিকার বন্ধুরা বিক্রমের শাস্তির দাবিতে সরব। ফেসবুকে জাস্টিস ফর সোনিকা পেজ খুলে বিক্রমের বিরুদ্ধে বিভিন্ন পোস্ট করতে থাকেন বন্ধুরা। যদিও বারবার বয়ান বদলে পুলিশকে বিভ্রান্ত করছিলেন বিক্রম। মত্ত অবস্থায় গাড়ি চালানোর কথা প্রথমে অস্বীকার করলেও পরে চাপে পড়ে তা স্বীকার করে নেন। এরপরই বিক্রমের শাস্তির দাবি আরও জোরালো হতে থাকে।এই পুরো পর্বে বরাবরই নীরব ছিলেন সোনিকার খুব কাছের বন্ধু সাহেব ৷ শুধু সত্যিটা বাইরে আসার পক্ষেই সওয়াল করেছিলেন তিনি ৷ কাজের সূত্রেই নয় কাজের জগতের বাইরেও বিক্রমের সঙ্গে বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্ক ছিল সাহেবের ৷

এহেন সাহেব এদিন বিক্রমের গ্রেফতারির পর প্রথমবার সোশ্যাল মিডিয়ায় সরব হন ৷ এদিন তিন লেখেন, ‘অনেকে ভেবেছিলেন আইন কিছু করবে না ৷ ভেবেছিলেন, সব আশা ছেড়ে দেব ৷ অপরাধীদের জন্য সুড়ঙ্গের শেষে আলো থাকবে, অনেকে এমনও ভেবেছিলেন ৷ কিন্তু তাঁরা এটা কখনও ভাবেননি যে,ওই আলো কোনও চলন্ত ট্রেনেরও হতে পারে ৷’ এই পোস্টের শেষে ছিল #JusticeForSonika

shaheb fb post

গোটা লেখায় সাহেব কারও নাম না করলেও তাঁর ঘনিষ্ঠ মহলের বক্তব্য, পুরো লেখাটিই অভিযুক্ত বিক্রমকে ইঙ্গিত করে লিখেছেন প্রয়াত সোনিকার ঘনিষ্ঠ বন্ধু ৷ প্রথম থেকেই সোনিকার বন্ধুরা মদ্যপ অবস্থা গাড়ি চালানোর জন্য বিক্রমকেই তাঁর মৃত্যুর জন্য দায়ী করে এসেছেন ৷ তাঁদের দাবি, বিক্রমের দায়িত্বজ্ঞানহীন কাজের জন্যই আজ সোনিকা তাদের সঙ্গে নেই ৷

15349721_1178949812185659_4481296018549075298_n

ছোট থেকেই গাড়ি আর স্পিড এই দুটো জিনিসের প্রতিই তীব্র আকর্ষণ অনুভব করতেন সোনিকা সিং চৌহান ৷ খুব অল্প বয়সেই সাফল্য আর খ্যাতিতে ভরে উঠেছিল মডেল-অ্যাঙ্কার সোনিকার ঝুলি ৷ প্রতিভাবান এই সুন্দরীর সম্ভাবনাময় জীবনে মাত্র আঠাশেই পড়ে গেল যতিচিহ্ন ৷ দায় কার? এখনও সে প্রশ্নের উত্তর পাওয়া বাকি ৷

First published: July 7, 2017, 5:24 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर