১৮ বছরের জন্য বিনামূল্যে WiFi, ইন্টারনেট সংস্থার নামেই মেয়ের নামকরণ দম্পতির!

১৮ বছরের জন্য বিনামূল্যে WiFi, ইন্টারনেট সংস্থার নামেই মেয়ের নামকরণ দম্পতির!

সুইজারল্যান্ডের এক দম্পতি স্রেফ ১৮ বছরের জন্য বিনামূল্যে WiFi পরিষেবা পাবেন বলে ইন্টারনেট সংস্থার নামে মেয়ের নামকরণ করেছেন

সুইজারল্যান্ডের এক দম্পতি স্রেফ ১৮ বছরের জন্য বিনামূল্যে WiFi পরিষেবা পাবেন বলে ইন্টারনেট সংস্থার নামে মেয়ের নামকরণ করেছেন

  • Share this:

টুইফিয়া! টুইফিয়া! দু'-একবার নামটা মনে মনে বা জোরে জোরে উচ্চারণ করে দেখুন তো! খুব কি খারাপ লাগছে শুনতে? বরং বেশ একটা মিষ্টি আর ইউনিক ভাব মনে জেগে উঠছে না কি?

সেই কথাটাই বলছেন মেয়ের মা। তাঁর মতে, প্রথম দিকটায় এক ইন্টারনেট সংস্থার নামে সদ্যোজাত মেয়ের নামকরণে তাঁর একটু হলেও দ্বিধা ছিল। কিন্তু নামটা বেশ কয়েকবার উচ্চারণ করার পরে তাঁর মত পুরোপুরি বদলে গিয়েছে। উপলব্ধি করেছেন তিনি- এমন কিছু খারাপ নাম এ মোটেই নয়! বরং এর চেয়েও ঢের বেশি খারাপ নাম আছে পৃথিবীতে। সেই সব নাম ঘটা করে দম্পতিরা তাঁদের সন্তানদের দিয়েও থাকেন এবং তা ধরে সবার সামনে বেশ গর্বের সঙ্গে সন্তানদের ডেকেও থাকেন!

এই জায়গায় এসে জানিয়ে রাখা ভালো, এই দম্পতি তাঁদের পরিচয় সংবাদমাধ্যমের কাছে প্রকাশ করতে ইচ্ছুক ছিলেন না। তাই তাঁদের নাম উল্লেখ না করেই এ হেন খবরটি প্রকাশ করেছে মিরর। জানিয়েছে যে সুইজারল্যান্ডের এক দম্পতি স্রেফ ১৮ বছরের জন্য বিনামূল্যে WiFi পরিষেবা পাবেন বলে ইন্টারনেট সংস্থার নামে মেয়ের নামকরণ করেছেন। তাঁদের খবর মোতাবেকে সুইজারল্যান্ডের ওই ইন্টারনেট সংস্থার নাম টুইফি।

খবর বলছে যে সদ্যোজাত কন্যাসন্তানটির বাবা Facebook মারফত টুইফির এই বিজ্ঞাপন সম্পর্কে অবগত হয়েছিলেন। সেই বিজ্ঞাপনে দাবি করেছিল টুইফি যে কেউ যদি তাদের অনুকরণে সদ্যোজাত ছেলের নাম টুইফিয়াস আর মেয়ের নাম টুইফিয়া রাখেন, তা হলে সংস্থা তাঁদের ১৮ বছরের জন্য বিনামূল্যে WiFi পরিষেবা দেবে। কিছুক্ষণ চিন্তাভাবনার পর মনোস্থির করে ফেলেন এই ভদ্রলোক। তার পর স্ত্রীর সঙ্গে পরামর্শ করতে বসেন এ ব্যাপারে। স্ত্রীর প্রতিক্রিয়া কী, সে তো আগেই জানিয়ে দেওয়া হয়েছে!

এই ১৮ বছর ধরে ইন্টারনেটের জন্য যে টাকাটা খরচ করতে হত, তা এ বার জমিয়ে রাখা যাবে। বড় হলে ওই টাকায় মেয়েকে একটা গাড়ি বা দরকারি অন্য কিছু কিনে দেওয়া যাবে, জানিয়েছেন ওই ভদ্রলোক।

টুইফির কর্ণধার ফিলিপ ফসও গোটা ব্যাপারে যারপরনাই খুশি! সংস্থা থাক বা উঠে যাক, তাঁর বক্তব্য, প্রতিশ্রুতিমতো টুইফি এই পরিবারের ১৮ বছরের ইন্টারনেটের খরচ বহন করবে। পাশাপাশি এও জানাতে ভোলেননি তিনি যে অফার এখানেই শেষ নয়। অন্য দম্পতিরাও যদি এই সিদ্ধান্ত নেন, তাঁদেরও স্বাগত জানাবে টুইফি!

Published by:Ananya Chakraborty
First published: