খাওয়া-দাওয়া ভুলে PUBG-তে বুঁদ, মাধ্যমিকে ৯০% পাওয়া কিশোরের ঠাই এখন রিহ্যাব

মোবাইল গেমে আসক্তি। মেধাবী ছাত্রের করুণ পরিণতি! খাওয়া-দাওয়া ভুলে পাবজিতে বুঁদ। মাধ্যমিকে নব্বই শতাংশ নম্বর পেয়েও পরের বছর অঙ্কে ফেল! দিনরাত পাবজিতে মগ্ন। রিহ্যাবে পাঠানো হল আলিপুরদুয়ারের কিশোরকে।

Bangla Editor | News18 Bangla
Updated:Oct 19, 2019 01:02 PM IST
খাওয়া-দাওয়া ভুলে PUBG-তে বুঁদ, মাধ্যমিকে ৯০% পাওয়া কিশোরের ঠাই এখন রিহ্যাব
মেধাবী ছাত্রের করুণ পরিণতি! খাওয়া-দাওয়া ভুলে পাবজিতে বুঁদ
Bangla Editor | News18 Bangla
Updated:Oct 19, 2019 01:02 PM IST

#আলিপুরদুয়ার: বিশ্বজুড়ে নেশার মতো ছড়িয়ে পড়ছে PUBG । তরুণ ও যুবকদের মধ্যে আলোড়ন তুলেছে এই গেম। কিন্তু তার ব্যবহারকারীদের এতটাই আচ্ছন্ন করেছে এই গেম যে তা ডেকে এনেছে প্রাণঘাতী দুর্ঘটনাও।

মেধাবী ছাত্রের পাবজি আসক্তি। মোবাইল গেমের নেশা এমনই যে দিনের পর দিন স্নান-খাওয়া ভুলে স্মার্টফোনে ডুবে থাকত। আলিপুরদুয়ার শহর লাগোয়া লিচুতলা এলাকার বাসিন্দা ওই ছাত্র। মা-বাবা দু'জনেই অবসরপ্রাপ্ত সরকারি কর্মী। একমাত্র ছেলেকে ভালবেসে স্মার্টফোন কিনে দিয়েছিলেন দম্পতি। তাই যেন কাল হল।

মাধ্যমিকে ৯০ শতাংশ পাওয়া ছাত্রই পরের বছর অঙ্কে ফেল। কলকাতা-সহ জেলার একাধিক নামী স্কুলে ভরতি করেও, ছেলেকে স্কুলে পাঠাতে পারেননি মা-বাবা। তাঁদের দাবি, দিনভর বন্ধ ঘরে পাবজি খেলত কিশোর। কারও সঙ্গে ঠিকমতো কথাও বলত না। দিনের পর দিন না খেয়ে শীর্ণ চেহারা হয়ে গিয়েছিল। শেষমেষ সমাজকর্মীদের সাহায্যে, বুধবার রাতে ছেলেকে কোচবিহারের রিহ্যাব সেন্টারে ভরতি করেন দম্পতি।

জানা গিয়েছে, ছেলেটি অন্ধকার ঘরে থাকতে ভালোবাসত। দিনের আলো দেখতে পছন্দ করত না। খাওয়া দাওয়ার কোনো সময় ছিল না। চার পাঁচ দিন পরপর কখনো খুব ভোরে আবার রাতে সামান্য খাবার খেত। শেষবার স্নান করেছিল মহালয়ার আগে।

কিছুদিন আগে, সেপ্টেম্বর মাসে কর্ণাটকে এই গেমের কারনেই ছেলের হাতে খুন হয় বাবা।

First published: 01:02:47 PM Oct 19, 2019
পুরো খবর পড়ুন
Loading...
अगली ख़बर