Home /News /technology /
Green NFTs: গ্রীন NFT সম্পর্কে এই বিষয়গুলি আপনার অবশ্যই জানা দরকার

Green NFTs: গ্রীন NFT সম্পর্কে এই বিষয়গুলি আপনার অবশ্যই জানা দরকার

বেশির ভাগ ক্রিপ্টো এবং NFT এক্সচেঞ্জের দিকে এক ঝলক দেখে নিলেই বোঝা যাবে যে, অনেক নতুন নতুন NFT তৈরি করা হচ্ছে সাস্টেনেবল এবং গ্রীন টেকনোলজি ব্যবহার করে।

  • Share this:

    ক্রিপ্টো বিনিয়োগকারীদের মধ্যে অধিকাংশই বিশ্বাস করেন যে এখনও পর্যন্ত এনার্জি এবং রিসোর্স-হেভি প্রক্রিয়া ব্যবহার করেই NFT তৈরি করা হচ্ছে। তবে, বেশির ভাগ ক্রিপ্টো এবং NFT এক্সচেঞ্জের দিকে এক ঝলক দেখে নিলেই বোঝা যাবে যে, অনেক নতুন নতুন NFT তৈরি করা হচ্ছে সাস্টেনেবল এবং গ্রীন টেকনোলজি ব্যবহার করে। যদি আপনি এই বিষয়টি না জেনে থাকেন, তাহলে বলে রাখি, এগুলিই এখন গ্রীন NFT নামে পরিচিত।

    অধিকাংশ NFT এখন প্রুফ-অফ-ওয়ার্ক (PoW) ব্লকচেনে মিন্ট করা হয়, এই মাইনিং প্রক্রিয়ার জন্য প্রচুর পরিমাণ কম্পিউটিং পাওয়ার প্রয়োজন হয়। অধিকাংশ NFT ইথেরিয়াম ব্লকচেনে তৈরি করা হয় এবং ইথেরিয়াম এনার্জি কনজাম্পশান ইন্ডেক্স-এর হিসেব বলছে, ইথেরিয়াম ব্লকচেনে তৈরি করা প্রতিটি NFT এর জন্য 223.85 কিলোওয়াট-ঘণ্টা বিদ্যুৎ প্রয়োজন হয়। প্রকৃতপক্ষে, PoW ইথেরিয়াম ব্লকচেনে একটি সিঙ্গেল NFT ট্রানজ্যাকশানের জন্য 124.86 কেজি কার্বন ডাই-অক্সাইড তৈরি হয়।

    স্পষ্টই বোঝা যাচ্ছে, নতুন প্রজন্মের NFT তৈরির প্রক্রিয়াকে পরিবেশ-বান্ধব এবং চিরাচরিত NFT এর তুলনায় বেশি কার্বন পজিটিভ করে তোলার জন্য কিছু পরিবর্তন করা জরুরি।

    গ্রীন NFT এর সাথে পরিচয় করুন –

    এখন চলে এসেছে গ্রীন NFT- যাদের ইম্প্যাক্ট NFT বলা হয়। এই গ্রীন NFT গুলি মিন্ট করা হয় প্রুফ অফ স্টেক (PoS) ব্লকচেনে বা খুব সামান্য কার্বন মাইনিং প্রক্রিয়া ব্যবহার করে। এর মাধ্যমে নিশ্চিত করা হয় যেন প্রতিটি টোকেন পরিবেশ-বান্ধব হয় এবং কিছু ক্ষেত্রে, পরিবেশের পক্ষে ইতিবাচক-ও হতে পারে। প্রকৃতপক্ষে, সম্পূর্ণ ইথেরিয়াম ব্লকচেন এখন PoS মেকানিজমে শিফ্ট করে যাচ্ছে যাতে অনেক কম ভবিষ্যতের NFT গুলি এনভায়ারনমেন্টাল ফুটপ্রিন্ট-সহ তৈরি করা সম্ভব হয়।

    আরও পড়ুন: মাইক্রোসফট ওয়ার্ডের এই ৫ ট্রিক আসান করে দেবে লেখালিখি

    ক্রিপ্টো এক্সচেঞ্জ প্ল্যাটফর্ম ZebPay এর CEO অবিনাশ শেখরের মতে, “এখন প্রয়োজন হল সাস্টেনেবিলিটি, সেটা কনস্ট্রাকশান হোক কিংবা টেকনোলজি-তে। ভারতে কয়েক লক্ষ প্রতিভাবান স্থানীয় শিল্পী ও কারিগর রয়েছেন এবং তাঁদের আরও কাজ করা ও সেগুলি সংরক্ষণ করার জন্য গ্রীন NFT মার্কেটপ্লেস নতুন নতুন সুযোগ তৈরি করতে পারে”।

    ক্রিপ্টো স্পেসের অধিকাংশ কোম্পানী এখন পুনর্নবীকরণ-যোগ্য শক্তির উৎস ব্যবহারে উৎসাহ দেখাচ্ছে, যাতে কার্বন নিঃসরণের পরিমাণ হ্রাস করা যায়। তবে, এখনও বহু ক্রিপ্টো কোম্পানী এমন নতুন স্পেস খোঁজার চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে যা আরও ভালো সমাধান প্রদান করবে।

    অন্যান্য টেকনোলজি, যেমন সোলানা ও কার্ডানো এবং তাদের টোকেন ইম্প্যাক্ট NFT-এর কনসেপ্ট আরও কয়েক ধাপ এগিয়ে নিয়ে গিয়েছে, যার ফলে এটি খুব অল্প সময়ের মধ্যে অনেক বেশি জনপ্রিয়তা অর্জন করেছে। ভাবছেন যে এই টোকেনগুলি কোথায় পাবেন, তাহলে দেখে নিন ZebPay, এটি হল ভারতের সবচেয়ে পুরোনো ক্রিপ্টো এক্সচেঞ্জ, এখানে আপনি 100টিরও বেশি টোকেনের মধ্যে থেকে বেছে নেওয়ার সুবিধা পাবেন।

    শিল্পীরা এখন বেশি পরিচ্ছন্ন NFT পছন্দ করছেন –

    ডিজিটাল শিল্পী মাইক উইঙ্কলমান, যিনি বিপল নামে বেশি পরিচিত, তিনি NFT এর ক্ষেত্রে সাস্টেনেবল বা দীর্ঘমেয়াদী ভবিষ্যৎ সম্পর্কে বিশ্বাসীদের মধ্যে অন্যতম। তাঁর শিল্পকীর্তি “এভরিডেজ: দ্য ফার্স্ট 5000 ডেজ” মূলত NFT নিয়ে উন্মাদনা ছড়িয়ে দিয়েছিল, কারণ এটি ক্রিস্টিজ-এ বিক্রি হয়েছিল $69 মিলিয়নের বিনিময়ে। বিপল সম্প্রতি একটি স্বাক্ষাৎকারে উল্লেখ করেছেন যে, তাঁর পরবর্তী শিল্পকীর্তি হবে কার্বন নিউট্রাল কিংবা নেগেটিভ, অর্থাৎ তাঁর আসন্ন শিল্পকর্মগুলি যখন NFT তে পরিণত হবে তখন সেগুলি থেকে কোনও রকমের নির্গমণ হবে না, অর্থাৎ সেগুলি বিনিয়োগ করবে বিভিন্ন পুনর্নবীকরণযোগ্য বা রিনিউয়েবল এনার্জি, কনজার্ভেশান প্রোজেক্ট, এমন টেকনোলজিতে- যা বায়ুমণ্ডল থেকে CO2 শোষণ করে নেবে।

    ডোজা ক্যাট এবং জন লিজেন্ড-এর মতো সঙ্গীতশিল্পীরাও জোট বেঁধেছেন কুইন্সে জোন্সের NFT মার্কেটপ্লেসের সাথে, যারা মূলত গ্রীন NFT বিক্রি করে। অন্যান্য ডিজিটাল শিল্পী যেমন ন্যান্সি বেকার কাহিল এবং জুলিয়ান অলিভার ইতিমধ্যে তাঁদের কাজ এবং গ্রীন NFT-তে তাঁদের ফোকাসের জন্য সুপরিচিত।

    আরও পড়ুন: ১৩টি নতুন মোবাইল প্ল্যানে বিনামূল্যে অ্যামাজন প্রাইম! দেখুন অসাধারণ এই অফার

    যদি NFT আপনার দৃষ্টি আকর্ষণ করে থাকে, কিন্তু যে কোনও জনপ্রিয় ব্লকচেনে এটি কেনা বা বিক্রি করার ফলে পরিবেশের উপরে প্রভাব পড়তে পারে ভেবে যদি চিন্তিত হয়ে থাকেন, তাহলে নিশ্চিন্ত থাকুন যে এই বিকল্পটি আপনার জন্য একদম আদর্শ। শুধুমাত্র হাতে একটু সময় নিয়ে গ্রীন NFT নিয়ে সার্চ করে দেখুন এবং সেই সমস্ত শিল্পীর খোঁজ করুন যাঁরা তাঁদের পরবর্তী প্রোজেক্ট কার্বন নিউট্রাল বা নেগেটিভ হবে বলে ঘোষণা করেছেন। অবশ্যই তার আগে ট্রানজ্যাকশান প্রক্রিয়া মসৃণ করে তোলার জন্য ZebPay এর মতো বিশ্বাসযোগ্য ক্রিপ্টো এক্সটেঞ্জে একটি অ্যাকাউন্ট খুলে নিন।

    এখন, সবচেয়ে বড় প্রশ্ন হল- আপনি কি একই সাথে একজন পরিবেশপ্রেমী এবং একজন NFT সংগ্রাহক হতে পারেন? এই মুহূর্তে উপলভ্য সমস্ত অত্যাধুনিক টেকনোলজির কথা বিচার করলে এবং যে ভাবে তাদের অগ্রগতি হচ্ছে, সব মিলিয়ে বলা যেতেই পারে, এর উত্তর নিঃসন্দেহে হ্যাঁ।

    এটি একটি পার্টনারড পোস্ট
    Published by:Ananya Chakraborty
    First published:

    Tags: Cryptocurrency, NFT, Zebpay

    পরবর্তী খবর