• Home
  • »
  • News
  • »
  • sports
  • »
  • মুহূর্তে ভাইরাল ভিডিও! বাবার সঙ্গে বিজ্ঞাপনে অভিষেক ধোনি কন্যা জিভার

মুহূর্তে ভাইরাল ভিডিও! বাবার সঙ্গে বিজ্ঞাপনে অভিষেক ধোনি কন্যা জিভার

photo source/instagram

photo source/instagram

টিভিতে প্রচারের আগে বিজ্ঞাপনের অংশবিশেষ ইন্সটাগ্রামে আপলোড করা হয়েছে। যেখানে জিভার অভিনয়ের প্রশংসায় মেতেছেন সবাই

  • Share this:

    #মুম্বই: কখনও আহত পাখিকে সেবা করে সুস্থ করে তুলছে বাচ্চা মেয়েটা, কখনও বা মহেন্দ্র সিং ধোনি ব্যাট করতে নামছেন, তার আগে ছোট্ট জিভা বাবাকে টিপস দিচ্ছেন ভাল খেলার, বা ম্যাচ জিতে হোটেলে ফিরে কেক কাটার সময় বাবাকে অপেক্ষা করতে বলছেন 'বিরাট আঙ্কেলের' জন্য। এমন ভিডিও নেটিজেনদের কাছে নতুন নয়। সোশ্যাল মিডিয়ায় মহেন্দ্র সিং ধোনির মেয়ে জিভা ধোনি ইতিমধ্যেই তারকা। জিভার বিভিন্ন মুহূর্তের ছবি আর ভিডিও ধোনি আর তাঁর স্ত্রী সাক্ষী সোশ্যাল সাইটে পোস্ট করেন। এই বয়সেই জিভার ইন্সটাগ্রাম অনুসারীর (ফলোয়ার) সংখ্যা ১৮ লাখের বেশি। জিভা আর ধোনির যৌথ জনপ্রিয়তাকে কাজে লাগাতে চেয়েছে ওই সংস্থা। যে কারণে বাবা-মেয়েকে একসঙ্গে দেখা গেছে বিজ্ঞাপনচিত্রে।

    টিভিতে প্রচারের আগে বিজ্ঞাপনের অংশবিশেষ ইন্সটাগ্রামে আপলোড করা হয়েছে। যেখানে জিভার অভিনয়ের প্রশংসায় মেতেছেন সবাই। বিজ্ঞাপনের ভিডিও ক্লিপটিতে দেখা যাচ্ছে বাবা ধোনি ও মেয়ে জিভা মিলে প্রাতরাশ টেবিলে বসেছেন বিস্কুটের প্যাকেট নিয়ে। একটি কেকের ওপর একে একে বিস্কুট রাখছেন। ধোনি কথা দিচ্ছেন এবার থেকে ফোনে কম, জিভাকে বেশি সময় দেবেন। শুনে আনন্দে হাততালি দিচ্ছে জিভা। মেয়ের আবদার বাবা বল করবে,সে ব্যাট করবে। আবার মায়ের জন্য দুজনে মিলে প্রাতরাশ বানাবেন বলে ঠিক করছেন। তারপর চালাকি করে বাবার হাত থেকে বিস্কুট কেড়ে নিয়ে জিভা বলছে এটা জিভার বিস্কুট। এরপর দুজনে হাসিতে ফেটে পড়লেন।

    ইতিমধ্যেই প্রচুর মানুষ ভিডিওটি দেখে ফেলেছেন। টিভিতে সম্প্রচার হলে আরও জনপ্রিয় হবে বলাই যায়। এমনিতে মহেন্দ্র সিং ধোনি যখন খেলতেন তখন বিজ্ঞাপন জগতে তাঁর মূল্য ছিল অপরিসীম। অবসর নেওয়ার পরেও একাধিক পণ্যের বিজ্ঞাপন করেন তিনি। উল্লেখ্য ইতিমধ্যেই রাঁচির খামারবাড়িতে বিশাল জায়গা জুড়ে জৈব চাষ করছেন তিনি। দেশ এবং বিদেশে রফতানি হবে ওই জমিতে তৈরি শাক,সব্জি। এই মুহূর্তে দুবাইয়ে ছুটি কাটাচ্ছেন ভারতের প্রাক্তন অধিনায়ক। ধোনি এবং জিভার এই নতুন বিজ্ঞাপন ইতিমধ্যেই সাড়া ফেলে দিয়েছে।

    Published by:Rohan Chowdhury
    First published: