• Home
  • »
  • News
  • »
  • sports
  • »
  • Biryani For Vaccination : ফ্রি-বিরিয়ানি থেকে মিক্সার গ্রাইন্ডার, সোনার কয়েন! করোনা টিকার সংশয় কাটাতে লাকি ড্র...

Biryani For Vaccination : ফ্রি-বিরিয়ানি থেকে মিক্সার গ্রাইন্ডার, সোনার কয়েন! করোনা টিকার সংশয় কাটাতে লাকি ড্র...

টিকাকরণে হাতিয়ার এবার ফ্রি বিরিয়ানি!

টিকাকরণে হাতিয়ার এবার ফ্রি বিরিয়ানি!

করোনা ভাইরাসের (Coronavirus) বিরুদ্ধে দেশজুড়ে টিকাকরণ (Vaccination) শুরু হয়ে গেলেও এখনও অনেক রাজ্যেই থমকে রয়েছে টিকাদন পদ্ধতি। আর তার পেছনে কাজ করছে টিকা নিয়ে ভুল ধারণা ও সার্বিক ভীতি।

  • Share this:

    #তামিলনাড়ু : করোনা ভাইরাসের (Coronavirus) বিরুদ্ধে দেশজুড়ে টিকাকরণ (Vaccination) শুরু হয়ে গেলেও এখনও অনেক রাজ্যেই থমকে রয়েছে টিকাদন পদ্ধতি। আর তার পেছনে কাজ করছে টিকা নিয়ে ভুল ধারণা ও সার্বিক ভীতি। উত্তরপ্রদেশ-সহ দেশের অনেক গ্রামেই ভ্যাকসিন নিয়ে দ্বিধা তৈরি হয়েছে।চেন্নাইয়ের বাইরে এমনই একটি মৎস্যজীবীদের গ্রাম, কোভালাম। খুব কম সংখ্যক মানুষই টিকা নিয়েছেন এই গ্রামে। বাকিদের সংশয় কাটিয়ে টিকাকরণের আওতায় আনতে অভিনব উদ্যোগ নিল স্বেচ্ছাসেবী সংস্থা। আনা হল বিরিয়ানি! দেওয়া হল লাকি-ড্র খেলে জেতার সুযোগও।

    কোভালাম গ্রামে ১৪,৩০০ জনের বসবাস, যার মধ্যে ৬,৪০০ জন ১৮ বছরের ঊর্ধ্বে। এলাকার মৎস্যজীবী সম্প্রদায়ের মানুষদের জন্য সহায়তা করা এসটিএস ফাউন্ডেশনের সুন্দর জানিয়েছেন, ভ্যাকসিন নিয়ে দ্বিধা তৈরি হওয়ার কারণে এই গ্রামের মাত্র ৫৮ জন টিকাকরণ করিয়েছে গত দু'‌মাসে। টিকাকরণের সংখা ক্রমেই হ্রাস পাচ্ছে এই উদ্বেগ থেকেই ভ্যাকসিন নিয়ে সংশয় দূর করার জন্য পরিকল্পনা করছেন একদল সচেতন মানুষ।

    এলাকার সিএন রামদাস ফাউন্ডেশন, এসটিএস ফাউন্ডেশন ও চিরাজ ট্রাস্ট একসঙ্গে হাত মিলিয়েছে এবং টিকাকরণ করাতে যাতে বেশি করে মানুষ এগিয়ে আসেন তার জন্য আকর্ষণীয় প্রস্তাবও রেখেছে। এই প্রস্তাবটিকে আরও আকর্ষণীয় করে তুলতে এই তিন ফাইন্ডেশনের টিম সাপ্তাহিক লাকি ড্র-এর বন্দোবস্ত করেছে। এই অভিনব খেলায় তিনজনের নাম উঠলে তাঁরা পেয়ে যাবে, মিক্সার, গ্রাইন্ডার ও ২ গ্রামের সোনার কয়েন। এখানেই শেষ নয় রয়েছে বাম্পার ড্র, যেখানে না উঠলে ভাগ্যে জুটে যাবে ফ্রিজ, ওয়াশিং মেশিন এবং এমনকী স্কুটারও।

    এই নতুন উদ্যোগ নেওয়ার পরই তা ম্যাজিকেরর মতো কাজ করেছে, টিকাকরণ করাতে মানুষের সংখ্যা বেড়েছে। তিনদিনে ৩৪৫ জন মানুষ টিকা নিয়েছেন। সুন্দর বলেন, ‘‌গত তিনদিনে আমারা ৩৪৫ জনকে টিকা দিয়েছি এবং লাকি ড্র-এর পরিকল্পনাটি বহু মানুষকে আকর্ষিত করছে। গ্রামবাসীরা ভ্যাকসিন কেন্দ্রে টিকা নিতে আসছেন বিরিয়ানি ও লাকি ড্র-এর জন্য। সুতরাং, এই অভিনব পরিকল্পনা যে বেশ ভালভাবে কাজ করেছে সেকথা বলাই বাহুল্য।'‌

    সিএন রামদাস ফাউন্ডেশনের গোথাম রামদাস এ প্রসঙ্গে বলেন, ‘‌কোভালামকে কোভিড মুক্ত করাই আমাদের লক্ষ্য। এখানে ৭ হাজার জন বাসিন্দা রয়েছেন যারা টিকা নেওয়ার যোগ্য।তাঁদের টিকাকরণ করিয়ে যত দ্রুত সম্ভব কোভালামে ১০০ শতাংশ টিকাকরণ শেষ করে ভারতের জন্য নজির গড়ে তোলাই আগামী দিনের লক্ষ্য।

    Published by:Sanjukta Sarkar
    First published: