• Home
  • »
  • News
  • »
  • sports
  • »
  • OTHER SPORTS MIRABAI CHANU COOK KV KOTESWARARAO DISCLOSES HER DIET CHART DMG

Mirabai Chanu Diet: পছন্দ শুয়োরের মাংস, মীরাবাঈ চানুর ডায়েটে আর কী থাকে? শুনুন তাঁর দক্ষিণ ভারতীয় রাঁধুনির মুখে

টোকিওতে ইতিহাস মীরাবাঈ চানুর৷ Photo-Reuters

গত চার বছর ধরে মীরাবাঈয়ের সঙ্গে রয়েছেন কে ভি কোটেশ্বররাও৷ ২০১৭ তাঁকে মীরাবাঈয়ের ম্যাসিওর এবং রাঁধুনির দায়িত্ব দেন জাতীয় ভারোত্তোলন কোচ বিজয় শর্মা (Mirabai Chanu Diet)৷

  • Share this:

    #দিল্লি: দু' জন দেশের দুই প্রান্তের মানুষ৷ কিন্তু মীরাবাঈ চানুর সাফল্যের নেপথ্যে রয়েছেন যাঁরা, তাঁদের মধ্যে অন্যতম ৪১ বছরের কে ভি কোটেশ্বরারাও৷ কোটেশ্বর রাও মীরাবাঈ চানুর রাঁধুনি এবং ম্যাসিওর৷ মণিপুরের মীরাবাঈকে আরও শক্তিশালী করে তুলতে যা যা প্রয়োজন, তা রান্না করে দেন কোটেশ্বরই৷ টোকিও অলিম্পিক্সের আগে ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেসকে দেওয়া একটি সাক্ষাৎকারে কোটেশ্বর জানিয়েছিলেন, ডায়েট মেনে কী কী পছন্দ করেন মীরাবাঈ৷

    গত চার বছর ধরে মীরাবাঈয়ের সঙ্গে রয়েছেন কে ভি কোটেশ্বররাও৷ ২০১৭ তাঁকে মীরাবাঈয়ের ম্যাসিওর এবং রাঁধুনির দায়িত্ব দেন জাতীয় ভারোত্তোলন কোচ বিজয় শর্মা৷ অন্ধ্র প্রদেশের রান্নায় সাধারণত ঝাল, মশলার পরিমাণ একটু বেশিই থাকে৷ কোটেশ্বর জানিয়েছেন, প্রথমেই মীরাবাঈয়ের জন্য অন্ধ্র স্টাইলে বিরিয়ানি এবং চিকেন ললিপপ তৈরি করে দিয়েছিলেন তিনি৷ কিন্তু কয়েক দিনের মধ্যেই তিনি বুঝতে পারেন, রান্নার ধরন বদলে ফেলতে হবে তাঁকে৷ বিরিয়ানি,চিকেনের বদলে শুয়োরের মাংস রান্নায় মন দিতে হবে তাঁকে৷

    কোটেশ্বর বলেন, 'প্রথমে তো আমি অন্ধ্র স্টাইলেই মীরাবাঈয়ের জন্য মুরগির মাংস রেঁধে দিতাম৷ কিন্তু মীরাবাঈ আমাকে জানিয়েছিল যে রান্না খেয়ে ওর খুব ঝাল লাগছে৷ আস্তে আস্তে আমি মীরাবাঈয়ের জন্য কম মশলা এবং নুন দিয়ে রান্না করা শিখে নিয়েছি৷ মীরাবাঈ দক্ষিণ ভারতীয় কায়দায় খাসির এবং মুরগির মাংস খেতে পছন্দ করে ঠিকই৷ কিন্তু মাঝেমধ্যেই ও আমাকে বলে যে মণিপুরে নিয়ে গিয়ে সবথেকে ভাল শুয়োরের মাংস খাইয়ে আনবে আমাকে৷'

     মীরাবাঈ চানুর সঙ্গে কে ভি কোটেশ্বররাও৷

    কোটেশ্বর রাও জানিয়েছেন, খাওয়ার সময় সব পদই গড়ে দেড়শো গ্রাম করে খান মীরাবাঈ৷ কম ক্যালোরি যুক্ত খাবার তৈরির দিকেও নজর রাখতে হয় তাঁকে৷ কোটেশ্বর বলেন, 'ওর বেশি করে প্রোটিন জাতীয় খাবার প্রয়োজন৷ সেই কারণে শুয়োরের মাংস, চিংড়ি অথবা স্যামন মাছ বেশি পছন্দ করে মীরাবাঈ৷ মাংস বা মাছ যাতে ভাল ভাবে সেদ্ধ হয়, সেদিকে আমি খেয়াল রাখি৷'

    কোটেশ্বরও ভারত্তোলনে বড় কিছু করার স্বপ্ন দেখতেন৷ বিজয়ওড়ার বাসিন্দা কোটেশ্বর ২০০০ সালে জাতীয় জুনিয়র পর্যায়ে সোনাও জেতেন৷ এর দু' বছর পর সিনিয়র পর্যায়েও ভারোত্তলনে ব্রোঞ্জ জিতেছিলেন তিনি৷ কিন্তু সেই সময় কেন্দ্র বা রাজ্য সরকারের তরফে সেভাবে সাহায্য পেতেন না ভারোত্তোলকরা৷ তাই কোটেশ্বরও খুব বেশি এগোতে পারেননি৷ তিনি মীরাবাঈয়ের ম্যাসিওর এবং রাঁধুনির দায়িত্ব সামলালেও নিজের সময় কাউকে পাশে পাননি৷

    এখন অবশ্য কোটেশ্বরকে ছাড়া মীরাবাঈয়ের চলেই না৷ এই চার বছরে কোটেশ্বরের কাছে মীরাবাঈ হয়ে উঠেছেন তাঁর প্রিয় সেল্লি৷ তেলুগুতে যার অর্থ ছোট বোন৷ আর কোটেশ্বরকে মীরাবাঈ আন্না বলে ডাকেন৷ মীরাবাঈ যখন আমেরিকায় টোকিও অলিম্পিক্সের প্রস্তুতি নিচ্ছিলেন, তখন করোনা বিধিনিষেধের কারণে খুব কম সাপোর্ট স্টাফ নিয়ে যেতে হয়েছিল তাঁকে৷ ফলে বাদ পড়েছিলেন কোটেশ্বর৷ কিন্তু আমেরিকায় থাকার সময়ও কোটেশ্বরের রান্না মিস করতেন মীরাবাঈ চানু৷ কোটেশ্বরের কথায়, 'আমেরিকা থেকে ও আমাকে ফোনে বলত, আন্না, এখানে এত টাটকা স্যামন মাছ পাওয়া যায়৷ তুমি যদি আমাকে এগুলো রান্না করে দিতে পারতে!'

    সেই মীরাবাঈ আজকে অলিম্পিক্সে রুপো জিতে ইতিহাস সৃষ্টি করেছেন৷ আর নিজের প্রিয় সেল্লির মধ্যে দিয়েই হয়তো নিজের অধরা স্বপ্নপূরণ করে ফেললেন কোটেশ্বরও৷

    Published by:Debamoy Ghosh
    First published: