গোপাল বসু-র প্রয়াণে শোকস্তব্ধ বাংলার ক্রিকেটমহল, শোকবার্তা মুখ্যমন্ত্রীর

গোপাল বসু-র প্রয়াণে শোকস্তব্ধ বাংলার ক্রিকেটমহল, শোকবার্তা মুখ্যমন্ত্রীর

  • Share this:

    # কলকাতা : বাংলার ক্রিকেটে শুধু একটা নাম নয়, গোপাল বসু বাংলা ক্রিকেটে একটা অধ্যায় ৷ পেশাদার ক্রিকেটারের জীবন থেকে সরে আসার পরেও কখনও ক্রিকেটকে নিজের থেকে আলাদা করেননি তিনি ৷ নির্বাচক থেকে কোচিং সবকিছুর সঙ্গে ছিলেন তিনি ৷

    বাংলার ক্রিকেটার গোপাল বসু বাংলা ক্রিকেটের কোচের দায়িত্ব যেমন সামলেছেন ,তেমনি নিজের অ্যাকাডেমিতে নিয়মিত কোচিং করাতেন তিনি ৷ তাঁর ক্রিকেট মানেই সঠিক ব্যকরণ মেনে ক্রিকেট ৷

    বাংলার ক্রিকেট আকাশ থেকে খসে গেল আক্ষরিক অর্থেই এক তারা। দিন কয়েক আগেই বার্মিহাংমে ছেলের কাছে বেড়াতে গিয়েছিলেন গোপাল বসু। রবিবার রাখির সকালে লন্ডন থেকে এল তাঁর মৃত্যু সংবাদ। বাংলার প্রথম অলরাউন্ডার শেষ পর্যন্ত জীবনের বাইশ গজে আউট হয়ে গেলেন।

    হয়ত জাতীয় দলে না খেলার একটা আক্ষেপ ছিল ৷ কিন্তু ক্রিকেটকে জীবনভর দিয়েই গেছেন তিনি ৷ তাই ক্রিকেটও বোধহয় তাঁকে একটা রিটার্ন গিফট দিয়েছিল ৷  দু’হাজার আট সালে বিরাট কোহলিদের বিশ্বজয়ী অনূর্ধ ১৯ ভারতীয় দলের ম্যানেজার ছিলেন গোপাল বসু। সেই বিশ্বকাপজয়ী দলের একটি সাম্মানিক মেডল তাঁর কাছেও ছিল  ৷

    এদিকে গোপাল বসুর প্রয়াণে শোকের ছায়া বাংলার ক্রিকেট মহলে ৷ মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দোপাধ্যায়ও নিজের টুইটবার্তায় মহান এই মানুষটির চলে যাওয়ায় শোকপ্রকাশ করেছেন ৷

    oooo  

      বাংলা ক্রিকেটের যাঁরা নাম তাঁরা সকলেই এই মানুষটার হাতেই ক্রিকেট শিখে বা শুধরে নিয়েছেন কেরিয়ারের কোনও না কোনও সময়ে ৷ তাতে কে নেই সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়, লক্ষ্মীরতন শুক্লা, রণদেব বসু কে নেই ৷

    লক্ষ্মীরতন শুক্লা তাই গোপাল বসুর হঠাৎ প্রয়াণে ভারাক্রান্ত ৷ বলেছেন, ‘‘ বাবা হারালাম, উনি না থাকলে আমার ভারতীয় দলে খেলা হত না ৷ ক্রিকেট যতটুটু শিখেছি বা জেনেছি সবটাই ওনার থেকে ৷’’

    আরও পড়ুন - নরেন্দ্র মোদিকে রাখি বাঁধল কচি-কাঁচারা, নজর কাড়লেন লকেটও

    অশোক মালহোত্রাও একইভাবে শোকস্তব্ধ ৷ তিনি বলেন , ‘‘ উনি বাংলার ক্রিকেট কিংবদন্তী ছিলেন ৷ এমন জেনটলম্যান ক্রিকেটার বাংলা ক্রিকেটে হয়নি ৷’’

    কড়া ধাতের মানুষ ছিলেন, কিন্তু তারপরেও ক্রিকেটের নিয়ম ভেঙে খেলাকে কখনও প্রশ্রয় দিতেন না ৷ তাই জেন্টলম্যান ক্রিকেটারের প্রয়াণে শোকের ছায়া নেমে এল রাখির দিনে ৷

    First published:

    লেটেস্ট খবর