আইপিএলে ব্যর্থ হয়ে ক্রিকেট ছাড়তে যাওয়া বরুণকেই চার কোটিতে দলে নিল নাইটরা

আইপিএলে ব্যর্থ হয়ে ক্রিকেট ছাড়তে যাওয়া বরুণকেই চার কোটিতে দলে নিল নাইটরা
File Photo

আর্কিটেক্ট ইঞ্জিনিয়ার থেকে ক্রিকেটার। আইপিএলে ব্যর্থ হয়ে ক্রিকেট ছাড়তে যাওয়া বরুণকেই চার কোটিতে দলে নিল নাইটরা।

  • Share this:

Eeron Roy Barman

#কলকাতা: আইপিএলে ব্যর্থ হয়ে একসময় ক্রিকেট ছাড়তে চেয়েছিলেন। চোটে ভুগেছেন অনেকটা সময়। তুবও সেই ব্যর্থ ক্রিকেটারকে নতুন মরশুমের জন্য দলে নিল কেকেআর। তাও আবার ৪ কোটি টাকায় শাহরুখের দলে বরুণ চক্রবর্তী। গতবছর অর্থাৎ ১২তম আইপিএলের নিলামে সবাইকে চমকে দিয়ে বরুণ ৮ কোটি ৪০ লক্ষ টাকায় বিক্রি হয়েছিলেন কিংস ইলেভেন পঞ্জাবে।

মিস্ট্রি স্পিনার হিসেবে পরিচিত তামিলনাড়ুর বরুণ চক্রবর্তী। অফস্পিন বা লেগ স্পিন শুধু নয়, ছয় রকম ডেলিভারি করতে পারেন বরুণ। তামিলনাড়ু প্রিমিয়ার লিগ খেলেই বরুণের উত্থান। কিন্তু বরুনের ক্রিকেটে হওয়ার গল্পটা একটু অন্য।ক্রিকেটার হিসেবে প্রতিষ্ঠা পাওয়ার জন্য উইকেটকিপিং থেকে পেস বোলিং সবকিছুই করেছিলেন এক সময়। সাফল্য না আসার ক্রিকেট ছেড়ে গলি ক্রিকেট খেলা শুরু করেন। আর সেখানেই নতুন করে নিজেকে আবিষ্কার করেন বরুণ। তামিলনাড়ু লিগের দ্বিতীয় ডিভিশনে পারফর্ম করে টিএনপিএল সুযোগ। সেখানে নজরকাড়া পারফরম্যান্স। কিন্তু আইপিএলে অভিষেক ম্যাচেই বেধড়ক মার খেতে হয় নাইট তারকা সুনিল নারিনের কাছে।

ইডেনে অভিষেক ম্যাচে প্রথম ওভারে ২৫ রান দিয়ে বসেন এই ক্রিকেটার। পুরো ৪ ওভার বল করার সুযোগ মেলেনি। তিন ওভারে মোট ৩৫ রান দিয়ে নেন মাত্র ১ উইকেট। তারপরে আর আইপিএল ম্যাচ খেলা হয়নি। অনুশীলনে আঙুলে চোট পেয়ে আইপিএল থেকেই ছিটকে যেতে হয়। এরপরেই কিছুটা মানসিক অবসাদে চলে যান বরুণ। খেলা ছেড়ে দেওয়ার কথা ভাবতে শুরু করেন। কিন্তু নাইট নেতার হস্তক্ষেপে শেষ পর্যন্ত সিদ্ধান্ত বদলান। নিজের সমস্যার কথা খুলে বলেন দিনেশ কার্তিককে। ডিকে বরুণকে ডেকে নেন নিজের অনুশীলনে। তারপর ঠিক কি হয়? বরুণ বলেন, ‘‘নেটে অনুশীলন করার পর পরামর্শ দেন দীনেশ কার্তিক। প্রথমেই ক্রিকেট ছাড়তে না করেন। শুধরে দেন ভুলত্রুটি। বরুণ আরও জানান, ঠিক যেন দাদার মতো গাইড করেছিলেন কার্তিক। কি করলে ভাল হবে। কোথায় ভুল হচ্ছে। কি করলে উন্নতি হবে। ধরে ধরে প্রত্যেকটা বিষয় আমাকে বুঝিয়ে দেন কার্তিক। ফলে অনেকটা আত্মবিশ্বাস ফিরে পাই।’’

দীনেশ কার্তিক টেকনিক্যালি কি কি পরামর্শ দিয়েছিল ? প্রশ্নের উত্তরে বরুণ অকপট উত্তর, ‘‘ বলের ফ্লাইট কমিয়ে গতি বাড়াতে বলেন ডিকে। ওর পরামর্শ পেয়ে আমি অনেকটাই পরিণত হয়েছি। নতুন বৈচিত্র আনার চেষ্টা করেছি। গতির সঙ্গে বল ঘোরাতেও পারছি। তবে সবথেকে বেশি ভাল লাগছে কার্তিকে অধীনে নিজেকে প্রমাণ করার আরেকটা সুযোগ পাবো বলে। কাধের চোটের কারণে ঘরোয়া ক্রিকেটে চলতি মরশুমে কোনও টুর্নামেন্ট খেলতে পারেননি বরুণ।’’

তামিলনাড়ু প্রিমিয়ার লিগেও নামা হয়নি। এরমধ্যেই কেকেআরের সুযোগ পাওয়াতে খুশি বরুণ। নিয়মিত অনুশীলন করছেন। কার্তিকের পরামর্শ মেনেই তামিলনাড়ুর স্পিনারকে দলে নিয়েছেন ভেঙ্কি মাইসোররা। তবে নিজের বেস প্রাইস থেকে এতটা বেশি দাম পাওয়ায় কিছুটা বিস্মিত বরুণ। এই আস্থার দাম মাঠে ফেরত দিতে চান বছর আঠাশের স্পিনার। পীযূষ চাওলাকে ছেড়ে বরুণ চক্রবর্তী মত স্পিনারকে নেওয়ার পেছনে কোনও নির্দিষ্ট কারণ আছে বলেই মনে করছে বিশেষজ্ঞ মহলও। সুনীল নারিন, কুলদীপ যাদব, প্রবীণ তাম্বের সঙ্গে বরুণও ম্যাককালামের হাতে বিকল্প হিসাবে রইল। পেস সহায়ক ইডেনের উইকেটে সুযোগ পেলে নিজের সেরার সেরাটা দিতে চান বরুণ চক্রবর্তী। ক্রিকেট খেলার পাশাপাশি আর্কিটেক্ট নিয়ে পড়াশোনা করেছেন বরুণ। ইঞ্জিনিয়ারিং পাশ করে চাকরিও করতে শুরু করেছিলেন। ২০১৬ সাল নাগদ চাকরি ছেড়ে সম্পূর্ণ মনোনিবেশ শুরু করেন ক্রিকেটেই। বরুণের কাছে তাই এখন ক্রিকেটই ধ্যান-জ্ঞান।

First published: 08:02:06 PM Dec 20, 2019
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर