আতঙ্কের নাম মোহনবাগান, বেইতিয়াদের ভয়ে কাঁপছে পাহাড়

আতঙ্কের নাম মোহনবাগান, বেইতিয়াদের ভয়ে কাঁপছে পাহাড়
অনুশীলনে সৃঞ্জয় বসু ও দেবাশিস দত্তের দলের দুই তারকা৷

নেরোকাকে ৬ গোল। চার্চিলকে তিন। বাগান আতঙ্কে ভুগছে ট্রাউ। রবিবার ইম্ফলে মোহনবাগান-ট্রাউ ম্যাচ।

  • Share this:

#ইম্ফল: গঙ্গাপাড়ের ক্লাবে মিডাস পিরিয়ড চলছে। বাবা, বেইতিয়ারা যেন ছুঁলেই সোনা হচ্ছে সব। ইদানিং আবার ৩ গোলের কমে কথাই বলছেন না বেইতিয়া, গঞ্জালেসরা। সেই ধারা বজায় রেখেই নেরোকাকে হাফ ডজন দিয়েছিল মোহনবাগান। ট্রাউয়ের কোটায় কত?

শক্ত পোক্ত ডিফেন্স নিয়েও ঘরের মাঠে ৩ গোলের কম খায়নি চার্চিল। মোহনবাগান মানেই যেন এখন আই লিগের অন্য ক্লাবগুলোর ত্রাস। ১৩ ম্যাচে ৩২ পয়েন্ট নিয়ে লিগ টেবিলে অন্যদের ধরাছোঁয়ার বাইরে কিবু ভিকুনার মোহনবাগান। আর সেই ক্লাবই রবিবার ইম্ফলের খুমান স্টেডিয়ামে বাগানের প্রতিপক্ষ পয়েন্ট টেবিলের তলানিতে থাকা ট্রাউ এফসির বিরুদ্ধে নামছে। পয়েন্ট টেবিলের ১ বনাম ৯-র লড়াই হতে চলেছে কাল।

নেহাতই একপেশে লড়াই। নাওরেম, বেইতিয়াদের বিরুদ্ধে ধারে ভারে জোয়েল সানডে, প্রিন্সওয়েল এমেকাদের তুলনাই হয় না। কলকাতার বাতিলদের নিয়ে তৈরি ট্রাউ এফসি পয়েন্ট টেবিলের পয়লা নম্বরিদের বিরুদ্ধে লড়াইয়ে কতক্ষণ টিকে থাকতে পারবেন, সেটাই দেখার। দলের প্রতিটি পজিশনে সোনা ঝরাচ্ছেন স্প্যানিয়ার্ড। মরশুম শুরুতে নড়বড়ে একটা দলকে শক্ত জমির ওপর দাঁড় করিয়ে দিয়েছেন কোচ কিবু। সেখানেই সাফল্য কিবু ভিকুনার।

চার্চিলের বিরুদ্ধে ২৩ পাসের গোল যে লম্বা অনুশীলনের ফসল, সেটা কিবুর অনুশীলন দেখলেই মালুম হয়। মাটিতে বল রেখে খেলা তৈরি থেকে পাসিং ফুটবলের ফুলঝুরি। বাগানের খেলার বাঁধুনিটাই অসাধারণ। পুরো দলটাকে এক সুতোয় গেঁথে ফেলেছেন কোচ কিবু ভিকুনা। গোলের নিচে শঙ্কর রায় থেকে মাঝমাঠে শেখ সাহিল কিংবা নাওরেম। আত্মবিশ্বাসের এভারেস্টে চড়ে আছেন বাগান ফুটবলাররা। ড্যানিয়েল সাইরাসের মতো ডিফেন্ডার নেই। তাতেও কুছ পরোয়া নেহি বাগানে।

কার্ড সমস্যায় আশুতোষ মেহতা নেই। আশুতোষের পরিবর্ত হিসেবে প্রথম এগারোয় আসছেন চুলোভা। ব্রিটোর বদলি হিসেবে ট্রাউ ম্যাচে অভিষেক ঘটতে পারে প্রাক্তন ফুটবলার জামশিদ নাসিরির ছেলে কিয়ানের। আই লিগের চ্যাম্পিয়নশিপ ট্রফি উঁকি মারছে গঙ্গাপাড়ে। ঝলমল করতে শুরু করেছে সবুজ-মেরুন জার্সি। গঙ্গাপাড়ের ক্লাবে সাফল্যের গন্ধ ম ম করছে। ভারতীয় ফুটবল অনুরাগীরাও তাজ্জব হয়ে যাওয়ার জোগাড়। কোচ-ফুটবলারদের পাশে অবশ্যই কৃতিত্ব দাবি করতে পারেন বাগানের দুই ইঞ্জিন সৃঞ্জয় বোস ও দেবাশিস দত্ত।

 PARADIP GHOSH

First published: February 29, 2020, 10:29 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर