Diego Maradona: নতুন মেডিকেল রিপোর্টে উঠে আসছে গাফিলতির অভিযোগ

Diego Maradona: নতুন মেডিকেল রিপোর্টে উঠে আসছে গাফিলতির অভিযোগ

নতুন মেডিকেল রিপোর্টে উঠে আসছে গাফিলতির অভিযোগ

মনে রাখতে হবে ফুটবল কিংবদন্তির চিকিৎসক লিওপোল্ড লুকেকে দীর্ঘক্ষণ জেরা করেছিল পুলিশ। মারাদোনার সারল্যের সুযোগ নিয়ে তিনি অনৈতিক কাজ করেছেন এমনটাই ছিল অভিযোগ

  • Share this:

    #লন্ডন: পৃথিবীর সর্বকালের অন্যতম সেরা ফুটবলার গত বছর পৃথিবী ছেড়ে চলে যাবেন, কেই বা ভাবতে পেরেছিল? পাগলাটে জিনিয়াস সাড়ে পাঁচ ফুটের ম্যাজিশিয়ান একসূত্রে বেঁধেছিলেন পৃথিবীর ফুটবল প্রেমীদের। কম বিতর্ক হয়নি তাঁর মৃত্যু নিয়ে। কখনও তাঁর অসংখ্য অবৈধ সন্তান দাবি তুলেছেন সম্পত্তির, কখনও কবর থেকে ডিএনএ পরীক্ষার জন্য দেহ তোলার ভাবনা হয়েছে। এবার সামনে এল নতুন বিতর্ক। আর্জেন্তিনার এক জনপ্রিয় সংবাদপত্রের খবর অনুযায়ী, মেডিক্যাল বোর্ডের তরফেই নাকি বলা হয়েছে, ‘মারাদোনার মেডিক্যাল টিম যথোপযুক্ত ব্যবস্থা নেয়নি। তাঁর চিকিৎসা ব্য়বস্থায় ঘাটতি ছিল। আর রোগীকে তাঁর ভাগ্যের উপর ফেলে রাখা হয়েছিল।’

    এই খবর প্রকাশিত হওয়ার পরই চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে। মেডিক্যাল বোর্ডের আর দাবি, ‘মারাদোনাকে সঠিক ভাবে মনিটরই করা হয়নি। চিকিৎসক, নার্স এবং পুরো মেডিক্যাল টিমেরই গাফিলতি রয়েছে।’ গত ২৫ নভেম্বর হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে মারা যান মারাদোনা। তার আগেই মাথায় অস্ত্রোপচার হয়েছিল ফুটবলের রাজপুত্রের। মাত্র ৮দিনের মধ্যে তাঁকে হাসপাতাল থেকে ছেড়েও দেওয়া হয়। তার পর ঘুমের মধ্যেই হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে মারা যান মারাদোনা। এই ঘটনার পরই তাঁর মেয়েরা চিকিৎসার গাফিলতির অভিযোগ আনেন। সেই নিয়ে এখনও বিতর্ক চলছে। এর মধ্যেই আবার মেডিক্যাল বোর্ডের দেওয়া তথ্য নিয়ে নতুন করে জলঘোলা শুরু হয়েছে।

    চিকিৎসার গাফিলতির যে অভিযোগ মারাদোনার মেয়েরা এনেছিলেন, সেটাই কি তবে সত্যি বলে প্রমাণিত হতে চলেছে? মনে রাখতে হবে ফুটবল কিংবদন্তি র চিকিৎসক লিওপোল্ড লুকে কে দীর্ঘক্ষণ জেরা করেছিল পুলিশ। মারাদোনার সারল্যের সুযোগ নিয়ে তিনি অনৈতিক কাজ করেছেন এমনটাই ছিল অভিযোগ। তবে যদি মেডিকেল বোর্ডের অভিযোগ সত্য প্রমাণ হয় তাহলে অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে চরম ব্যবস্থা নেওয়া হবে।আর্জেন্টিনার সাধারণ মানুষ এবং প্রশাসন এই ব্যাপারে একমত। মারাদোনা ছিলেন দেশের গর্ব। তাঁর শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করার সময় যদি যথেষ্ট পদক্ষেপ গ্রহণ করা না হয়ে থাকে তাহলে জেলে যেতে হতে পারে দোষীদের।

    Published by:Rohan Chowdhury
    First published:

    লেটেস্ট খবর