খেতাব জয়ে সাময়িক বিরতি, চেন্নাইয়ে থমকাল মোহনবাগান

খেতাব জয়ে সাময়িক বিরতি, চেন্নাইয়ে থমকাল মোহনবাগান

মোহনবাগান-চেন্নাই ম্যাচ ড্র। অঙ্কের হিসেবে দৌড়ে রিয়াল কাশ্মীর। আইজল ম্যাচে খেতাব জয়ের সম্ভাবনা বাগানের।

  • Share this:

মোহনবাগান (১) --- চেন্নাই (১) 

#কল্যাণী: ১০ মার্চ হোলির কল্যাণীতে কি আই লিগের রং সবুজ-মেরুন হবে ? না কী খেতাবের নিষ্পত্তি হবে পনেরোর যুবভারতীর ফিরতি ডার্বিতে ? দোল উৎসবের দিন রিয়াল কাশ্মীর বনাম ইস্টবেঙ্গল ম্যাচেই লুকিয়ে খেতাব ধাঁধার সব উত্তর, সব জবাব। সোমবার রিয়াল কাশ্মীর ইস্টবেঙ্গলকে হারিয়ে দিলে অঙ্কের হিসেবে লিগ ওপেন।

ইস্টবেঙ্গল ম্যাচে রবার্টসনের দল পয়েন্ট নষ্ট করলে দশের কল্যাণীতে আইজল এফসি-কে হারালেই ভারত সেরা মোহনবাগান। তবে এতো পারমুটেশন, কম্বিনেশনের দরকার হতো না! লক্ষ্মী বারে মোহনবাগান চেন্নাই সিটি-কে হারাতে পারলে! কিন্তু ওই যে! কপালের নাম গোপাল! গোয়া, কাশ্মীর, কেরল, পঞ্জাব জিতে আসা বাগানের অশ্বমেধের ঘোড়া ঘরের মাঠে আটকে গেল ধুঁকতে থাকা চেন্নাই সিটির বিরুদ্ধে। প্রথমার্ধের শেষ মিনিটে পাপার গোলে এগিয়ে গিয়েছিল কিবুর দল। কিন্তু এক একটা দিন এমনই যায়! আজকের দিনটা মোহনবাগানের ছিল না। বেইতিয়া, গঞ্জালেজদের খেলায় সেই চেনা ঝাঁজটাই ছিল না। কল্যাণীর সবুজ গালিচায় বরং দাপট দেখালেন কাটসুমি।

পুরনো ক্লাবের বিরুদ্ধে ঝলসে উঠলেন জাপানিজ। মাঠ জুড়ে খেললেন। প্রচুর ওয়ার্কলোড নিলেন।উঠে নেমে খেলে সচল রাখলেন চেন্নাই এক্সপ্রেস-কে। বলা যায়, কাটসুমিতে হোঁচট খেল সবুজ-মেরুন। ৬৭ মিনিটে কাটসুমির গোলেই ম্যাচে ফেরে চেন্নাই। একইসঙ্গে থমকে গেল বাগানের প্রাক লিগ জয় উৎসব। হাতের মুঠোয় খেতাব। আত্মতুষ্টি কী না কে জানে! গত কয়েকটি ম্যাচে অসাধারণ হয়ে ওঠা শেখ সাহিল, সুহের, নাওরেমরাই এদিন নেমে এলেন অতি সাধারণ স্তরে।

দাঁতে দাঁত রেখে ফিটো, নাগাপ্পনরাও লড়লেন সম্ভাব্য ভারত সেরাদের বিরুদ্ধে। ম্যাচ ড্র ১-১ গোলে। ১৫ ম্যাচে ৩৬ পয়েন্টে পৌঁছে গেল মোহনবাগান। মিনার্ভা, চার্চিলদের ধরাছোঁয়ার বাইরে। অঙ্কের হিসেবে এখনও বেঁচে রিয়াল কাশ্মীর। ১৪ ম্যাচ ২২ পয়েন্ট। ভাবুকের কল্পনায় টিমটিম করে রয়েছে কাশ্মীর। সোমবার শ্রীনগরে ঘরের মাঠে ইস্টবেঙ্গলকে হারাতে পারলে দৌড়ে টিকে থাকবে ম্যাসন রবার্টসন, ক্রিজোরা। আর না হলে মঙ্গলবার আইজলকে হারাতে পারলেই কল্যাণীতে হোলির রং সবুজ-মেরুন। সাঁতরাগাছি অবধি পৌঁছে গেছে সবুজ-মেরুন এক্সপ্রেস। কারশেডে যা অপেক্ষা! প্ল‍্যাটফর্মে পৌঁছতে দেরি তো হওয়ার কথা নয়! বাকিটা ওই চান্স ফ্যাক্টর! সে তো লিভারপুলের মতো বিশ্ব ফুটবলের প্রথম সারির দলকেও দেখতে হয়, সামলাতে হয়!

PARADIP GHOSH 

First published: March 5, 2020, 9:30 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर