"প্রয়োজনে আই লিগ খেলবে ইস্টবেঙ্গল", বিনিয়োগকারী প্রসঙ্গে অনড় মনোভাব লাল-হলুদে

"প্রয়োজনে আই লিগ খেলবে ইস্টবেঙ্গল", বিনিয়োগকারী প্রসঙ্গে অনড় মনোভাব লাল-হলুদে

পরিস্থিতি যা, তাতে দুই পক্ষে বিচ্ছেদ অবশ্যম্ভাবী।

পরিস্থিতি যা, তাতে দুই পক্ষে বিচ্ছেদ অবশ্যম্ভাবী।

  • Share this:

#কলকাতা: "প্রয়োজনে আইএসএল খেলবে না ক্লাব। আই লিগে ফিরে আসবে লাল হলুদ। ইস্টবেঙ্গলের মত ক্লাবে ঐতিহ্য বিকিয়ে দেওয়া হবে না। যে কোন মূল্যেই সদস্য সমর্থকদের আবেগ কিংবা স্বার্থ বজায় রাখা হবে।" বিনিয়োগকারী শ্রী সিমেন্টের সঙ্গে আলাপ-আলোচনা, রফার প্রসঙ্গ উঠতেই এই ভাবে সোজা ব‍্যাটে খেলছেন লাল হলুদের শীর্ষকর্তা দেবব্রত সরকার।

সাতের আইএসএল শেষের পর ইস্টবেঙ্গল ক্লাব কর্তাদের সঙ্গে আলোচনায় বসার কথা ছিল বিনিয়োগকারীদের। দুই তরফেই চুক্তিপত্র সই না হওয়ায় লাল-হলুদের সঙ্গে শ্রী সিমেন্টের ভবিষ্যত ঘোর অনিশ্চিত। এই পরিস্থিতিতে জট খোলার সম্ভাবনা নেই বললেই চলে।

শ্রী সিমেন্টের প্রতিনিধি দল কলকাতায় এলেও নিজেদের মনোভাবে অনড় লাল হলুদের সাবেকি কর্তারি। ক্লাবের পক্ষ থেকে দেবব্রত সরকার বলছেন,"ক্লাবের কার্যকরী কমিটির সদস্যদের সঙ্গে আলোচনা করেই আমরা সিদ্ধান্তে পৌঁছেছি। কোন ভাবেই ক্লাবের স্বার্থ ক্ষুন্ন করা যাবে না।"

লাল হলুদের সাবেকি কর্তাদের যা মনোভাব তাতে জট খোলার কোনও সম্ভাবনাই নেই। পরিস্থিতি বুঝতে কলকাতা এসেছেন সিমেন্টের শীর্ষ কর্তারা। দুই শিবিরেই জল মেপে নেওয়ার খেলা চলছে। তবে চুক্তিপত্র সই ইস‍্যুতে  ক্লাব কর্তাদের মনোভাব জেনে আপাতত মুখে কুলুপ এঁটে রয়েছেন বিনিয়োগকারী শ্রী সিমেন্ট কর্তৃপক্ষ।

সাতের আইএসএল চলাকালীন বারে বারে ক্লাবের সঙ্গে বিনিয়োগকারীদের সম্পর্ক নিয়ে প্রশ্ন উঠেছে। দুই পক্ষে চুক্তিপত্র সই সাবুদ নিয়ে লেগে থেকেছে তর্ক বিতর্ক। বিনিয়োগকারীদের পক্ষ থেকে তখনই ইঙ্গিত মিলেছিল, সাতের আইএসএল শেষে মার্চ মাসেই সম্পর্ক শেষ হতে চলেছে দুই পক্ষে। এবার সেই ক্লাইম্যাক্স। ক্লাব কর্তাদের সঙ্গে বিনিয়োগকারীদের মাইন্ড গেম শুরু হয়ে গেছে। অপেক্ষা শুধু মাত্র পর্দা ওঠার।

পরিস্থিতি যা, তাতে দুই পক্ষে বিচ্ছেদ অবশ্যম্ভাবী। তবে সেই বিচ্ছেদ আলোচনার মাধ্যমে শান্তি পথে আসবে? না কী আইনি পথে নিজেদের পাওনা বুঝে নেবে দুই পক্ষ? সেটাই এখন দেখার!

Published by:Pooja Basu
First published:

লেটেস্ট খবর