হোম /খবর /ফুটবল /
ছেঁড়া লিগামেন্ট নিয়ে খেলেও দলকে জেতাতে না পারায় হতাশ ডি ব্রুইন

ছেঁড়া লিগামেন্ট নিয়ে খেলেও দলকে জেতাতে না পারায় হতাশ ডি ব্রুইন

ডি ব্রুইন লিগামেন্ট ছেঁড়ার ব্যথা ভুলে গিয়েছেন ছিটকে গিয়ে

ডি ব্রুইন লিগামেন্ট ছেঁড়ার ব্যথা ভুলে গিয়েছেন ছিটকে গিয়ে

"আমি খেলতে পেরেছি, এটাই অলৌকিক ঘটনা মনে হচ্ছে, কারণ আমি নিশ্চিত, আমার অ্যাঙ্কেলে ক্ষত আছে। লিগামেন্ট ছিঁড়ে গেছে। কিন্তু দেশের জন্য খেলাটা দায়িত্ব মনে হয়েছে"

  • Last Updated :
  • Share this:

#মিউনিখ: শেষ পাঁচ বছর ধরে ফুটবলের জগতের অন্যতম সেরা মিডফিল্ডার ধরা হয় তাঁকে। ক্লাব ফুটবলের ম্যানচেস্টার সিটির প্রধান প্লে মেকার। ইউরো কাপ শুরু হওয়ার আগেই ইংল্যান্ডের ক্লাবের হয়ে জিতেছিলেন প্রিমিয়ার লিগ। বেলজিয়ামের বর্তমান ফুটবল দলটা তাঁদের সোনালী প্রজন্ম হিসেবে ধরা হয়। রাশিয়া বিশ্বকাপে ফ্রান্সের কাছে সেমিফাইনালে হেরে বিদায় নিতে হয়েছিল। এই ইউরো কাপে অন্তত ফাইনাল পর্যন্ত যাবে বেলজিয়াম এমন আশা করেছিলেন ফুটবল পণ্ডিতরা। কিন্তু শেষপর্যন্ত ইতালির অভিজ্ঞতার কাছেই হারতে হয়েছে রেড ডেভিলদের।

সেমিফাইনালে ওঠা হয়নি। মন খারাপ কেভিনের। তিনি মাঠে থাকবেন কিনা, এ নিয়েই সন্দেহ ছিল। কিন্তু ম্যাচের একাদশ দেখার পর চমকে গেছেন সবাই। বেলজিয়ামের হয়ে শুরুতেই নামলেন কেভিন ডি ব্রুইনা। চোট নিয়েই ইউরো খেলতে আসা ডি ব্রুইন মাঝে সুস্থ হয়ে উঠেছিলেন। কিন্তু পর্তুগালের বিপক্ষে শেষ ষোলোর ম্যাচ আবার তাঁকে ছিটকে দিয়েছিল মাঠের বাইরে। গতকাল ইতালির বিপক্ষে কোয়ার্টার ফাইনালে তাই ব্রুইনার খেলা নিয়ে সংশয় ছিল।

দলের আরেক তারকা এডেন হ্যাজার্ড যেমন পর্তুগালের বিপক্ষে চোট পেয়ে ছিলেন গ্যালারিতে; কিন্তু ইতালির বিপক্ষে কাল ৯০ মিনিটই মাঠে ছিলেন ডি ব্রুইন। সেটাও পায়ে চোট নিয়েই ! ২-১ গোলে হেরে যাওয়া ম্যাচে তাঁর উপস্থিতি অবশ্য খুব একটা প্রভাব ফেলেনি। শেষে চোট নিয়ে খেলার কথা নিজেই জানিয়েছেন ব্রুইন। উয়েফা ডট কমকে ডি ব্রুইন বলেছেন, ‘ব্যক্তিগতভাবে খুব অদ্ভুত চার থেকে পাঁচটা সপ্তাহ গেল। চিকিৎসক দলকে ব্যক্তিগতভাবে ধন্যবাদ দিতে চাই (খেলতে পেরেছেন তাই)। আজ যে আমি খেলতে পেরেছি, এটাই অলৌকিক ঘটনা মনে হচ্ছে, কারণ আমি নিশ্চিত, আমার অ্যাঙ্কেলে ক্ষত আছে। লিগামেন্ট ছিঁড়ে গেছে। কিন্তু দেশের জন্য খেলাটা দায়িত্ব মনে হয়েছে। দুর্ভাগ্যজনকভাবে আমি এর বেশি কিছু করতে পারিনি।’

চ্যাম্পিয়নস লিগ ফাইনালে চোট পেয়েছিলেন মুখে। সে চোট থেকে পুরোপুরি সেরে উঠতেই নাকি আরও ছয় মাস লাগবে। এর মধ্যেই আবার নতুন করে পর্তুগালের বিপক্ষে চোট পাওয়ার পর কাল ডি ব্রুইনাকে মাঠে নামানোর সিদ্ধান্ত নিয়ে হয়তো ভুলই করেছেন বেলজিয়ান কোচ রবার্তো মার্তিনেজ। যদিও কাল বেলজিয়াম প্রথমার্ধে নিজেদের সব আক্রমণই ডি ব্রুইনার মাধ্যমে করার চেষ্টা করেছে।

ডি ব্রুইনার ওপর বেলজিয়ামের এমন নির্ভরতার সর্বোচ্চ সুযোগ নিয়েছে ইতালি। ম্যাচে বেলজিয়ামের বাঁদিক থেকে ঝড় তুলেছিলেন লকু। কিন্তু দ্বিতীয়বার গোলের দেখা পায়নি তাঁরা। বৃথা গিয়েছে কেভিনের ছেঁড়া লিগামেন্ট নিয়ে লড়াই। এটাই ফুটবল! সোনালী প্রজন্ম আবারও খালি হাতে ফিরল।

Published by:Rohan Chowdhury
First published:

Tags: EURO 2020 Copa 2021, Euro Cup 2020