corona virus btn
corona virus btn
Loading

নিজের দেশেও রয়েছে, সৌরভের শহরে এটাতে মুগ্ধ প্রিন্স লারা

নিজের দেশেও রয়েছে, সৌরভের শহরে এটাতে মুগ্ধ প্রিন্স লারা

কলকাতায় কী খেলেন ব্রায়ান লারা? সৌরভের শহর থেকে কী নিয়ে গেলেন প্রিন্স?

  • Share this:

#বর্ধমান: ধারাভাষ্যের ব্যস্ত কর্মসূচির মধ্যে সময় করে কয়েক ঘণ্টার ঝটিকা সফর। কিন্তু তাতেই হইহই ফেলে দিয়েছেন ২২ গজের প্রিন্স। নিজের সময় দাপটে শাসন করেছেন ক্রিকেট দুনিয়াকে। ব্রায়ান চার্লস লারা। ২২ গজের অবিসংবাদী নায়ক। কলকাতা থেকে মুম্বই ফিরেই আবার উড়ে যাওয়া মেলবোর্ন। এক সময়ের ২২ গজের প্রতিদ্বন্দ্বির আমন্ত্রণে সাড়া দিতে। বন্ধু শেন ওয়ার্ন নিমন্ত্রণ করেছেন বায়ান লারাকে। মুম্বাই থেকে দেশে ফেরার আগে তাই অস্ট্রেলিয়ার মাটি ছুঁয়ে যেতে হবে প্রিন্সকে। ওয়ার্নের সঙ্গে দেখা করার জন্য মুখিয়ে রয়েছেন কিংবদন্তি লারা। ২০০৭ এ খুলে রেখেছেন প্যাড, গ্লাভস। তবু ক্রিকেট দুনিয়া আজও তাকে সেলাম ঠোকে। আজও তার নামে কুর্ণিশ জানায়। বিশ্ব ক্রিকেটে অটুট আজও তার একাধিক নজির, একাধিক রেকর্ড। প্রথম শ্রেণীর ক্রিকেটে সর্বোচ্চ রান হোক কিংবা টেস্ট ক্রিকেটে ধ্রুপদী ৪০০। ব্রায়ান চার্লস লারা মানেই ২২ গজে একনায়কত্ব। ক্রিকেটের নন্দনকাননে তার ব‍্যাটে রানের ফুলঝুড়ি দেখেনি এই শহর। কিন্তু একদিনের সফরে ভালবাসা আর আন্তরিকতায় সেই খেদ মিটিয়ে দিয়েছে বর্ধমান। তাই তো হাইওয়ের ধারে সেলফির আবদার মেটাতে এক কথায় নেমে পড়েন দূর দেশের ক্যারিবিয়ান নক্ষত্র। নিজের দেশে নারকেল গাছ প্রচুর দেখেছেন। কিন্তু বাংলার সবুজ ডাব তার মন টানে। নিরাপত্তার বেষ্টনী আর নিজস্ব স্টারডম সরিয়ে রেখে রাস্তায় নেমে পড়েন ব্রায়ান চার্লস লারা। হাইওয়ের ধারে বিক্রি হওয়া ডাবে তৃপ্তির চুমুক দেন আর পাঁচজন বাঙালির মতোই। স্বীকার করে নেন, এমন মিষ্টি জলের ডাব ত্রিনিদাদ-টোবাগোতে অমিল। নিজে থেকেই ডাবওয়ালার কাছে আরও একটা ডাব চেয়ে নেন। কলকাতার পাঁচতারা হোটেল থেকে ফল আর হালকা খাবার খেয়ে বেরিয়ে ছিলেন। খাবার বিষয়ে এই ৫০-সেও ভীষণরকম খুঁতখুঁতে প্রিন্স। ব্রায়ান লারার চেহারার সুঠাম ও গঠনের রহস্য যে খাদ্যাভ্যাসেই লুকিয়ে, বুঝতে অসুবিধে হয় না।

বাইশ গজের প্রিন্স এসেছিলেন বর্ধমান রাজনন্দিনী ক্লাবের ক্রিকেট টুর্নামেন্টের ফাইনালে অতিথি হয়ে। দশ বছরে পা দেওয়া টুর্নামেন্টের আয়োজকদের থেকে বাংলার নলেন গুড় ও বর্ধমানের বিখ্যাত চালের কথা শুনে সেটাও চেখে দেখার আগ্রহ দেখান কিংবদন্তি। আয়োজকরাও অতিথি সেবায় কার্পণ্য করেননি। লারার জন্য উপহারের ডালিতে সাজিয়ে দেওয়া হয় নতুন গুড়ের হাড়ি ও বর্ধমানের বিখ্যাত চাল। ব্রায়ান লারার সফরসঙ্গী ও রাজনন্দিনী ক্লাবের কর্তা রোহন ভৌমিক বলছিলেন," কপিলদেব, দিলীপ ভেঙ্গসরকার, হরভজন সিংদের দেখেছি। কিন্তু লারাকে নিয়ে প্রথম থেকেই একটা কুণ্ঠা ছিল! অত বড় মাপের ক্রিকেটার! কিন্তু এতটা সময় একসঙ্গে কাটিয়েছি বুঝতেই দিলেন না নিজের তারকা ইমেজটা। রাজনন্দিনীর মাঠের পরিবেশ দেখে অভিভূত বাইশ গজের প্রিন্স। নিজে থেকেই টুর্নামেন্টের পরিকাঠামো বদলের পরামর্শ দেন। ভারতীয় দলের কেএল রাহুলের ব্যাটিংয়ে ক্যারিবিয়ান ক্যালিপসোর ছন্দ খুঁজে পান বলেও জানিয়েছেন ব্রায়ান লারা।

PARADIP GHOSH

Published by: Ananya Chakraborty
First published: January 26, 2020, 2:14 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर