গায়ে নেই কোনও সেফটি জ্যাকেট ! কোনও নিয়ম না মেনেই ৭৫টি তাজা বোমা উদ্ধার পুলিশের

গায়ে নেই কোনও সেফটি জ্যাকেট ! কোনও নিয়ম না মেনেই ৭৫টি তাজা বোমা উদ্ধার পুলিশের

ঘটনাস্থলে আসে সিআইডির বোম স্কোয়াড বিশেষজ্ঞরা। তাজা বোমাগুলি নিষ্ক্রিয় করার কাজ শুরু করে।

  • Share this:

Shanku Santra

#ঢোলাহাট: মঙ্গলবার ঢোলাহাট থানা এলাকার ভগবানপুর থেকে প্রচুর পরিমাণে তাজা বোমা উদ্ধার করল পুলিশ। গোপন সূত্রে খবর পেয়ে ঢোলাহাট থানার আধিকারিক অনিন্দ মুখোপাধ্যায়ের নেতৃত্বে বিশাল পুলিশ বাহিনী নিয়ে ওই ভগবানপুর গ্রামে জনৈক নুরহোসেন মোল্লার বাড়ি তল্লাশি চালায়। তল্লাশি করতে গিয়ে নুরহোসের বাড়ির উঠানের খড়ের গাদার মধ্যে থেকে বের হতে থাকে প্রচুর তাজা বোমা ।

খড়ের গাদা থেকে একের পর বোমা উদ্ধারকে ঘিরে চাঞ্চল্য ছড়ায় এলাকায়। তল্লাশি চালিয়ে মোট ৭৫টি তাজা বোমা উদ্ধার করে। ঘটনাস্থলে আসে সিআইডির বোম স্কোয়াড বিশেষজ্ঞরা। তাজা বোমাগুলি নিষ্ক্রিয় করার কাজ শুরু করে।

2044_IMG-20191231-WA0010

এই ঘটনায় নূর হোসেন মোল্লা-সহ আর একজনকে পুলিশ গ্রেফতার করেছে। আগামিকাল, বৃহস্পতিবার তাদের কাকদ্বীপ আদালতে পেশ করা হবে। পুলিশ নুরহোসেন-কে গ্রেফতার করার পর একাধিক বার জেরা করা হচ্ছে, কিভাবে এত বোমা মজুত করা হয়েছিল এবং এই বোমা গুলি কি কারনে মজুত করা হয়েছিল । পুলিশ সূত্রে খবর, গত কয়েক দিন আগে ঢোলা থানা অঞ্চলে একটি অস্ত্র কারখানা হদিশ পাওয়া যায় তার পর ধৃতদের জেরা করে এই মজুত করার বোমার সন্ধান পাওয়া যায়। এত বোমা উদ্ধারকে ঘিরে চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে এলাকায়।

দীর্ঘদিন ধরে অভিযোগ ছিল,ঢোলাহাট,মন্দির বাজার, জয়নগর থানা এলাকাতে প্রচুর পরিমাণে বোম ও অস্ত্রের ভান্ডার রয়েছে।বাম সরকারের আমলে এই এলাকাগুলিকে অপরাধের আঁতুড়ঘর বানিয়ে ,অপরাধ পরিচালনা করা হত। ঢোলা থানা এলাকার নাম শুনলে মানুষ এক সময় চমকে উঠত, তবে এখন পুলিশি সক্রিয়তার জন্য ধরা পড়ছে গ্রেফতার হচ্ছে।প্রশাসনের দাবি ,খুব তাড়াতাড়ি আরও বড় ধরনের অপরাধ চক্র ফাঁস করতে পারবে তারা।

বোমা উদ্ধার করে সেগুলিকে নিষ্ক্রিয় করার সময় পুলিশ কোনও সেফটি জ্যাকেট,কিংবা বোম নিষ্ক্রিয় করার কোনও পদ্ধতি অবলম্বন করে নি।দেখা গিয়েছে পুলিশ নিজেই খালি হাতে বোমা গুলি এক জায়গায় করে ,বালতির জলে ডুবিয়ে নিষ্ক্রিয় করছে। এই ভাবে উদ্ধার ও নিষ্ক্রিয় করতে গিয়ে এর আগে পুলিশ গুরুতর আহত হয়েছে, কিংবা মারাও গিয়েছেন।সেই শিক্ষা আজও পুলিশের মধ্যে হয়নি। প্রত্যক্ষদর্শীদের কথায় পুলিশও সরকারি নিয়মকে বুড়ো আঙুল দেখায়! এই বিষয়ে পুলিশ আধিকারিকদের সঙ্গে যোগাযোগ করলে, কেউ মুখ খুলতে চাননি।

First published: 09:55:54 AM Jan 01, 2020
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर