corona virus btn
corona virus btn
Loading

এই জেলায় নিষিদ্ধ হল টোটো, একের পর এক টোটো ভেঙে গুঁড়িয়ে দেওয়া হল

এই জেলায় নিষিদ্ধ হল টোটো, একের পর এক টোটো ভেঙে গুঁড়িয়ে দেওয়া হল

এদিন প্রথম ধাপে প্রায় ১০০ টি টোটো ভাঙার কাজ হয়। আগামী ফেব্রুয়ারি মাস থেকে মালদহ শহরে শুধুমাত্র ই-রিক্সা চলতে পারবে।

  • Share this:

Sebak DebSarma

#মালদহ: মালদহে আর চলবে না টোটো। মালদহের রাস্তায় চলা সমস্ত টোটো ভেঙে ফেলার সিদ্ধান্ত নিল প্রশাসন । সোমবার থেকে জেসিপি দিয়ে পুরনো টোটোগুলি ভেঙে গুঁড়িয়ে দেওয়ার কাজ শুরু করেছে প্রশাসন। এদিন প্রথম ধাপে প্রায় ১০০ টি টোটো ভাঙার কাজ হয়। আগামী ফেব্রুয়ারি মাস থেকে মালদহ শহরে শুধুমাত্র  ই-রিক্সা চলতে পারবে। ইতিমধ্যে এ বিষয়ে নির্দেশিকা জারি করেছে জেলা প্রশাসন। তার আগে যে সমস্ত পুরনো টোটো চালক প্রশাসনের কাছে নিজেদের চালু টোটো জমা দিবেন, তাঁরাই  ই-রিক্সা কেনার জন্য কুড়ি হাজার টাকা ছাড় পাবেন। প্রশাসনের এই ঘোষণায় অনেক টোটো চালক স্বতঃস্ফূর্ত টোটো জমা দিচ্ছেন। সেইসব  টোটোগুলি জেসিবি দিয়ে ভেঙে ফেলার কাজ শুরু করেছে প্রশাসন ।

4197_5e257f478ae0a_20_01_20_MALDA_TOTO_CRASH_PIC_7

একইসঙ্গে জানানো হয়েছে, যেসব টোটো চালক নিজের গাড়ি প্রশাসনের হাতে তুলে দেবেন না, তাঁদের  টোটোগুলি আটক করে ধাপে ধাপে ভেঙে ফেলা হবে। শুক্রবার সকাল  থেকে মালদহ জেলা শাসকের দপ্তর চত্বরে পুরনো টোটো ভাঙার কাজ শুরু হয় । হাজির ছিলেন মালদহের অতিরিক্ত জেলাশাসক এবং জেলা আঞ্চলিক পরিবহণ আধিকারিক । এদিন টোটো ভাঙার খবর ছড়িয়ে পড়তেই চাঞ্চল্য ছড়ায় শহর জুড়ে।  টোটো চালকরা  অনেকই  রাস্তায় টোটো চালানো বন্ধ করে দেন।টোটো ভাঙ্গা দেখতে প্রশাসনিক দপ্তর চত্বরে ভিড় করেন । তাঁদেরকে প্রশাসন জানিয়েছে, অবিলম্বে সমস্ত টোটো চালককে টোটোর পরিবর্তে ই -রিক্সা রাস্তায় নামাতে হবে।

4197_5e257f478ae0a_20_01_20_MALDA_TOTO_CRASH_PIC_1 এদিন অনেকেই টোটো ভাঙ্গার গোটা  পর্ব মোবাইল ক্যামেরায় বন্দি করে রাখেন । যেকোনো রকম গোলমাল ঠেকাতে মোতায়েন করা হয় পুলিশ বাহিনি। প্রশাসন জানিয়েছে, যাঁরা স্বেচ্ছায় প্রশাসনের কাছে এসে আগেই টোটো জমা দিবেন তাঁরাই ই-রিক্সা কেনার ক্ষেত্রে বাড়তি সুবিধা পাবেন। পয়লা ফেব্রুয়ারির পর থেকে  কোনো অবস্থাতেই শহরের রাস্তায় টোটো চলতে দেওয়া হবে না। প্রয়োজনে খুব দ্রুত শহরে বেআইনি টোটোর বিরুদ্ধে অভিযানে নামবে পুলিশ।

First published: January 20, 2020, 6:50 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर