গলায় খোল করতাল, কৃষ্ণপ্রেমে বিভোর হলেন কোন মন্ত্রী!

গলায় খোল করতাল, কৃষ্ণপ্রেমে বিভোর হলেন কোন মন্ত্রী!

সাদা পাজামা পাঞ্জাবির ওপর ঘিয়ে উত্তরীয়। গলায় ঝুলছে লাল শালুতে মোড়া করতাল।

  • Share this:

Saradindu Ghosh

#বর্ধমান: সাদা পাজামা পাঞ্জাবির ওপর ঘিয়ে উত্তরীয়। গলায় ঝুলছে লাল শালুতে মোড়া করতাল। খালি পায়ে হেঁটে চলেছেন নিতাই প্রেমে বিভোর মন্ত্রী! সঙ্গী সাথীদের নিয়ে নগর সংকীর্তনে বেরিয়েছেন তিনি। হরে কৃষ্ণ সুরে বিভোর হয়ে গৌরাঙ্গের ঢঙে নাচছেন দু-হাত তুলে। তা দেখে লোকে রব তুলছে হরি হরি। কোথায় ঘটল এই ঘটনা? নিতাই প্রেমে পাগল হলেন  রাজ্যের কোন মন্ত্রী!

খোল করতাল, খঞ্জনি বাজিয়ে নগর পরিক্রমা করলেন  রাজ্যের প্রবীণ মন্ত্রী স্বপন দেবনাথ। সঙ্গে ছিলেন তাঁর পারিষদেরাও। নিত্যানন্দ মহাপ্রভুর ছবি নিয়ে কৃষ্ণ নাম গাইতে গাইতে হাঁটল কীর্তনের দল। তার মধ্যমণি মন্ত্রীমশাই খোল বাজিয়েই চলেছেন। তিনি বললেন, "চৈতন্যদেব সাম্যের কথা বলতেন। ধর্মে ধর্মে সম্প্রীতির কথা বলতেন। মানুষের মানুষে প্রেমের কথা বলতেন। তাঁর সেই আদর্শকে ছড়িয়ে দিতেই এই উদ্যোগ।

নদিয়া জেলার নবদ্বীপে জন্মগ্রহণ করেছিলেন চৈতন্যদেব। পাশেই পূর্ব বর্ধমান জেলার পূর্বস্থলীর বিদ্যানগর গ্রামে তিনি ছোটবেলায় বিদ্যাচর্চা করেন। রবিবার সেই বিদ্যানগর গ্রাম থেকে নবদ্বীপে জন্মস্থান পর্যন্ত এই নগর সংকীর্তনের আয়োজন করা হয়। অন্যান্যদের সঙ্গে  প্রায় সাত কিলোমিটার রাস্তার পুরোটাই হাঁটেন স্বপন দেবনাথ।

বিরোধীদের কেউ কেউ বলছেন, রাজনীতি বড় বালাই। বরাবরই এই এলাকায় বিজেপির ভাল প্রভাব রয়েছে। ইদানিং 'জয় শ্রী রাম' ধ্বনি ভালই শোনা যাচ্ছে। সেজন্যই মন্ত্রী কৃষ্ণ নাম জপে এলাকাবাসীর মন জয় করতে চাইছেন। যদিও সে কথা মানতে নারাজ প্রানী সম্পদ বিকাশ মন্ত্রী স্বপন দেবনাথ। তিনি বলেন, এই উদ্যোগ প্রথম নয়। আগেও হয়েছে। শ্রীচৈতন্য সাম্যের কথা বলে গিয়েছেন। মানুষে মানুষে সম্প্রীতির কথা বলেছেন। সমাজের সকল স্তরের, সকল ধর্মের মানুষকে বুকে টেনে নিতেন তিনি। প্রেম বিলিয়েছেন। কৃষ্ণ প্রেমের কথা বলেছেন। আজ ধর্মের বিভেদ মাথাচাড়া দিয়েছে। সেই বিভেদ রুখতে চৈতন্যদেবের আদর্শ অনুসরণ করা প্রয়োজন। সে কথা মাথায় রেখেই এই উদ্যোগ।

First published: March 2, 2020, 4:24 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर