Petrol-Diesel Price Hike: পেট্রোল-ডিজেলের দাম লাগামহীন, গাড়ি ব্যবসায়ীদের ব্যবসা বন্ধের মুখে

ভাড়া গাড়ির ব্যবসা বন্ধের মুখে।

ভাড়া গাড়ির ব্যবসা বন্ধের মুখে।

  • Share this:

#কলকাতা:

যত বাড়ছে পেট্রোল ডিজেলের দাম, ততই সমাজের সর্বত্র প্রকট হচ্ছে তার প্রভাব। জ্বালানির দামের সঙ্গে সামঞ্জস্য না রাখতে পেরে অনিশ্চিত হয়ে পড়েছে ভাড়ার গাড়ির ব্যবসা। অনেক ব্যবসায়ী লাভের মুখ না দেখে ব্যবসা বন্ধ করে দিচ্ছেন। প্রতিদিন দেশ জুড়ে বাড়ছে পেট্রোল ডিজেলের দাম। শহর কলকাতায় ইতিমধ্যেই একশো ছাড়িয়ে গিয়েছে পেট্রোলের দাম। ডিজেলও নব্বই পেরিয়ে এগোচ্ছে সেঞ্চুরির দিকে। পেট্রোল পাম্প গুলিতে প্রায় মাছি তাড়ানোর অবস্থা।

রাজ্য সরকার করোনার বিধিনিষেধ শিথিল করে বেসরকারি বাস মালিকদের রাস্তায় বাস নামাতে বলেছে। কিন্ত জ্বালানির দাম মাত্রাতিরিক্ত হওয়ার জন্য সব বাস মালিক এখনও তাদের বাস রাস্তায় নামাননি। ফলে বাড়ি থেকে বেড়িয়ে যানবাহন না পেয়ে ভোগান্তির মুখে পড়ছেন সাধারণ মানুষ।

এই অবস্থার বহু মানুষের ভরসা হল ভাড়ার গাড়ি। পাড়ায় পাড়ায় থাকা 'রেন্ট এ কার' এজেন্সি গুলো থেকে গাড়ি ভাড়া নিয়েছেন অনেকেই। বিশেষ করে লকডাউনের দিন গুলোতে। যেমন বাঘা যতীনের অরণ্য রায়। তার তিন সহকর্মী মিলে একটা গাড়ি ভাড়া নিয়েছেন সল্টলেকে অফিসে আসার জন্য। কিন্তু যে এজেন্সিতে থেকে গাড়ি নিয়েছিলেন তারা জানিয়ে দিয়েছে আর পুরনো ভাড়ায় গাড়ি দেওয়া গাড়ি দেওয়া যাবে না। কারণ, পেট্রোল ডিজেলের দাম বেড়ে গেছে।

এ রকমই এক এজেন্সির মালিক বাপ্পা দাস বলেন, 'গতবারের লকডাউনের পর গাড়ির চাহিদা বেড়ে গিয়েছিল। এখন বহু মানুষ যাদের গাড়ি নেই তাঁরা বাড়ি থেকে বেরোলে গাড়ি ভাড়া করেন। বিশেষ করে বয়স্করা। কিন্তু তেলের যা দাম বেড়েছে তাতে আর পুরনো ভাড়ায় গাড়ি দেওয়া সম্ভব হচ্ছে না।'

বেক বাগানের এক গাড়ি এজেন্সির মালিক বলেন, 'আমরা তিনটি কোম্পানিতে মাসিক চুক্তিতে পুরো এক বছরের জন্য গাড়ি ভাড়া দিয়ে থাকি। কিন্তু এখন যা পেট্রোল ডিজেলের দাম বেড়েছে তাতে লোকসান শুরু হয়ে গেছে। ২০২২ মার্চ মাস পর্যন্ত আমাদের যুক্তি আছে। দাম না কমলে বুঝতে পারছি না ততদিন পর্যন্ত টানবো কি করে।'

Published by:Suman Majumder
First published: