মাইকে গান, তুমুল নাচতে নাচতে বৃদ্ধার মৃতদেহ শ্মশানে নিয়ে গেলেন সন্তান, নাতি-নাতনিরা

মাইকে গান, তুমুল নাচতে নাচতে বৃদ্ধার মৃতদেহ শ্মশানে নিয়ে গেলেন সন্তান, নাতি-নাতনিরা
  • Share this:

Supratim Das

#বীরভূম: শ্মশান যাত্রায় মাইক-বক্স বাজিয়ে গান, ফাটানো হল বাজি! পরিবারের দাবি, মৃতের বয়স ১২০ বছর। তাই তাঁদের কাছে এই মৃত্যু দুঃখের নয়, আনন্দের। তাই খোল করতাল নয়, রীতিমত মাইক বাজিয়ে, আত্মীয়-স্বজন ও পাড়া-প্রতিবেশীরা নাচ করতে করতে মৃতদেহকে নিয়ে গেল শ্মশান।

'উদ্ভট' এই ঘটনাটি ঘটেছে বীরভূমের দুবরাজপুরের ১৬ নং ওয়ার্ডের, দাসপাড়ায়। ওই ওয়ার্ডের বাসিন্দা ঝরুবালা দাসী দীর্ঘদিন অসুস্থ ছিলেন। ১২০ বছর বয়সে তাঁর মৃত্যু হয়, মৃতদেহ শ্মশানে নিয়ে যাওয়ার সময় মৃতদেহ বহনকারী গাড়ির সামনে খোল করতালের পাশাপাশি বাজতে থাকে মাইক ও বক্স। মৃতদেহ নিয়ে যাওয়ার সময় নাচতেও দেখা যায় আত্মীয়-স্বজন ও পাড়া-প্রতিবেশীদের। ফাটানো হলো বাজিও।

বৃদ্ধা সোমাবার রাতে হঠাৎ অসুস্থ হয়ে শেষ নিশ্বাস ত্যাগ করেন। দূরসম্পর্কের ৯০ জন নাতি নাতনি রয়েছে তাঁর । তাঁকে দাহ করার জন্য নিয়ে যাওয়া হয় বীরভূমেরই বক্রেশ্বর শ্মশানে। এই ঘটনা নিয়ে মৃতার এক ছেলে মাদল দাস জানান, মৃতার ৯০ জন নাতি নাতনি রয়েছে। সোমবার রাতে তার মায়ের মৃত্যুর পর সন্তান ও নাতি-নাতনিরা সিদ্ধান্ত নেন, বক্স বাজিয়ে অন্তিম ক্রিয়া সম্পন্ন করার। এরপর তাঁরা গাড়ি ও মাইক বক্স বাজিয়ে বক্রেশ্বরে যান শেষকৃত্ত সম্পন্ন করতে।

উল্লেখ্য, বৃদ্ধার ভোটার কার্ড ও আধার কার্ড থেকে জানা যাচ্ছে তাঁর বয়স ৪৫ বছর। কিন্তু তা মানতে রাজি নন আত্মীয়রা। তাঁদের বক্তব্য, আধার কার্ড ও ভোটার কার্ডে একটা বয়স দেওয়ার, সেই মতই দেওয়া হয়েছিল। কিন্তু বৃদ্ধার আসল বয়স ১২০। তবে বয়স যাইহোক, এইভাবে মৃতদেহ নিয়ে যাওয়া দেখে কেউ নাক সিঁটকেছেন কেউবা আবার হেসেছেন !

First published: 03:55:24 PM Dec 31, 2019
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर