Subhranshu Roy: বার্ষিক আয় ২০ লক্ষের বেশি, হাতে নগদও লক্ষে! মুকুল-পুত্র শুভ্রাংশুর স্থাবর-অস্থাবর সম্পত্তির পরিমাণ কত

Subhranshu Roy: বার্ষিক আয় ২০ লক্ষের বেশি, হাতে নগদও লক্ষে! মুকুল-পুত্র শুভ্রাংশুর স্থাবর-অস্থাবর সম্পত্তির পরিমাণ কত

মুকুল-পুত্র শুভ্রাংশুর স্থাবর-অস্থাবর সম্পত্তির পরিমাণ কত

২০১৯ এর লোকসভা নির্বাচনে বিজেপি জয়ী হওয়ার পরেই তৃণমূল (TMC) ছেড়ে বিজেপিতে যোগ দিয়েছিলেন শুভ্রাংশু। এবার তিনি বিজেপির (BJP) প্রার্থী।

  • Share this:

    #বীজপুর: ষষ্ঠ দফায় চার জেলার ৪৩ আসনে নির্বাচন (6th phase election)। এই দফায় বীজপুর থেকে লড়াই করছেন মুকুল রায়ের ছেলে শুভ্রাংশু রায় (Subhranshu Roy)। ২০১৯ এর লোকসভা নির্বাচনে বিজেপি জয়ী হওয়ার পরেই তৃণমূল (TMC) ছেড়ে বিজেপিতে যোগ দিয়েছিলেন শুভ্রাংশু। এবার তিনি বিজেপির (BJP) প্রার্থী। নির্বাচন কমিশনের কাছে মনোনয়ন জমা দিয়েছেন তিনি। হলফনামা থেকে জানা যায় শুভ্রাংশুর স্থাবর অস্থাবর সম্পত্তির পরিমাণ।

    ২০১৯-২০ এই অর্থবর্ষে শুভ্রাংশুর বার্ষিক আয় ২০ লক্ষ ৮৮ হাজার ৩৩৩ টাকা। ২০১৮-১৯ এ তাঁর বার্ষিক আয় ১০ লক্ষ ৭৪ হাজার ১১৪ টাকা। শুভ্রাংশুর স্ত্রী শর্মিষ্ঠা ভৌমিক রায়ের বার্ষিক আয়ে ২০১৯-২০ তে হল ৯,৯৬,২৫২ টাকা। মনোনয়ন জমা দেওয়ার সমেয় শুভ্রাংশুর কাছে নগদ ১,৭৩,৮২৭ টাকা। তাঁর স্ত্রীর কাছে ছিল ১,১৪,৫৩২ টাকা।

    ৭টি ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্টে টাকা রয়েছে শুভ্রাংশুর। তাঁর কাছে রয়েছে ৭৪.২৯৫ গ্রাম সোনা যার বাজার মূল্য ৩,৪৩,৯৮৬ টাকা। রুপো রয়েছে ১৬০ গ্রাম যার বাজার মূল্য ১০,২২৪ টাকা। অন্যান্য কিছু রত্ন রয়েছে যার বাজার মূল্য ৫,৯০,০০০ টাকা। অন্যদিকে তাঁর স্ত্রীর কাছেও রয়েছে ১৩,২৭,৫১৪ টাকার সোনা, ৬৩,৯০০ টাকার রুপো ও ৭,৫০,০০০ টাকার অন্যান্য রত্ন।

    শুভ্রাংশুর কাছে মোট অস্থাবর সম্পত্তির পরিমাণ ৭৬,৪৫,৪৪২ টাকা। তাঁর স্ত্রীর অস্থাবর সম্পত্তি ৭৫,৯৮,৬০৭ টাকা। স্থাবর সম্পত্তি বলতে হালিশহর ও কাঁচড়াপাড় অঞ্চলে তিনটি জমি রয়েছে শুভ্রাংশুর। এই জমিগুলির বর্তমান বাজার মূল্য যথাক্রমে ৯,৮০,০০০ টাকা, ২৬,৯০,০০০ টাকা, এবং ২৩,২০,০০০ টাকা। এছাড়া কলকাতায় একটি ৩৮০ বর্গফুটের দোকান ঘর রয়েছে যার বর্তমান বাজার মূল্য ২০ লক্ষ টাকা। নিজের নামে কোনও বাড়ি বা ফ্ল্যাট নেই। জমি ও দোকান মিলিয়ে তাঁর কাছে স্থাবর সম্পত্তি ৭৯,৯০,০০০ টাকা ও তাঁর স্ত্রী শর্মিষ্ঠার কাছে রয়েছে ৪২,৫০,০০০ টাকা। এছাড়া ২৯ লক্ষ টাকার একটি পার্সোনাল লোন রয়েছে তাঁর নামে।

    Published by:Swaralipi Dasgupta
    First published: