পুরোদমে শুরু ভোটের প্রস্তুতি! নির্বাচনে কর্মীদের প্রশিক্ষণ দেওয়ার কাজ চলছে

পুরোদমে শুরু ভোটের প্রস্তুতি! নির্বাচনে কর্মীদের প্রশিক্ষণ দেওয়ার কাজ চলছে
জেলা প্রশাসনের আধিকারিকরা জানিয়েছেন, নির্বাচন প্রক্রিয়া সুষ্ঠুভাবে সম্পন্ন করতে সবরকম তৎপরতা চালাচ্ছে জেলা নির্বাচন দফতর।

জেলা প্রশাসনের আধিকারিকরা জানিয়েছেন, নির্বাচন প্রক্রিয়া সুষ্ঠুভাবে সম্পন্ন করতে সবরকম তৎপরতা চালাচ্ছে জেলা নির্বাচন দফতর।

  • Share this:

#বর্ধমান: বিধানসভা নির্বাচনের নির্ঘন্ট ঘোষণা এখনও বাকি। যেকোনও দিন ভোটের দিনক্ষণ ঘোষণা করবে নির্বাচন কমিশন। অন্যদিকে সুষ্ঠুভাবে নির্বাচন সম্পূর্ন করতে জোর তৎপরতা শুরু করেছে জেলা প্রশাসন। ইতিমধ্যেই নির্বাচন কর্মীদের তালিকা তৈরি হয়েছে । ভোটগ্রহণ পর্বে কে কোন দায়িত্ব পালন করবেন তা নির্বাচন কর্মীদের জানিয়ে দেওয়া হয়েছে। পূর্ব বর্ধমান জেলায় বৃহস্পতিবার থেকে শুরু হয়ে গেল সেই সব কর্মীদের নির্বাচনের প্রশিক্ষণ দেওয়ার কাজ।

জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, এদিন থেকে শুরু হওয়া প্রথম পর্যায়ের প্রশিক্ষণ চলবে ২২ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত। এরপর ২৭ ফেব্রুয়ারি এবং ১ ও ২ মার্চ ইভিএম ও ভিভিপাট মেশিন চালানোর প্রশিক্ষণ দেওয়া হবে। জেলা প্রশাসনের এক আধিকারিক জানান, ভোট কর্মীদের অনেকেরই আগে ভোট গ্রহণের অভিজ্ঞতা রয়েছে। আবার অনেকে রয়েছেন যাঁরা এবার প্রথম ভোট কর্মীর দায়িত্ব পালন করবেন। নির্বাচন প্রক্রিয়া সুষ্ঠুভাবে সম্পন্ন করতে সকলকেই এই প্রশিক্ষণ দেওয়ার ব্যবস্থা করা হয়েছে।


আসন্ন বিধানসভা নির্বাচনে পূর্ব বর্ধমান জেলার বিভিন্ন বুথের জন্য নিযুক্ত নির্বাচন কর্মীদের প্রশিক্ষণ দেওয়া হচ্ছে বর্ধমানের পাঁচটি স্কুলে। সকাল সকাল বর্ধমান মিউনিসিপাল বয়েজ স্কুল, বর্ধমান বিদ্যার্থী ভবন গার্লস স্কুল, বর্ধমান বিদ্যার্থী বয়েজ স্কুল, বর্ধমান টাউন স্কুল এবং শিবকুমার হরিজন বিদ্যালয় পৌঁছে যান নির্বাচন কর্মীরা। বর্ধমান বিদ্যার্থী ভবন গার্লস স্কুলে পূর্ব বর্ধমানের জেলাশাসক মহম্মদ এনামুর রহমান প্রশিক্ষণের কাজ পর্যবেক্ষণ করেন। জেলা প্রশাসনের অন্যান্য আধিকারিকরা স্কুলগুলিতে ঘুরে ঘুরে প্রশিক্ষণ কাজ পরিদর্শন করেন।

জেলা প্রশাসনের আধিকারিকরা জানিয়েছেন, নির্বাচন প্রক্রিয়া সুষ্ঠুভাবে সম্পন্ন করতে সবরকম তৎপরতা চালাচ্ছে জেলা নির্বাচন দফতর। এবার করোনা পরিস্থিতির কারণে বুথের সংখ্যা অনেক বেড়েছে। তার সঙ্গে পাল্লা দিয়ে বাড়াতে হয়েছে ভোট কর্মী সংখ্যা। এবার উল্লেখযোগ্যভাবে মহিলা ভোট কর্মীদের সংখ্যা অন্যান্যবারের তুলনায় অনেক বেশি। কারণ এবার জেলায় এক-চতুর্থাংশ মহিলা পরিচালিত বুথ থাকছে। মহিলাদের ভোট গ্রহণের ক্ষেত্রে যোগাযোগ ব্যবস্থা ও ভোটগ্রহণ কেন্দ্রের পরিকাঠামোর বিষয়টি বিশেষভাবে মাথায় রাখা হয়েছে। করোনা পরিস্থিতিতে ভোট গ্রহণের ক্ষেত্রে কী কী করনীয় সে ব্যাপারেও ভোট কর্মীদের অবহিত করা হচ্ছে।

Published by:Pooja Basu
First published: