corona virus btn
corona virus btn
Loading

গা ছাড়া ভাব বাসিন্দাদের! সচেতন করতে মাস্ক বিতরণ পুলিশের

গা ছাড়া ভাব বাসিন্দাদের! সচেতন করতে মাস্ক বিতরণ পুলিশের

বাইরে বেরোলে করোনার সংক্রমণ হওয়ার আশঙ্কা থাকছে ঠিকই, কিন্তু তা নিয়ে বিশেষ বিচলিত নন বেশিরভাগ বাসিন্দাই।আর এই মানসিকতাই সংক্রমণ ব্যাপকভাবে ছড়িয়ে পড়ার পক্ষে যথেষ্ট বলেই মনে করছেন বিশেষজ্ঞরা।

  • Share this:

#বর্ধমান: করোনা এখন গা সওয়া হয়ে গেছে অনেকেরই। করোনার সেই আতঙ্ক এখন অনেকটাই ফিকে। বাইরে বেরোলে করোনার সংক্রমণ হওয়ার আশঙ্কা থাকছে ঠিকই, কিন্তু তা নিয়ে বিশেষ বিচলিত নন বেশিরভাগ বাসিন্দাই।আর এই মানসিকতাই সংক্রমণ ব্যাপকভাবে ছড়িয়ে পড়ার পক্ষে যথেষ্ট বলেই মনে করছেন বিশেষজ্ঞরা। তাঁরা বলছেন, যেভাবে এখনও জেলা জুড়ে সংক্রমণ ছড়িয়ে পড়ছে তাতে সাবধান থাকা বিশেষ জরুরি। তাই বাসিন্দাদের সচেতন করতে মাস্ক বিতরণ করল পূর্ব বর্ধমান জেলার ভাতার থানার পুলিশ।

মঙ্গলবার ভাতার বাজারে, নাসিগ্রাম মোড়ে করোনা ভাইরাসের সচেতনতা মূলক প্রচার চালালো ভাতার থানার পুলিশ। বাসিন্দাদের সচেতন করতে প্রায় এক হাজার মাস্ক বিতরণ করেন ভাতার থানার পুলিশের কর্মী অফিসাররা।যে সব গাড়ির চালক মাস্ক পরেননি তাদের মাস্ক পরিয়ে দেওয়া হয় ভাতার থানার পক্ষ থেকে। পাশাপাশি পথ চলতি বাসিন্দাদেরও সচেতন করা হয়। পুলিশের এই উদ্যোগে খুশি এলাকার বাসিন্দারা।

ভাতার থানা এলাকায় করোনার সংক্রমণ সেভাবে বিস্তার লাভ করেনি। একদিনে প্রায় চল্লিশ জন বাসিন্দা এই ব্লকে করোনাণ আক্রান্ত হলেও সংক্রমণ দ্রুত ঠেকানো গিয়েছে। জেলার অন্যান্য ব্লকগুলির তুলনায় ভাতারে করোনার সংক্রমণ খুবই কম। আর তাতেই মাস্ক পরতে ভুলছেন অনেকেই। মাস্ক বা ফেস কভার ছাড়াই বাসিন্দারা বাজারে ঘুরছেন সকাল সন্ধে। সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখার কোনও তাগিদ দেখা যাচ্ছে না। আর তাতেই উদ্বিগ্ন প্রশাসন। জেলা স্বাস্থ্য দপ্তরের আধিকারিকরা বলছেন, এই জেলায় আক্রান্তদের মধ্যে বেশিরভাগই উপসর্গহীন। তাই কার মাধ্যমে সংক্রমণ ছড়িয়ে পড়বে তা বোঝার উপায় নেই। তাই এই ব্লকে যাতে করোনার সংক্রমণ ছড়িয়ে পড়তে না পারে তা নিশ্চিত করতে সাবধানতা অবলম্বন করতেই হবে।

 ভাতার থানার পুলিশ  অফিসাররা জানান, মাস্কে মুখ ঢাকা অভ্যাসে পরিণত করা প্রয়োজন। কিন্তু সেই সচেতনতার অভাব দেখা যাচ্ছে। তাই বাজার এলাকাগুলিতে সচেতনতামূলক প্রচার চালানোর পাশাপাশি ব্যাপকভাবে মাস্ক বিতরণ করা হল পথচলতি বাসিন্দাদের মধ্যে। সেই সঙ্গে বাজারে যাতে সামাজিক দূরত্ব বজায় থাকে তা নিশ্চিত করতে ধারাবাহিকভাবে নজরদারি চালানো হবে।

Published by: Dolon Chattopadhyay
First published: September 8, 2020, 4:16 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर