Nandigram Case: নন্দীগ্রাম মামলার বেঞ্চ বদল, কৌশিক চন্দ নয়, এই বিচারপতির এজলাসে হবে শুনানি!

নন্দীগ্রাম মামলা শুনানি

আগামী কয়েকদিনের মধ্যে বিচারপতি শম্পা সরকারের বেঞ্চে এই মামলার (Nandigram case) শুনানি হবে।

  • Share this:

    #কলকাতা : নন্দীগ্রাম মামলার (Nandigram Case) বেঞ্চ বদল করা হল। মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের আবেদন মেনে আগেই এই মামলা থেকে সরে দাঁড়িয়েছিলেন হাই কোর্টের ভারপ্রাপ্ত প্রধান বিচারপতি কৌশিক চন্দ (Kaushik Chanda)। এবার আগামী কয়েকদিনের মধ্যে বিচারপতি শম্পা সরকারের বেঞ্চে এই মামলার (Nandigram case) শুনানি হবে। সূত্রের খবর কলকাতা হাই কোর্টের (High Court) বিচারপতি শম্পা সরকারের সিঙ্গল বেঞ্চে এই মামলার শুনানি হবে।

    কলকাতা হাই কোর্টের মাস্টার অফ রস্টার হলেন আদালতের প্রধান বিচারপতি। অর্থাৎ তিনিই ঠিক করেন কোন বিচারপতি কোন মামলার শুনানি করবেন। সেই মতো মুখ্যমন্ত্রীর নন্দীগ্রাম মামলার বেঞ্চ বদল করা হল সোমবার। সূত্রের খবর, চলতি সপ্তাহেই কলকাতা হাইকোর্টের নয়া বেঞ্চে নন্দীগ্রাম মামলার শুনানি হতে পারে।

    গত সপ্তাহের বুধবার নন্দীগ্রাম মামলা সরে দাঁড়ান বিচারপতি চন্দ। সেইসঙ্গে বিচারব্যবস্থাকে কলুষিত করার দায়ে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে পাঁচ লাখ টাকা জরিমানা ধার্য করেন। যে টাকা রাজ্য বার কাউন্সিলকে দেওয়ার নির্দেশ দেওয়া হয়। পরবর্তীতে তা ব্যবহার করা হবে করোনভাইরাসের চিকিৎসায়। তবে ইতিমধ্যে মুখ্যমন্ত্রীর আইনজীবী জানিয়েছেন, সেই জরিমানার নির্দেশকে চ্যালেঞ্জ করা হবে।

    প্রসঙ্গত, রাজ্যে বিধানসভা ভোটে গণনার শুরু থেকে নন্দীগ্রামে এগিয়ে ছিলেন নন্দীগ্রামের বিধায়ক শুভেন্দু অধিকারী। পরে কয়েকটি রাউন্ডে এগিয়ে যান মমতাও। শেষের দিকে রীতিমতো হাড্ডাহাড্ডি টক্কর হয়। ষোড়শ রাউন্ড পর্যন্ত এগিয়ে ছিলেন মমতা। প্রাথমিকভাবে সংবাদসংস্থা এএনআই জানায়, ১,২০০ ভোট জিতেছেন মমতা। কিন্তু পরে বিজেপির তরফে দাবি করা হয়, শুভেন্দু জিতেছেন। তা নিয়ে চূড়ান্ত ধোঁয়াশা তৈরি হয়। কয়েকটি মহল থেকে দাবি করা হয়, ১,৯৫৩ ভোটে নন্দীগ্রাম থেকে জিতেছেন শুভেন্দু। মধ্যরাতের কাছাকাছি নির্বাচন কমিশনের তরফে আনুষ্ঠানিকভাবে জানানো হয়, নন্দীগ্রামে পরাজিত হয়েছেন মমতা। তারপরই নন্দীগ্রামে পুনর্গণনার আর্জি জানায় তৃণমূল কংগ্রেস। যদিও কারচুপির অভিযোগ উড়িয়ে দেয় কমিশন।

    কিন্তু সরকার গঠনের পরেই নন্দীগ্রামে পুনর্গণনার দাবি তুলে হাইকোর্টে আবেদন করেন খোদ মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। সেই মামলা যায় বিচারপতি চন্দের বেঞ্চে। কিন্তু আইনজীবী থাকাকালীন বিজেপির হয়ে একাধিক মামলা লড়ায় বিচারপতি চন্দের বেঞ্চ থেকে মামলা সরানোর আর্জি জানিয়েছিলেন মমতা। সেই আর্জি অবশ্য ধোপে টেকেনি। বিচারপতি চন্দের বেঞ্চেই মামলা রেখে দেওয়া হয়। পরে নিজে থেকেই মামলা থেকে সরে যান বিচারপতি চন্দ।

    Published by:Sanjukta Sarkar
    First published: