• Home
  • »
  • News
  • »
  • south-bengal
  • »
  • ভোট কবে ঠিক নেই, টিকিট কাজিয়ায় সরগরম বর্ধমান

ভোট কবে ঠিক নেই, টিকিট কাজিয়ায় সরগরম বর্ধমান

দেড় বছর আগেই শেষ হয়ে গিয়েছিল বর্ধমান পুরসভায় তৃনমূল কংগ্রেস পরিচালিত বোর্ডের মেয়াদ

দেড় বছর আগেই শেষ হয়ে গিয়েছিল বর্ধমান পুরসভায় তৃনমূল কংগ্রেস পরিচালিত বোর্ডের মেয়াদ

দেড় বছর আগেই শেষ হয়ে গিয়েছিল বর্ধমান পুরসভায় তৃনমূল কংগ্রেস পরিচালিত বোর্ডের মেয়াদ

  • Share this:

#বর্ধমান: কবে ভোট তার এখনও কোনও ঠিক নেই। ভোট নির্ঘন্ট চূড়ান্ত হওয়ার আগেই কোন ওয়ার্ডে কে প্রার্থী হবেন তা নিয়ে জোর চর্চা শুরু হয়ে গিয়েছে বর্ধমানে। তৃনমূল কংগ্রেসের অনেক নেতা কর্মীই টিকিট পেতে কোমর বেঁধে রাস্তায় নেমেও পড়েছেন। টিকিট পাওয়া না পাওয়ার সম্ভাবনাকে কেন্দ্র করে এলাকায় এলাকায় শুরু হয়েছে জোর কাজিয়াও। দেড় বছর আগেই শেষ হয়ে গিয়েছিল বর্ধমান পুরসভায় তৃনমূল কংগ্রেস পরিচালিত বোর্ডের মেয়াদ। নির্বাচন না হওয়ায় প্রশাসক নিয়োগ করা হয়। সেই প্রশাসকের নেতৃত্বে বর্ধমানে পুর পরিষেবা সামাল দেওয়া হচ্ছে। রাজ্যে পুরভোটের সম্ভাবনা দেখা দিতেই নড়েচড়ে বসেছেন শাসক দলের নেতা কর্মীরা। দেড় বছর আগে প্রাক্তন কাউন্সিলরদের অনেকেই ফের টিকিট পেতে আসরে নেমে পড়েছেন। তাদের আটকাতে আবার সক্রিয় দলেরই বিরুদ্ধ গোষ্ঠী। ১০ নম্বর ওয়ার্ডের প্রাক্তন কাউন্সিলর প্রবীন তৃণমূল নেতা পরেশচন্দ্র সরকার দলীয় কর্মসূচিতে পথে নেমেছেন। তা দেখে আসরে নেমে পড়েছেন এলাকায় পরেশবাবুর অনুগামী হিসেবে পরিচিতরাই। তাঁদের অভিযোগ, উনি কাউন্সিলর থাকাকালীন এলাকায় কিছুই উন্নয়ন হয়নি। বরং দুর্নীতি হয়েছে অনেক বেশি। সেসব দেখে শুনে ওই প্রাক্তন কাউন্সিলর বলছেন, লোকসভা ভোটে দলকে ডোবানোর পর এক অশিক্ষিত নেতা ফের আসরে নেমেছে। তার উস্কানিতেই এইসব ঘটনা ঘটছে। দল সব নজর রাখছে। পূর্ব বর্ধমান জেলা তৃনমূল কংগ্রেস সূত্রে জানা গিয়েছে, এপ্রিল মাসের শেষ সপ্তাহে কিংবা রমজান মাসের পর অর্থাৎ মে মাসের শেষ সপ্তাহে বর্ধমানে পুরসভা নির্বাচন হতে পারে। বিজ্ঞপ্তি জারির পর পরই প্রার্থী ঘোষনা হবে। আপাতত প্রাথমিক তালিকা তৈরি করে তা অনুমোদনের জন্য রাজ্য নেতৃত্বের কাছে পাঠানো হবে। কে কোন ওয়ার্ডে প্রার্থী হবে তার চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেবে দলের ঊর্ধ্বতন নেতৃত্ব। তাই কে প্রার্থী হবেন তা না ভেবে দলের নির্দেশ মেনে দলীয় কর্মসূচি সফল করার কথা ভাবা উচিত শহরের নেতা কর্মীদের।

Saradindu Ghosh

Published by:Ananya Chakraborty
First published: