হলদিয়া বন্দর সর্বাধিনায়কের নামে করার দাবিতে ফের সোচ্চার মন্ত্রী শুভেন্দু অধিকারী

হলদিয়া বন্দর সর্বাধিনায়কের নামে করার দাবিতে ফের সোচ্চার মন্ত্রী শুভেন্দু অধিকারী

১৯৫২ সাল থেকে ১৯৭৭ সাল পর্যন্ত টানা ২৫ বছরের সাংসদ সতীশবাবুর উদ্যোগেই এক সময় হলদিয়া বন্দর গড়ে উঠেছিল।

  • Share this:

Sujit Bhowmik

#হলদিয়া: দেশকে স্বাধীন করার লক্ষ্য নিয়েই পরাধীন ভারতবর্ষে বিপ্লবীরা গড়ে তুলেছিলেন তাম্রলিপ্ত জাতীয় সরকার। সেই স্বাধীন সরকারের প্রথম সর্বাধিনায়ক যিনি ছিলেন, প্রয়াত সেই স্বাধীনতা সংগ্রামী সতীশ চন্দ্র সামন্তের আজ ১২০ তম জন্মদিন। ১৯৫২ সাল থেকে ১৯৭৭ সাল পর্যন্ত টানা ২৫ বছরের সাংসদ সতীশবাবুর উদ্যোগেই এক সময় হলদিয়া বন্দর গড়ে উঠেছিল। আজ তাঁর জন্মদিনে তাঁর নামে হলদিয়া বন্দরের নামকরণ করার দাবি আবারও জানালেন রাজ্যের মন্ত্রী ও হলদিয়া উন্নয়ন পর্ষদের চেয়ারম্যান শুভেন্দু অধিকারী।

আজ তাঁর জন্মদিন উপলক্ষে হলদিয়া জুড়ে নানা কর্মসূচির আয়োজন করেছিলেন মন্ত্রী নিজেই। সারাদিন ধরেই চলছে নানা অনুষ্ঠান। হলদিয়ায় এমনই এক অনুষ্ঠানে যোগ দিতে এসে তিনি বলেন, ‘দেশকে স্বাধীন করার ব্রত নিয়েছিলেন তিনি। আবার স্বাধীন ভারতে হলদিয়ার শিল্প উন্নয়নে বিশেষ ভূমিকা নিতে ভিন রাজ্যের দাবিকে হঠিয়ে দিয়ে হলদিয়া বন্দর স্থাপনও করেছিলেন সতীশচন্দ্র সামন্ত। সেই সতীশবাবুকে সম্মান দিতে তাঁর নামেই হলদিয়া বন্দরের নামকরণ করার দাবি এদিন আরও একবার তোলেন তিনি। তমলুক লোকসভার প্রথম সাংসদ, হলদিয়া বন্দরের রূপকার। তাঁর কর্মকাণ্ড সকলের মধ্য ছড়িয়ে দেওয়ার জন্য এদিন হলদিয়া উন্নয়ন পর্ষদ, হলদিয়া পুরসভা-সহ নানা স্বেচ্ছাসেবী সংস্থা দিনটিকে উদযাপন করে।

IMG-20191215-WA0053

এদিন হাতিবেড়িয়ায় সতীশ চন্দ্র সামন্ত পার্ক, সতীশ চন্দ্র সামন্ত নামাঙ্কিত ট্রেড সেন্ট্রারে ও হলদিয়া পুরসভার নজরুল মঞ্চে এলাকার দুঃস্থ মানুষের হাতে শীতবস্ত্র, শ্রবণ যন্ত্র, দিব্যাঙ্গদের হুইলচেয়ার, মহিলাদের স্বনির্ভর করার জন্য এলাকার ৩৫০ মহিলার হাতে সেলাই মেশিন, বিভিন্ন স্কুল প্রতিষ্ঠানের উন্নয়ন খাতে মোট ৬০ লক্ষ টাকা এবং এলাকার বিভিন্ন সেচ্ছাসেবী সংস্থার হাতে ১১ টি এম্বুলেন্স প্রদান করা হয়। অনুষ্ঠানে মন্ত্রী শুভেন্দু অধিকারী ছাড়াও উপস্থিত ছিলেন হলদিয়া পুরসভার চেয়ারম্যান শ্যামল আদক-সহ বিভিন্ন শিল্প সংস্থার আধিকারিকগণ। আগামীদিন সতীশ চন্দ্র সামন্তের কর্মকাণ্ড সকলের সামনে ছড়িয়ে দিতে হবে বলে জানান মন্ত্রী।

First published: December 15, 2019, 7:08 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर