মাত্রাছাড়া শব্দদূষণ গঙ্গার দু’পাড়েই, শব্দদূষণে জব্দ কলকাতা-হাওড়া

মাত্রাছাড়া শব্দদূষণ গঙ্গার দু’পাড়েই, শব্দদূষণে জব্দ কলকাতা-হাওড়া
Representative Image
  • Share this:

#হাওড়া: ডিজে বক্স-সহ সব ধরনের সাউন্ড সিস্টেমের যথেচ্ছ ব্যবহার নিয়ন্ত্রণ করতে হবে। মাইকে বাধ্যতামূলক করতে হবে সাউন্ড লিমিটার। গাড়ির হর্ন, জেনারেটরের আওয়াজেও রাশ টানার ব্যবস্থা করতে হবে। কলকাতা ও হাওড়ায় শব্দদূষণ মোকাবিলায় একগুচ্ছ নির্দেশিকা জারি করেছে জাতীয় পরিবেশ আদালত।

শুধু বায়ুদূষণ নয়। কলকাতা ও হাওড়ার মতো শহরে মাত্রাছাড়া শব্দদূষণও। গঙ্গার দু’পারের দুই শহরের শব্দদানব হার মানাবে দিল্লিকেও। অথচ শব্দকে পুরোপুরি জব্দ করতে পারেনি রাজ্য দূষণ নিয়ন্ত্রণ পর্ষদ। এই পরিস্থিতিতে রাজধানীর ধাঁচে কলকাতা-হাওড়ায় শব্দদূষণ মোকাবিলায়, একাধিক নির্দেশিকা জারি করে জাতীয় পরিবেশ আদালত। পরিবেশকর্মী সুভাষ দত্তের করা মামলার প্রেক্ষিতে , তেরোই নভেম্বর নির্দেশিকা জারি করে বিচারপতি এস পি ওয়াংডির বেঞ্চ।

- শব্দ দূষণ নিয়ে অভিযোগ জানাতে একটি নির্দিষ্ট ওয়েবসাইট তৈরি করতে হবে

- ওয়েবসাইটে শব্দ দূষণ রুখতে চলবে প্রচারও

- চালু করতে হবে ২৪ ঘণ্টার হেল্পলাইন

- ফোন কল, এসএমএস, ই-মেলের মাধ্যমে শব্দ দূষণ সংক্রান্ত অভিযোগ জানানোর ব্যবস্থা রাখতে হবে

ধর্মীয় অনুষ্ঠান হোক বা রাজনৈতিক কর্মসূচি। তারস্বরে ডিজে বক্স বাজানো এখন যেন ফ্যাশনে পরিণত হয়েছে। নো-হর্ন জোনে জোরে জোরে হর্ন বাজানোও রোজকারের সমস্যা। শব্দদূষণ রুখতে এর গোড়াতেই সমাধান খুঁজছে পরিবেশ আদালত।

- পাবলিক অ্যাড্রেস সাউন্ড সিস্টেম, হর্ন, জেনারেটর -সহ বিভিন্ন শব্দের উৎস চিহ্নিত করে তা নিয়ন্ত্রণ করতে হবে

- পাবলিক অ্যাড্রেস সাউন্ড সিস্টেমে বাধ্যতামূলক করতে হবে সাউন্ড লিমিটার

- শব্দ দূষণ রুখতে নেওয়া পদক্ষেপ জানিয়ে রিপোর্ট দেবে দূষণ নিয়ন্ত্রণ পর্ষদ

- ৩ মাস অন্তর গ্রিন ট্রাইবুনালকে রিপোর্ট দেবে দূষণ নিয়ন্ত্রণ পর্ষদ

শব্দদূষণ সক্রান্ত বিভিন্ন অভিযোগ, নজরদারি ও প্রয়োজনীয় পদক্ষেপের জন্য ডেপুটি কমিশনার বা এসপি পদমর্যাদার একজন আইপিএস অফিসার নিয়োগ করতে হবে। আইপিএস মনোনীত করার দায়িত্বে থাকবেন মুখ্যসচিব ও রাজ্য পুলিশের ডিজি। তাঁর মনোনীত আইপিএস অফিসার প্রতি সপ্তাহে শব্দ দূষণ পরিস্থিতি পর্যালোচনা করে ব্যবস্থা নেবেন।

First published: 03:26:32 PM Nov 16, 2019
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर