corona virus btn
corona virus btn
Loading

চালু হয়নি ট্রেন, দূরের জেলা থেকে কর্মীদের আনতে সরকারি বাসের ব্যবস্থা করল হাইকোর্ট

চালু হয়নি ট্রেন, দূরের জেলা থেকে কর্মীদের আনতে সরকারি বাসের ব্যবস্থা করল হাইকোর্ট

পুরোদমে খুলে গেল কর্মস্থল, অথচ গণ পরিবহণের বড় ভরসা ট্রেন এখনও চালু হয়নি, কর্মচারীদের কথা ভেবে উদ্যোগ নিল কলকাতা হাইকোর্ট

  • Share this:

#বর্ধমান: কিভাবে কলকাতা পৌঁছবেন তা ভেবে উঠতে পারছিলেন না হাইকোর্টের কর্মীরা। স্বাভাবিক কাজকর্ম চালু করার জন্য সব কর্মীদের উপস্থিতির নির্দেশ জারি হয়েছে। তাই যাতায়াত নিয়ে দুশ্চিন্তায় ছিলেন পূর্ব বর্ধমান, হুগলি থেকে যাতায়াত করা কর্মীরা। লোকাল ট্রেন চলাচল শুরু হয়নি। বাস চলাচল অনিয়মিত। সেই সমস্যার কথা চিন্তা করে কর্মীদের জন্য সরকারি বাসের ব্যবস্থা করল হাইকোর্ট। কর্তৃপক্ষের এই ব্যবস্থাপনায় স্বস্তির নিঃশ্বাস ফেলেছেন দূরবর্তী এলাকা থেকে যাতায়াত করা হাইকোর্টের কর্মীরা।

হাইকোর্টের কর্মীদের নিয়ে বর্ধমানের নবাবহাট বাসস্ট্যান্ড থেকে যাতায়াত শুরু করলো দুটি সরকারি বাস। সকাল সাতটায় নবাবহাট বাসস্ট্যান্ড থেকে বাসদুটি রওনা দিয়েছে। একটি বাস বর্ধমান থেকে শক্তিগড়, গুড়াপ, কামারকুণ্ডু, বারুইপাড়া, ডানকুনি, বালি, বেলুড়, হাওড়া হয়ে হাইকোর্ট যাচ্ছে। অন্য বাসটি বর্ধমান থেকে মেমারি, বৈঁচি, পান্ডুয়া, হয়ে মগরা ব্যান্ডেল, চুঁচুড়া,  দিল্লি রোড ধরে দ্বিতীয় হুগলি সেতু পার হয়ে হাইকোর্টে যাবে। ছুটির পর সেই পথ ধরেই কর্মীদের নিয়ে বর্ধমানে  ফিরবে বাসগুলি। এদিন সকাল সকাল বাসস্ট্যান্ডে আসেন হাইকোর্টের কর্মীরা। নির্দিষ্ট সময়ের কিছু আগেই স্ট্যান্ডে ঢোকে সরকারি বাস দুটি।

হাইকোর্টের কর্মীরা বললেন, সাধারণত লোকাল ট্রেনেই যাতায়াত করি। এখন লোকাল ট্রেন চলছে না। পর্যাপ্ত বাসও নেই। হাইকোর্ট সরকারি বাসের ব্যবস্থা করায় সুবিধা হল। তবে এই বাসগুলি  ঘুরপথে দেওয়া হয়েছে। তাতে সময় অনেক বেশি লাগবে। তবুও যাতায়াতের বাস মেলায় খুশি তাঁরা।এদিন নবাবহাট বাসস্ট্যান্ড থেকে হাতে গোনা যাত্রী নিয়ে যাত্রা শুরু করল বাসদুটি। পথে অনেকেই সেই বাসে উঠবেন বলে জানিয়েছেন চালকরা।

বাসের সিটে বসা হাইকোর্টের কর্মীরা জানান, সোমবার রাত আটটার পর বাস দেওয়ার কথা জানানো হয়। সেই খবর পেয়েই বাস ধরতে ভোর ভোর উঠে বাসস্ট্যান্ডে আসা।

Saradindu Ghosh

Published by: Debalina Datta
First published: June 9, 2020, 11:10 AM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर