মেয়েকে কোলে করে পরীক্ষাকেন্দ্রে বাবা,পরীক্ষার্থীদের আশীর্বাদ করলেন পুরোহিতরা!মাধ্যমিকের অন্য ছবি

মেয়েকে কোলে করে পরীক্ষাকেন্দ্রে বাবা,পরীক্ষার্থীদের আশীর্বাদ করলেন পুরোহিতরা!মাধ্যমিকের অন্য ছবি

বীরভূমে এবার তিন দৃষ্টি প্রতিবন্ধী পরীক্ষার্থী মাধ্যমিক দিচ্ছে। সকলেই সিউড়ি অরবিন্দ ইনস্টিটিউট ফর সাইটলেসের ছাত্র।

  • Share this:

#কলকাতা: ভালো করে হাঁটাচলা করতে পারেনা মেয়ে। অগত্যা আলিপুরদুয়ারে মেয়েকে কাঁধে করে পরীক্ষাকেন্দ্রে পৌঁছে দিলেন বাবা। অন্যদিকে পরীক্ষাকেন্দ্রে ঢোকার মুখে মন্ত্রোচ্চারণ করে পরীক্ষার্থীদের আশির্বাদ করলেন পুরোহিতরা। সিউড়িতে পুলিশের গাড়িতে করে পরীক্ষা দিতে গেলেন তিন দৃষ্টিহীন পরীক্ষার্থী। মাধ্যমিকের প্রথম দিনে জেলায় জেলায় অন্য ছবি।

জীবনের প্রথম বড় পরীক্ষা। আলিপুরদুয়ারের মেয়ে রিয়া ওঝাকে পিঠে নিয়ে পরীক্ষাকেন্দ্রে পৌঁছন বাবা। জয়গাঁর শ্রীগণেশ হাইস্কুলের ছাত্রী রিয়ার সিট পড়েছে হাসিমারা হিন্দি হাইস্কুলে। লেখাপড়ায় মেধাবী হলেও, শরীর বশে নেই ষোল বছরের ছাত্রীর। রিকেট রোগে হাটাচলার ক্ষমতা নেই। শরীর বেঁকে ছোট্ট হয়ে গেছে। তবে পরীক্ষা দিতে বদ্ধপরিকর। মেয়ের ইচ্ছেকে প্রশ্রয় দিয়ে তাকে কোলে নিয়েই স্কুলে পৌঁছে দিলেন বাবা।

বীরভূমে এবার তিন দৃষ্টি প্রতিবন্ধী পরীক্ষার্থী মাধ্যমিক দিচ্ছে। সকলেই সিউড়ি অরবিন্দ ইনস্টিটিউট ফর সাইটলেসের ছাত্র। তাদের সিট পড়েছে বীরভূম জেলা স্কুলে। রাইটার নিয়ে পরীক্ষা দিচ্ছে তাঁরা। ছাত্রদের পরীক্ষাকেন্দ্রে পৌঁছে দেওয়ার উদ্যোগ নেয় জেলা পুলিশ।

সব বাধা অতিক্রম করে জীবনের প্রথম বড় পরীক্ষা দিচ্ছে রিয়া, সূর্যকান্তরা। কিন্তু যাদের শারীরিক কোনও সমস্যা নেই, তাঁরাও দুরু দুরু বুকে পরীক্ষা দিতে যায়। তাদের আশ্বস্ত করতেও ব্যবস্থা ছিল দুর্গাপুরে। এবিবি হাইস্কুলের পরীক্ষাকেন্দ্রে ঢোকার আগে ফুল, বেলপাতা মাথায় ঠেকিয়ে মন্ত্রোচ্চারণ করে পরীক্ষার্থীদের আশীর্বাদ করলেন পুরোহিতরা।

First published: February 19, 2020, 8:45 AM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर