মতুয়াদের বড়মার জন্মশতবর্ষের অনুষ্ঠানে মুখ্যমন্ত্রী, দিলেন উন্নয়নের বার্তা

  • Share this:

    #ঠাকুরনগর:মতুয়াদের জন্য একগুচ্ছ উন্নয়নের পরিকল্পনা ঘোষণা করলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। আজ, ঠাকুরনগরে মতুয়াদের বড়মা বীণাপাণিদেবীর জন্মশত বার্ষিকী অনুষ্ঠানে গিয়ে গাইঘাটায় ঠাকুর হরিচাঁদ ও গুরুচাঁদের নামে বিশ্ববিদ্যালয় তৈরির ঘোষণা করেন তিনি। বড়মাকে রাজ্যের সর্বোচ্চ সম্মান বিশেষ বঙ্গবিভূষণও দেন মুখ্যমন্ত্রী।

    রাজ্যের একাধিক জেলায় মতুয়া সম্প্রদায়ের প্রভাব। তৃণমূলের সেই ভোটব্যাঙ্কে থাবা বসাতে তৎপর বিজেপি। মতুয়া সম্প্রদায়ের একাংশকে নাগরিকত্বের টোপও দিয়েছে তারা। কিন্তু, গেরুয়াশিবিরের সেই কৌশলকে রুখে দিলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। মতুয়াদের জন্য আগেই বিকাশ পরিষদ তৈরির ঘোষণা করেছিল রাজ্য। বৃহস্পতিবার মুখ্যমন্ত্রীর ঘোষণা, - ঠাকুরনগর এলাকার সৌন্দর্যায়ন - ঠাকুরবাড়ির দুটি গেট নির্মাণ - গাইঘাটার চাঁদপাড়ায় ঠাকুর হরিচাঁদ ও গুরুচাঁদের নামে বিশ্ববিদ্যালয় নির্মাণ উপলক্ষ্য মতুয়া সম্প্রদায়ের বড়মা বীণাপাণিদেবীর জন্মশতবার্ষিকীর অনুষ্ঠান। তাতে যোগ দেওয়ার আগে বীণাপাণিদেবীর বাড়িতে গিয়ে জন্মদিনের শুভেচ্ছা জানান মুখ্যমন্ত্রী। মুখ্যমন্ত্রীর সঙ্গে হুইলচেয়ারে অনুষ্ঠান মঞ্চে যান বীণাপাণিদেবী। মতুয়া সম্প্রদায়ের বড়মাকে রাজ্যের সর্বোচ্চ সম্মান বিশেষ বঙ্গবিভূষণ দেওয়ার ঘোষণা করেন মুখ্যমন্ত্রী। রাজ্য সরকারের এই সর্বোচ্চ স্বীকৃতি পেয়ে উচ্ছ্বসিত ঠাকুর পরিবার।

    মতুয়াদের বড়মার জন্মশতবর্ষের অনুষ্ঠান নিয়ে মুখ্যমন্ত্রী রাজনীতি করছেন বলে অভিযোগ তুলেছিল বিজেপি। কিন্তু এদিনের সংক্ষিপ্ত বক্তৃতায় রাজনীতির প্রসঙ্গ তেমন তোলেননি মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। বরং উন্নয়নের অস্ত্রেই মতুয়া সম্প্রদায়ের মন জয়ের চেষ্টা মুখ্যমন্ত্রীর।

    First published: