• Home
  • »
  • News
  • »
  • south-bengal
  • »
  • Mamata Banerjee: 'আপদ বিদায় হয়েছে, ভাল হয়েছে', কাকে উদ্দেশ্য করে এ কথা বললেন মমতা!  

Mamata Banerjee: 'আপদ বিদায় হয়েছে, ভাল হয়েছে', কাকে উদ্দেশ্য করে এ কথা বললেন মমতা!  

অবিভক্ত মেদিনীপুর জুড়ে বিগত বছরগুলিতে একাধিক জায়গায় তৃণমূলের বিরুদ্ধে যে অভিযোগ উঠেছিল সেই সব ঘটনার দায় নাম না করে অধিকারী পরিবারের ওপর চাপালেন মমতা বন্দোপাধ্যায়।

অবিভক্ত মেদিনীপুর জুড়ে বিগত বছরগুলিতে একাধিক জায়গায় তৃণমূলের বিরুদ্ধে যে অভিযোগ উঠেছিল সেই সব ঘটনার দায় নাম না করে অধিকারী পরিবারের ওপর চাপালেন মমতা বন্দোপাধ্যায়।

অবিভক্ত মেদিনীপুর জুড়ে বিগত বছরগুলিতে একাধিক জায়গায় তৃণমূলের বিরুদ্ধে যে অভিযোগ উঠেছিল সেই সব ঘটনার দায় নাম না করে অধিকারী পরিবারের ওপর চাপালেন মমতা বন্দোপাধ্যায়।

  • Share this:

#হলদিয়াঃ অবিভক্ত মেদিনীপুর জুড়ে বিগত বছরগুলিতে একাধিক জায়গায় তৃণমূলের বিরুদ্ধে যে অভিযোগ উঠেছিল সেই সব ঘটনার দায় নাম না করে অধিকারী পরিবারের ওপর চাপালেন মমতা বন্দোপাধ্যায়। পূর্ব মেদিনীপুরের হলদিয়ায় রাজনৈতিক সমাবেশ থেকে মমতা বন্দোপাধ্যায় সুর চড়িয়েছেন এক সময়ে তার রাজনৈতিক সহযোদ্ধা শুভেন্দু অধিকারীর দিকে। তিনি দলীয় প্রার্থীর সমর্থনে ভোটের প্রচারে এসে বলেন, " গদ্দারদের স্তব্ধ করুন এখানে। ওরা ছাড়া বিগত কয়েক বছরে এখানে কেউ অত্যাচার করেনি।"

প্রসঙ্গত মমতা বন্দোপাধ্যায় এ দিন অভিযোগ করেছেন, যাঁদের পছন্দ করত না 'গদ্দার'রা তাঁদের জেলে পুরে দিত। উদাহরণ হিসেবে এ দিন তিনি হলদিয়ার মিলন মণ্ডল ও পাঁশকুড়ার আনিসুরের নাম নেন। মিলন মণ্ডল অবশ্য জামিন পেয়েছেন। আনিসুর এখনও জেল বন্দি। প্রসঙ্গত, নন্দীগ্রাম আন্দোলনের সময় আনিসুর মমতা বন্দোপাধ্যায়কে সাহায্য করেছেন বলে একাধিকবার জানিয়েছেন মমতা বন্দোপাধ্যায়। এ দিন মমতার কথায়, "বিজেপি আর মেদিনীপুরের কিছু গদ্দার, মীরজাফর যাঁদের আমি পুষেছি এতদিন। তাঁরা পছন্দ না হলেই জেলে পুরে দিত।"

খড়গপুরে এ দিনই সভা করেছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। ১২৫ কিমি দূরে হুইল চেয়ারে বসে হলদিয়ার মঞ্চ থেকে তার জবাব দিয়েছেন মমতা। বিজেপিকে কটাক্ষ করে মমতা বন্দোপাধ্যায় জানিয়েছেন, "লক্ষ লক্ষ কোটি কোটি টাকা তুলে আজ বিজেপি আমাদের তোলাবাজ বলছে।" বিজেপি শিবির লাগাতার তৃণমূল কংগ্রেসকে তোলাবাজের দল বলে কটাক্ষ করে গিয়েছে। এ দিন কার্যত তারই জবাব দিলেন মমতা বন্দোপাধ্যায়। সভায় হাজির জনতাকে উদ্দেশ্য করে মমতা বন্দোপাধ্যায় পালটা প্রশ্ন ছুঁড়ে দেন, "মোদিকে জিজ্ঞাসা করুন ১৫ লাখ কোথায় গেল? এ দিন হলদিয়া, খেজুরি-সহ তিন জায়গায় মমতা বন্দোপাধ্যায়ের সভা থাকলেও ফোকাসে ছিল নন্দীগ্রাম। যে আসন এবার হটস্পট। যে আসনে এ বার মুখোমুখি লড়াই মমতা বন্দোপাধ্যায় বনাম শুভেন্দু অধিকারীর।

এ দিন সেই আসনকে মনে করিয়ে মমতা বন্দোপাধ্যায় বুলেন, "কিছু গদ্দার পুষেছিলাম। গদ্দারদের জব্দ করুন, স্তব্ধ করুন। ওরা ছাড়া কেউ এখানে অত্যাচার করেনি বিগত কয়েক বছর। টিএমসি যাকে  স্নেহ দিয়ে বড় করল। সে আজ বড় তোলাবাজ। সে এখন বিজেপি করে। কারণ টাকা বাঁচাতে, জেল থেকে বাঁচতে। " তিনি আরও বলেন, "আমায় পূর্ব মেদিনীপুর আসতে দিত না। হলদিয়া, নন্দীগ্রাম, এগরা, কোথাও আসতে দিত না। আমায় বলত পারমিশন নিতে হবে। আপদ বিদায় নিয়েছে ভাল হয়েছে।" এ দিন মমতা বন্দোপাধ্যায় মনে করিয়ে দিয়েছেন," আমি নন্দীগ্রামে বাড়ি নিয়েছি৷ আমি মাঝে মাঝেই এখানে এসে থাকব। আমি হলদিয়ায় ঢুঁ মারব।" ২০১১ সালে হলদিয়া আসনে তৃণমূল কংগ্রেস জয়লাভ করলেও ২০১২ সাল থেকে হলদিয়া সে অর্থে সুবিধা দেয়নি মমতা বন্দোপাধ্যায়কে।

যদিও ২০২১ এর বিধানসভা ভোট শুধু একটি আসন ঘিরে নয়, লড়াই হবে গোটা পূর্ব মেদিনীপুর জেলা নিয়ে। যা এক সময় অধিকারী গড় বলে পরিচিত ছিল। এখন তারাই কার্যত মমতা বন্দোপাধ্যায়ের ঘোষিত প্রতিদ্বন্দ্বী। তাদের উদ্দেশ্যেই মমতা বন্দোপাধ্যায় এ দিন বলেন, "ইঞ্চিতে ইঞ্চিতে যুদ্ধ হবে। খেলা হবে৷ বহিরাগত গুন্ডাদের চাই না।"

ABIR GHOSHAL

Published by:Shubhagata Dey
First published: