Bengal 7th Phase Election : সোমে সপ্তম-দফা, রুদ্র থেকে সায়নী, নজরে তারকা প্রার্থীরা...

Bengal 7th Phase Election : সোমে সপ্তম-দফা, রুদ্র থেকে সায়নী, নজরে তারকা প্রার্থীরা...

নজরে তারকা প্রার্থীরা

সপ্তম দফায় কলকাতার ৪টি, দক্ষিণ দিনাজপুরের ৬টি, পশ্চিম বর্ধমানের ৯টি, মালদহের ৬টি ও মুর্শিদাবাদের ৯টি আসনে ভোট।

  • Share this:

    #কলকাতা : সপ্তম দফা, রাজ্যের ৫ জেলার ৩৪ আসনে নির্বাচন সোমবার। কলকাতার ৪টি, দক্ষিণ দিনাজপুরের ৬টি, পশ্চিম বর্ধমানের ৯টি, মালদহের ৬টি ও মুর্শিদাবাদের ৯টি আসনে ভোট। সপ্তম দফায় ভোটে লড়ছেন রাজ্যের ৪ মন্ত্রী। যদিও সবার নজর ভবানীপুরে।

    মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের খাসতালুকে তৃণমূল কংগ্রেস এবার প্রার্থী করেছে দলের বর্ষীয়ান নেতা শোভনদেব চট্টোপাধ্যায়কে। ১৯৯৮ সালে উপনির্বাচনে রাসবিহারী থেকে জেতেন রাজ্যের বিদায়ী বিদ্যুৎমন্ত্রী। তার পর থেকে সেখানকারই বিধায়ক তিনি। কিন্তু এ বার মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ভবানীপুর ছেড়ে নন্দীগ্রামের প্রার্থী হওয়ায় সেখানে তাঁকে দাঁড় করিয়েছে তৃণমূল কংগ্রেস। এবারের নির্বাচনে তাঁর প্রতিপক্ষ বিজেপি-র রুদ্রনীল ঘোষ। একসময়ে বাম রাজনীতি, পরবর্তীকালে তৃণমূল কংগ্রেস ঘনিষ্ঠ হিসেবে পরিচিত একুশেই নাম লিখিয়েছেন গেরুয়া শিবিরে। বিজেপিতে যোগ দেওয়ার পরে একের পর এক বিতর্কে জড়িয়ে পড়া টলিউড অভিনেতা রুদ্রনীল এবারের ভোট ময়দানে। শুধু তাই নয় খোদ মমতার ডেরায় তৃণমূল প্রার্থী তিনিই।

    বিধানসভা নির্বাচনের অন্যতম জরুরি কেন্দ্র ভবানীপুর থেকে বিজেপির প্রার্থী রুদ্রনীল ঘোষ। এককালে বামপন্থী হিসেবে পরিচিত ছিলেন। তার পরে তৃণমূল হয়ে তিনি বিজেপিতে এসেছেন। তাঁকে নিয়ে সোশ্যাল মিডিয়ায় ট্রোলিংও হচ্ছে জোরদার। মমতা বন্দ্যোপাধ্য়ায় যে কেন্দ্রে বিধায়ক, সেখানেই এবার লড়বেন তিনি। এই কঠিন কেন্দ্রে জেতার জন্য পুজো দিয়ে প্রচার শুরু করেছেন রুদ্রনীল। ভবানীপুর- বিজেপির প্রার্থী রুদ্রনীল ঘোষ।

    সপ্তম দফার ভোটে নজর কাড়ছে আসানসোল দক্ষিণ কেন্দ্র। টলিউড তারকা সায়নী ঘোষ এখানে তৃণমূলের প্রার্থী। অন্যদিকে, তাঁর বিরুদ্ধে রয়েছেন বিজেপির নেত্রী তথা ফ্যাশন ডিজাইনার অগ্নিমিত্রা পল। নজরকাড়া এই কেন্দ্রে যুযুধান তৃণমূল কংগ্রেস প্রার্থী সায়নী। নির্বাচনের আগে বিজেপি নেতাদের সঙ্গে টুইট যুদ্ধে নেমেছিলেন টলি-অভিনেত্রী। তারপরেই তাঁকে প্রার্থী করে তৃণমূল।

    খাতায় কলমে রাজনীতিতে নবাগতা হলেও টিকিট পেয়েই সায়নীর ঘোষণা ছিল, কোনওরকম ফাঁক রাখবেন না চেষ্টায়। করেছেনও তাই। আসানসোলের গলি থেকে রাজপথ চোষে বেড়িয়েছেন প্রচারে নেমে। কখনও তাঁকে দেখা গিয়েছে শাড়ির কুচি হাতে দৌড়তে। কখনও নির্বাচনী মঞ্চে। কখনও আবার গলাভর্তি গাঁদার মালার ছবি নিজেই ট্যুইট করেছেন বলি অভিনেত্রী ও একসময়ে বামপন্থী আন্দোলনে গলা তোলা সায়নী। এহেন সায়নীকেই 'বহিরাগত' তকমায় বিঁধেছে প্রতিপক্ষ। শুধু তাই নয়, 'বহিরাগত' সায়নীকে নিয়ে ক্ষোভ ছিল তৃণমূলের স্থানীয় নেতৃত্বের একাংশের মধ্যেই।

     নজর কাড়ছে আসানসোল দক্ষিণ নজর কাড়ছে আসানসোল দক্ষিণ

    BJP প্রার্থী, পেশায় ফ্যাশন ডিজাইনার এবং দলের মহিলা মোর্চার নেত্রী অগ্নিমিত্রা পল আবার বার্নপুরের বিশিষ্ট চিকিৎসক অশোক রায়ের কন্যা। যে কারণে নিজেকে 'ঘরের মেয়ে' বলার পাশাপাশি প্রায় প্রতিদিনের প্রচারে সায়নীকে 'বহিরাগত' আখ্যা দিয়েছেন। অগ্নিমিত্রার কথায়, 'বহিরাগত কেউ এখানে প্রার্থী হলেও ভোট পাবেন না।' সায়নী অবশ্য মনে করিয়ে দিয়েছেন, বিয়ের পর গত ২৪ বছর ধরে অগ্নিমিত্রা আসানসোল বা বার্নপুর ছাড়া। সায়নী বলছেন, 'উনি আর আমি দু'জনেই একই সঙ্গে এখানে এসেছি। তার আগে দু'জনেই কলকাতায় কাজ করছি।'

    একসময় ফ্যাশন দুনিয়ার হার্টথ্রব অগ্নিমিত্রা এখন পুরোদস্তুর রাজনীতিবিদ। পলিটিক্সে পা রাখার প্রথমদিকের জড়তা কাটিয়ে অনেকটাই চোস্ত এখন তিনি। ইতিমধ্যেই পেয়েছেন বিজেপির রাজ্য মহিলা মোর্চার সভাপতির পদ। একদিকে অগ্নিমিত্রার 'ঘরের মেয়ে'র দাবি। অন্যদিকে ঝড়ের সঙ্গেও পাল্লা দিয়ে প্রচার চালানো সায়নী। কে পারবেন আসানসোল দক্ষিণের মন জিততে? সোমবারের পরীক্ষায় হবে সেই ভাগ্যপরীক্ষা।

    Published by:Sanjukta Sarkar
    First published: