• Home
  • »
  • News
  • »
  • south-bengal
  • »
  • BJP IS LIKELY TO ANNOUNCE THE NAMES OF CANDIDATES FOR THIRD FOURTH AND FIFTH PHASE SANJ

বিজেপির ১২০ আসনে প্রার্থী ঘোষণা আজ, তৃতীয়-চতুর্থ ও পঞ্চম দফায় 'হেভিওয়েট' কারা?

file photo

শনিবার দিল্লিতে বিজেপির সদর দফতরে প্রায় মধ্যরাত পর্যন্ত কেন্দ্রীয় নির্বাচন কমিটির বৈঠক চলে। বৈঠকে হাজির ছিলেন নরেন্দ্র মোদি, অমিত শাহ, বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতি জে পি নাড্ডা, শুভেন্দু অধিকারীরা।

  • Share this:

    #কলকাতা : শাসকদলের মত একবারে ২৯৪ আসনের প্রার্থীর নাম ঘোষণা করছে না গেরুয়া শিবির। এক্ষেত্রে তারা খানিকটা ধীরে চলো নীতি নিয়েই চলছেন বলে মনে করা হচ্ছে। তেমনই ইঙ্গিত মিলেছে শনিবার বিজেপির কেন্দ্রীয় নির্বাচন কমিটির বৈঠকের পর। সূত্রের খবর, মূলত তৃতীয়, চতুর্থ এবং পঞ্চম দফার ভোটের প্রার্থীদের নাম নিয়ে আলোচনা হয়েছে বৈঠকে। যা আজ (রবিবার) ঘোষণা করা হবে।

    ইতিমধ্যেই প্রথম দু'দফার ৬০ জন প্রার্থীর নাম ঘোষণা করেছে পদ্ম শিবির। শনিবারই বাকি ২৩৪ টি আসনের প্রার্থীদের নাম ঘোষণা করা হতে পারে জল্পনা ছড়িয়েছিল। শেষপর্যন্ত অবশ্য তা হয়নি। দিল্লিতে বিজেপির সদর দফতরে প্রায় মধ্যরাত পর্যন্ত কেন্দ্রীয় নির্বাচন কমিটির বৈঠক চলে। বৈঠকে হাজির ছিলেন নরেন্দ্র মোদি, অমিত শাহ, বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতি জে পি নাড্ডা, শুভেন্দু অধিকারী, মুকুল রায়-সহ বঙ্গ বিজেপির নেতারা। সূত্রের খবর, সেখানে তৃতীয়, চতুর্থ এবং পঞ্চম দফার (১২০ টি আসন) প্রার্থী তালিকা নিয়ে আলোচনা হয়েছে। বাকি তিন দফার প্রার্থীদের নাম নিয়ে সেভাবে আলোচনা করা হয়নি। সে বিষয়ে পরে সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে বলে জানা গিয়েছে।

    রবিবারের ঘোষণার আগেই বেশ কিছু নজরকাড়া নাম শোনা যাচ্ছে বিজেপির অন্দরে। সম্ভাব্য সেই প্রার্থী তালিকায় অবশ্যই থাকছেন বেশ কয়েকজন হেভিওয়েট নেতাও। নিজের পুরনো আসন ডোমজুড় থেকেই সম্ভবত প্রতিদ্বন্দ্বিতা করতে চলেছেন রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায়। উত্তরপাড়া থেকে লড়তে পারেন প্রবীর ঘোষাল। রথীন চক্রবর্তী সম্ভাব্য প্রার্থী বালি বিধানসভা কেন্দ্র থেকে। অন্যদিকে জিতেন্দ্র তেওয়ারির পাণ্ডবেশ্বর থেকে টক্কর দেওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। তারকা প্রার্থী রুদ্রনীল ঘোষের নাম উঠে আসছে শিবপুর বিধানসভা কেন্দ্রের জন্য। তবে মহাগুরু মিঠুন চক্রবর্তীর নাম আসার সম্ভাবনা প্রায় নেই। তিনি একুশের বিধানসভা নির্বাচনে দাঁড়াচ্ছেন না বলেই এখনও পর্যন্ত জানা গিয়েছে।

    Published by:Sanjukta Sarkar
    First published: