শীত পড়তেই বেআইনি চোলাই মদের রমরমা কারবার শুরু, বাজেয়াপ্ত ৮০ লিটার মদ

বেআইনিভাবে চোলাই মদ তৈরির অভিযোগে তিনজনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। প্রচুর চোলাই মদ নষ্ট করা হয়েছে। বেশ কিছু মদ তৈরির সরঞ্জাম বাজেয়াপ্ত করা হয়েছে।

বেআইনিভাবে চোলাই মদ তৈরির অভিযোগে তিনজনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। প্রচুর চোলাই মদ নষ্ট করা হয়েছে। বেশ কিছু মদ তৈরির সরঞ্জাম বাজেয়াপ্ত করা হয়েছে।

  • Share this:

Saradindu Ghosh

#বর্ধমান: শীতের মরশুম শুরু হতেই পূর্ব বর্ধমান জেলার বেশ কিছু এলাকায় বেআইনি চোলাই মদের রমরমা কারবার শুরু হয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে। সেই কারবার বন্ধ করতে অভিযানে নেমেছে পুলিশ। সেই অভিযানে নেমে বড়সড় সাফল্য পেল পূর্ব বর্ধমান জেলার ভাতার থানার পুলিশ। বেআইনিভাবে চোলাই মদ তৈরির অভিযোগে তিনজনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। প্রচুর চোলাই মদ নষ্ট করা হয়েছে। বেশ কিছু মদ তৈরির সরঞ্জাম বাজেয়াপ্ত করা হয়েছে।

দীপাবলির আগে বরাবরই চোলাই মদ তৈরি রমরমা আকার নেয়। তাই আপাতত দীপাবলি পর্যন্ত ধারাবাহিকভাবে চোলাই মদের বিরুদ্ধে অভিযান চালানো হবে বলে আবগারি দফতর ও জেলা পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে। পূর্ব বর্ধমান গলসি, রায়না, খণ্ডঘোষ, মেমারি বর্ধমান শহরের আশপাশ এলাকায় আউশগ্রামে শীতকালে চোলাই মদের রমরমা কারবার চলে। অভিযোগ, রাজ্যে বিষ মদে মৃত্যুর ঘটনা ঘটলে নড়েচড়ে বসে পুলিশ, আবগারি দফতর। ধরপাকড় চলে কিছুদিন। তারপর আবার সব থিতিয়ে যায়। ধারাবাহিকতার অভাবে জাঁকিয়ে বসে চোলাই মদের রমরমা কারবার। এ বার অবশ্য শীত পড়তেই অভিযানে নেমেছে পুলিশ।

পূর্ব বর্ধমান জেলার ভাতারের বড়বেলুন গ্রামে ঘটা করে ধুমধামের সঙ্গে কালীপুজো অনুষ্ঠিত হয়। এখানের মা কালী বড় মা নামে খ্যাত। বড় মায়ের পুজোয় দূর-দূরান্ত থেকে বহু পূর্ণার্থী ভিড় করেন। লুকিয়ে চুরিয়ে চোলাই মদের কারবার চলে বলে অভিযোগ ওঠে। সেই বড়বেলুন এলাকায় চোলাই মদ তৈরি হচ্ছে বলে সূত্র মারফত খবর পায় পুলিশ। এই তথ্যের ভিত্তিতে অভিযান চালায় ভাতার থানার পুলিশ। অভিযান চালিয়ে বড় বেলুন গ্রাম থেকে বেআইনিভাবে চোলাই মদ তৈরির অভিযোগে দুই ব্যক্তিকে গ্রেফতার করল ভাতার থানার পুলিশ। পাশাপাশি ভাতারের বড় পোশলা গ্রাম থেকে চোলাই মদ তৈরির অভিযোগে এক ব্যক্তিকে গ্রেফতার করা হয়েছে। ধৃত তিন জনকে এ দিন বর্ধমান আদালতে তোলা হয় । তাদের কাছ থেকে প্রায় ৮০ লিটার মদ উদ্ধার করেছে ভাতার থানার পুলিশ। ধৃত তিনজনের নাম নিমাই দুলে, বিপদ দুলে ও সাধন দাস। প্রথম দুজনের বাড়ি বড়বেলুন ও সাধন দাস বাড়ি বড় পোশলা গ্রামে ।

Published by:Simli Raha
First published: