• Home
  • »
  • News
  • »
  • south-bengal
  • »
  • BARDHAMAN BJP MLA ON CONTROVERSY AFTER NATIONAL ANTHEM STOPPED IN FRONT OF HIM SANJ

BJP MLA : এ কেমন খেলা! বিধায়কের সামনেই হুইসেল বাজিয়ে মাঝপথে জাতীয় সঙ্গীত থামালেন রেফারি?

হুইসেল বিতর্কে বিজেপির বিধায়ক

BJP MLA : মাঝপথে জাতীয় সঙ্গীত(National Anthem) থামালেন রেফারি। আর এই বিরল ঘটনাকে কেন্দ্র করে বিতর্কের (BJP MLA) ঝড় উঠেছে।

  • Share this:

#বর্ধমান : বিধায়কের (BJP MLA) সামনেই হুইসেল বাজিয়ে (Whistle Controversy) মাঝপথে জাতীয় সঙ্গীত(National Anthem) থামালেন রেফারি। আর এই বিরল ঘটনাকে কেন্দ্র করে বিতর্কের (BJP MLA) ঝড় উঠেছে নানা মহলে। ঘটনাটি ঘটেছে পশ্চিম বর্ধমান জেলার কুলটিতে। কুলটির বিজেপি বিধায়ক অজয় পোদ্দারকে কাঠগড়ায় দাঁড় করিয়ে সমালোচনায় শাসক দল তৃণমূল।

ঘটনাটি ঘটে দিন কয়েক আগে। কুলটির সাঁকতোড়িয়ার হাতিনল এলাকায় একটি ফুটবল টুর্নামেন্টে উপস্থিত হন কুলটির বিজেপি বিধায়ক অজয় পোদ্দার। তিনি যখন খেলোয়াড়দের সঙ্গে পরিচয় পর্ব সারছেন, তখনই হঠাৎ মাইকে বাজতে শুরু করে জাতীয় সঙ্গীত। এতেই রীতিমতো বিরক্ত প্রকাশ করেন বিধায়ক। বিধায়ক অজয় পোদ্দারের সামনেই এরপর হুইসেল বাজিয়ে জাতীয় সঙ্গীত থামানোর 'নির্দেশ' দেন ফুটবল টুর্নামেন্টের জনৈক রেফারি।

এর ফলে কিছুক্ষণ পরিচয়পর্ব বন্ধ থাকার পর ফের খেলোয়াড়দের সঙ্গে পরিচয় পর্ব শুরু করেন বিধায়ক। এই ভিডিওটি ভাইরাল হতেই রাজনৈতিক মহলে বিতর্ক শুরু হয়েছে। বিতর্কিত ভিডিওটি কুলটির বিধায়ক অজয় পোদ্দার নিজের ফেসবুকেও পোস্ট করেন। কুলটির শাসক দলের নেতারা ঘটনার তীব্র নিন্দায় সরব। জেলা তৃণমূল নেতৃত্বরা বলছেন, 'বিজেপির যা শিক্ষা তাতে ওদের কাছে এটাই স্বাভাবিক, ওদের সম্পর্কে কিছু বলতেই রুচিতে বাধে। আমরা মনে করি জাতীয় সঙ্গীতকে অবমাননা করেছেন বিধায়ক'।

যদিও কুলটির বিধায়ক, যাকে কেন্দ্র করে বিতর্ক ছড়িয়েছে সেই অজয় পোদ্দারের দাবি, 'এটা সংগঠকদের ভুল। মাঝপথে জাতীয় সঙ্গীত বাজিয়ে দিয়েছিল। খেলোয়াড়দের সঙ্গে পরিচয় পর্বের সময় জাতীয় সঙ্গীত বাজানো ঠিক নয়। তাই বন্ধ করা হয়েছিল। পরে আবার আমরা নিয়ম-নীতি মেনে সম্মানের সঙ্গে সবাই মিলে জাতীয় সঙ্গীত গেয়েছি'।

কিন্তু অনেকেরই প্রশ্ন, যেভাবে হুইসেল বাজিয়ে বিধায়কের সামনে মাঝপথে জাতীয় সংগীত বন্ধ করে দেওয়া হল তা কি জাতীয় সংগীতকে অবমাননা করা নয়? বিধায়কের সামনেই মুখোমুখি দাঁড়িয়ে রেফারি যখন হুইসেল বাজিয়ে জাতীয় সংগীত বন্ধ করলেন তখন কেন তার প্রতিবাদ করলেন না বিধায়ক অজয় পোদ্দার? এই প্রশ্নও তুলছেন অনেকে। যখন জাতীয় সঙ্গীত বাজছে তখন সবার থেমে যাওয়া উচিত ছিল। যদি ভুলবশতই জাতীয় সংগীত বাজানো হয়ে থাকে তখন ফুটবল খেলোয়াড়দের সঙ্গে বিধায়কের পরিচয় পর্ব সাময়িক বন্ধ রাখাই উচিত ছিল। কোনও কিছুর জন্য জাতীয় সঙ্গীতকে হুইসেল বাজিয়ে মাঝপথে থামানো উচিত হয়নি বলেও একাংশের বক্তব্য। এটা জাতীয় সঙ্গীতকে অবমাননা করা হয়েছে বলে মত তাঁদের।

Published by:Sanjukta Sarkar
First published: