corona virus btn
corona virus btn
Loading

জলকষ্ট নিয়েই লোকসভায় ভোট দিতে যাচ্ছে বাঁকুড়া

জলকষ্ট নিয়েই লোকসভায় ভোট দিতে যাচ্ছে বাঁকুড়া
  • Share this:

#বাঁকুড়া: বাঁকুড়া- শব্দটা বললেই মনে হয় লাল মাটি, মনে হয় রাঢ়ভূমি ৷ শতাব্দী প্রাচীন ইতিহাস বুকে বয়ে নিয়ে এগিয়ে চলেছে ৷ এই সাংস্কৃতিক ছোঁওয়া ছাড়াও বাঁকুড়া বললে আরও মনে হয় নিদারুণ গরম তার সঙ্গে মারাত্মক জলকষ্টের কথা ৷ ভোট আসে ভোট যায় কিছু কী বদল হয় ৷ নিউজ 18 বাংলা.কম ষষ্ঠ পর্যায়ের ভোটের ঠিক আগেই খোঁজ নিয়েছে একদম বাঁকুড়ার খাসতালুকে গিয়ে ৷

রুক্ষ লালমাটির জেলায় জলের কষ্ট নিত্য সঙ্গী। পানীয় জল থেকে চাষবাস। জলসংকটে প্রাণ ওষ্ঠাগত। বাঁকুড়ার ৯২ শতাংশ মানুষ গ্রামে বসবাস করেন ৷ যাদের কর্মসংস্থানের মূল বিষয় কৃষি ৷ জুন থেকে সেপ্টেম্বর অবধি বাঁকুড়ার মোট বৃষ্টির ৮৫ শতাংশ হয় ৷ ফলে এই সময়ে চাষের জলের অসুবিধা হয় না ৷ কিন্তু গ্রীষ্মের ঠিক শুরুতেই হয় সমস্যা ৷ কারণ সে সময়ে চাষের জমিতে জলের যোগান মেলা ভার ৷

বাঁকুড়ার চারটি অঞ্চলে মোট ৩০ টি সেচ প্রকল্প তৈরি হচ্ছে ৷ রায়পুরে ১০ টি, রাণীবাধে ৬ টি, সারেঙ্গায় ৯ টি, সিমলিপালে ৫ টি সেচ প্রকল্পের কাজ চলছে ৷ এই পুরো প্রকল্পগুলিই মূলত দক্ষিণ পশ্চিম বাঁকুড়াতেই হয়েছে ৷ এই প্রকল্পগুলিকে আরও কার্যোপযোগী করে তোলার প্রয়াস জারি রয়েছে ৷ এই সেচ প্রকল্পগুলিকে ভরসা করে মার্চ থেকে মে এবং নভেম্বর - ডিসেম্বরেও চাষ করা যাচ্ছে ৷ যাতে কিছুটা হলেও স্বস্তিতে এই এলাকার কৃষিজীবি মানুষরা ৷

Woman planting paddy

পানীয় জলের সমস্যা সমাধানেও ভূমিকা নেওয়া হয়েছ ৷ আসলে স্বাধীনতাত্তোর সময় থেকেই রাঢ় বাংলার এই জেলাগুলিতে জলের সমসা অন্যতম জোরালো সমস্যা ৷ তবে গত দশ বছরে ছবিটা একটু একটু করে বদলেছে এমনটাই বলছেন স্থানীয় মানুষজন ৷

বাঁকুড়ার শালতোড়ায় রাজ্য সরকারের উদ্যোগে তৈরি হয়েছে বিশাল জলাধার। কাজ প্রায় শেষ। কাছেই বিহারীনাথ পাহাড়। জলাধার ঘিরে বাঁকুড়ার পর্যটনের তালিকায় যোগ হচ্ছে আরও একটা নাম।

এদিকে এখন ব্লকে ব্লকে বসেছে টিউবওয়েল ৷ যার থেকে পানীয় জলের মারাত্মক সমস্যাটা অনেকটা মিটিছে বলে মনে করছেন বাঁকুড়ার স্থানীয় মানুষজন ৷ পাশাপাশি বেশ কিছু এলাকায় ইতিমধ্যেই বসে গেছে টাইমকল ৷ তবে এই টাইম কল আরও বিস্তৃত এলাকায় বসার কাজ এখনও বাকি ৷ বাঁকুড়া শহর এবং তার আশেপাশের এলাকার নারী-পুরুষ নির্বিশেষে দাবি আগের থেকে ছবিটা অনেকটা বদলেছে ৷

তবে এখন একদম ভিতরের গ্রামগুলিতে রয়ে গেছে পানীয় জলের সমস্যা ৷ বিশেষত বাঁকুড়ার একটা বড় অংশ জুড়ে রয়েছে চর ৷ বড় মানা, মেজ মানা, ছোট মানা সবগুলি চরেই থাকেন কয়েক হাজার মানুষ ৷ তাদের টাইম কল থাকলেও সেটা ভেঙে গেলে এখনও সারানো  হয় না ৷ ব্লক আধিকারিক হোক বা পঞ্চায়েত সমিতি -র মুখপাত্র সকলেই  আশ্বাস দেন দ্রুতই সমস্যার সমাধানের ৷ কিন্তু হয় না ৷ মানুষগুলো অপেক্ষায় থাকে ৷ হয়ত এবার বদলাবে , হয়ত এবার গরমে তাঁদের জলের জন্য এক টিউবওয়েল কাজ না করলে অন্য টিউবওয়েলে কয়েক কিলোমিটার হেঁটে জল আনতে যেতে হবে না ৷

Representive Image Representive Image

লোকসভা ভোটের ষষ্ঠ দফায় ১২ মে ভোটগ্রহণ হবে বাঁকুড়ায় ৷ এই  লোকসভা কেন্দ্রটি বর্তমানে তৃণমূলের দখলে ৷ তৃণমূলের হয়ে এবার এই কেন্দ্র থেকে ভোটে দাঁড়িয়েছেন সুব্রত মুখোপাধ্যায় , এছাড়া ভারতীয় জনতা পার্টির প্রার্থী সুভাষ সরকার  আর বামপন্থী প্রার্থী অমিয় পাত্র (সিপিআইএম) ৷

First published: May 10, 2019, 3:23 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर