হিসেব চেয়ে পঞ্চায়েত অফিসে তালা ঝোলালেন মহিলারা !

হিসেব চেয়ে পঞ্চায়েত অফিসে তালা ঝোলালেন মহিলারা !

মহিলাদের সকলেই স্বনির্ভর গোষ্ঠীর সদস্য। বিভিন্ন কাজে যুক্ত এক একটি গোষ্ঠী। তাঁরা যে কাজ করেন তার হিসেব করে উঠতে পারেনি পঞ্চায়েত।

  • Share this:

#বর্ধমান: আগে হিসেব দাও। তারপর অন্য কাজ। এই দাবি তুলে পঞ্চায়েত অফিসে তালা ঝুলিয়ে দিলেন মহিলারা। তালা মেরে পঞ্চায়েত অফিস বন্ধ করে দীর্ঘক্ষণ বিক্ষোভও দেখান তাঁরা। কোথায় ঘটল এমন ঘটনা। কেনই বা মহিলারা পঞ্চায়েত বন্ধ করার মতো চরম সিদ্ধান্ত নিলেন!

পূর্ব বর্ধমান জেলার ভাতার ব্লক এর আমারুন দুই  নম্বর গ্রাম পঞ্চায়েতে বুধবার এই ঘটনা ঘটেছে। সবে পঞ্চায়েত অফিস খুলেছে। এক এক করে কর্মীরা আসছেন। নানান প্রয়োজনে এসেছেন বাসিন্দারাও। ঠিক তখনই দল বেঁধে এসে প্রায় দুশো মহিলা তালা ঝোলালেন সেই অফিসে।

মহিলাদের সকলেই আগে হিসেব দাও। তারপর অন্য কাজ। এই দাবি তুলে পঞ্চায়েত অফিসে তালা ঝুলিয়ে দিলেন মহিলারা। গোষ্ঠীর সদস্য। বিভিন্ন কাজে যুক্ত এক একটি গোষ্ঠী। তাঁরা যে কাজ করেন তার হিসেব করে উঠতে পারেনি পঞ্চায়েত। হিসেব সম্পূর্ণ না হওয়ায় তাদের টাকা আটকে গিয়েছে। দু’এক মাস নয়, টানা প্রায় এক বছর হিসেব সম্পূর্ণ না হওয়ায় টাকা পাচ্ছে না এই পঞ্চায়েতের অধীন থাকা স্বনির্ভর গোষ্ঠীগুলি। টাকার অভাবে তাদের কাজকর্ম বন্ধ হওয়ার জোগাড়। সেই ক্ষোভেই এদিন গ্রাম পঞ্চায়েতে তালা ঝোলান স্বনির্ভর গোষ্ঠীর এই মহিলা সদস্যরা।

মহিলাদের দাবি, ছয় মাস আগে গ্রাম পঞ্চায়েত তাদেরকে আশ্বাস দেয় যে তাদের সমস্ত হিসাবপত্র বুঝিয়ে দেবে। কিন্তু ছ’মাস অতিবাহিত হয়ে গেলেও কোন হিসাবপত্রই মেলেনি। সেই জন্যই তাদের এই বিক্ষোভ।

গ্রাম পঞ্চায়েতে এদিন আগে হিসেব দাও। তারপর অন্য কাজ। এই দাবি তুলে পঞ্চায়েত অফিসে তালা ঝুলিয়ে দিলেন মহিলারা। স্বনির্ভর গোষ্ঠীর মহিলাদের নিয়ে একটি মিটিং হওয়ার কথা ছিল। কিন্তু গোষ্ঠীর মহিলাদের অভিযোগ, আগে হিসেব দাও। তারপর অন্য কাজ। এই দাবি তুলে পঞ্চায়েত অফিসে তালা ঝুলিয়ে দিলেন মহিলারা। গোষ্ঠীর হিসেবের বিষয়টি তদন্ত হওয়ার জন্য বাকি সমস্ত কাজকর্ম বন্ধ থাকবে  বলে জানিয়েছিলেন গ্রাম পঞ্চায়েতের প্রধান অজয় সিং। তার পরেও হঠাৎ করে এদিন কেন মিটিং ডাকা হয়েছে সেই প্রশ্ন তোলেন তাঁরা।

স্বনির্ভর গোষ্ঠীর সদস্য সাবিনা বেগম জানান, ‘‘প্রত্যেকটা গ্রাম পঞ্চায়েতের স্বনির্ভর গোষ্ঠীর মহিলারা বিভিন্নভাবে সরকারি সাহায্য পাচ্ছেন। কিন্তু আমরা হিসেব না হওয়ায় কোনও সাহায্য পাচ্ছি না। এই বিষয়টি গ্রাম পঞ্চায়েতকে জানিয়েছিলাম। কিন্তু  গ্রাম পঞ্চায়েত প্রধান কোনওরকম ব্যবস্থা নিচ্ছে না। এই জন্য আমরা আজ তালা লাগিয়ে বিক্ষোভ দেখালাম।’’

গ্রাম পঞ্চায়েতের প্রধান অজয় সিং জানান, সমস্ত বিষয় ব্লক প্রশাসনকে জানানো হয়েছে। তাঁরা বিষয়টি দেখছেন। গ্রাম পঞ্চায়েতের উপপ্রধান শেখ শাহনাজ আলি জানান, বিষয়টি খুব তাড়াতাড়ি সমাধান করে দেওয়া হবে বলে মহিলাদের আশ্বাস দেওয়া হয়েছে। সেই আশ্বাস পেয়ে মহিলারা তালা খুলে দেন।

Saradindu Ghosh

First published: February 19, 2020, 6:12 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर