পূর্ব বর্ধমানে পুলিশ আধিকারিক সহ নতুন করে আক্রান্ত ৩৫ জন! বাড়ছে আতঙ্ক

আক্রান্তদের মধ্যে রয়েছেন জেলা পুলিশের এক পদস্থ আধিকারিক। জেলা প্রশাসন সূত্রে জানা গিয়েছে, ওই আধিকারিকের দেহে কোনও উপসর্গ মেলেনি। শুক্র ও শনিবারও তিনি অফিসে এসে কাজ করেছেন।

আক্রান্তদের মধ্যে রয়েছেন জেলা পুলিশের এক পদস্থ আধিকারিক। জেলা প্রশাসন সূত্রে জানা গিয়েছে, ওই আধিকারিকের দেহে কোনও উপসর্গ মেলেনি। শুক্র ও শনিবারও তিনি অফিসে এসে কাজ করেছেন।

  • Share this:

#পূর্ব বর্ধমান: পূর্ব বর্ধমান জেলায় এক পুলিশ কর্তা সহ ৩৫ জন নতুন করে করোনা আক্রান্ত হলেন। গত কয়েক দিন ধরে করোনার সংক্রমণ লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়তে থাকায় উদ্বিগ্ন জেলার বাসিন্দারা। এই নিয়ে এই জেলায় করোনা আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়াল ৩৩৪ জন। এদের মধ্যে ২৩০ জন করোনা হাসপাতালে চিকিৎসার পর সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন। করোনা হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন ১০২। আক্রান্ত হয়ে এই জেলায় এখন পর্যন্ত ২ জনের মৃত্যু হয়েছে।

পূর্ব বর্ধমান জেলায় নতুন করে করোনা আক্রান্তদের  মধ্যে বর্ধমান শহরে ৯ জন বাসিন্দা রয়েছেন। প্রতিদিনই শহরে আক্রান্তের সংখ্যা বাড়তে থাকায় আতঙ্কিত বাসিন্দারা। জেলা স্বাস্থ্য দফতর সূত্রে জানা গিয়েছে, আক্রান্তদের বাড়ি ও তার  আশপাশের এলাকা বাঁশের  ব্যারিকেড দিয়ে ঘিরে ফেলা হচ্ছে। ওই এলাকাকে কন্টেইনমেন্ট জোন হিসেবে ঘোষণা করে সেখানে কড়াকড়ি লকডাউন পালন করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

বর্ধমান শহরের ৯ জন আক্রান্তের পাশাপাশি মঙ্গলকোট ব্লকেও আক্রান্ত হয়েছেন ৯ জন। কেতুগ্রামে  নতুন করে পাঁচ জনের দেহে করোনার সংক্রমণ মিলেছে। রায়না এক নম্বর ব্লকে করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন ১ জন। বর্ধমান এক নম্বর ব্লকেও  ১ জন আক্রান্ত হয়েছেন। গলসি এক নম্বর ব্লকে ১ জন করোনা আক্রান্তের হদিশ মিলেছে। কাটোয়া পুরসভা এলাকায় নতুন করে ২ জন আক্রান্ত হয়েছেন। কাটোয়া দু'নম্বর ব্লকে করোনা আক্রান্ত হয়েছেন ৩ জন। কাটোয়া এক নম্বর ব্লকেও ৩ জন আক্রান্ত হয়েছেন। এছাড়া পূর্বস্থলী দু'নম্বর ব্লক ১ জন আক্রান্ত হয়েছেন।

আক্রান্তদের মধ্যে রয়েছেন জেলা পুলিশের এক পদস্থ আধিকারিক। জেলা প্রশাসন সূত্রে জানা গিয়েছে, ওই আধিকারিকের দেহে কোনও উপসর্গ মেলেনি। শুক্র ও শনিবারও তিনি অফিসে এসে কাজ করেছেন। ওই পদস্থ আধিকারিকের শরীরে করোনার সংক্রমণে মেলায় তাঁর সংস্পর্শে আসা বাকিরাও চিন্তিত। জেলা পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, করোনার সংক্রমণে রাশ টানতে এলাকায় এলাকায় লকডাউন কড়াকড়ি করা হচ্ছে। সেইসঙ্গে বাসিন্দারা যাতে মাস্ক ব্যবহার করেন, সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে রাস্তায় বাজারে চলাফেরা করেন তা নিশ্চিত করা হচ্ছে।

Published by:Pooja Basu
First published: