West Bengal Election: 'বিকাশে রুচি নেই মমতার, হাইওয়ে, রেলপথ কিছুই চায় না দিদি', নামখানায় যোগী

West Bengal Election: 'বিকাশে রুচি নেই মমতার, হাইওয়ে, রেলপথ কিছুই চায় না দিদি', নামখানায় যোগী

নামখানায় এদিন বাংলার মাটি, বাংলার জল থিওরি প্রয়োগ করলেন যোগী।

নামখানায় এদিন বাংলার মাটি, বাংলার জল থিওরি প্রয়োগ করলেন যোগী।

  • Share this:

    #নামখানা: প্রথম দফার ভোটের আগে আজই প্রচারের শেষ দিন। আর তাই কি স্লগ ওভারে যোগী আদিত্যনাথকে বোলিংয়ে নামাল বিজেপি! বাংলা দখলের লড়াইয়ে যোগীই কি তবে গেরুয়া শিবিরের ভরসাযোগ্য খেলোয়াড়! উল্টোদিকে ব্যাটিং করছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। আর চোট থাকা সত্ত্বেও তিনি যে দাপট নিয়েই খেলছেন, তা মোটামুটি স্পষ্ট। ফলে উত্তরপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রীর আক্রমণে মমতার ভোটের বাজার কতটা প্রভাবিত হবে, তা এখনই বলা মুশকিল। মোদি, শাহ, নাড্ডা, দিলীপদের সামলানো মমতার পক্ষে যোগীর কার্পেট বোম্বিং কি বাড়তি কোনও চাপ সৃষ্টি করতে পারবে!

    নামখানায় এদিন বাংলার মাটি, বাংলার জল থিওরি প্রয়োগ করলেন যোগী। ভারতের সাংস্কৃতিক পীঠস্থান বাংলা। দেশের দুঃসময়ে বাংলাই ভারতকে পথ দেখিয়েছে। যোগীর মুখে নিয়মমাফিক সেসব কথাই শোনা গেল এদিন। আর সেই একই হিন্দুত্বের কার্ড। তিনি আবার মনে করালেন, চৈতন্য মহাপ্রভু বাংলজুড়ে সনাতন ধর্মের প্রচার করতে কী কী করেছিলেন! বাংলার মাটিতেই জাতীয় সঙ্গীতের জন্ম। বাংলার, রবীন্দ্রনাথ, স্বামী বিবেকানন্দ, রামকৃষ্ণ পরমহংসদেব ফিরে এলেন গেরয়া বসনের যোগীর কথায়। পুরনো চাল ভাতে বাড়ে। পুরনো কথায় কি ভোট বাড়ে!

    যোগী এদিন নামখানায় ভোটপ্রচারে এসে বললেন, ''বছরের পর বছর ধরে ভ্রষ্টাচার করছে টিএমসি। সবাই জানে, টিএমসির গুন্ডরা কী করছে। বিজেপি কর্মীদের নির্মম হত্যা হচ্ছে। ৪০ দিন সময় আছে আর। ৩৫ দিনের পর টিএমমসি খারাপ সময় শুরু হবে। খুঁজে খুঁজে টিএমসির গুন্ডাদের সাজা দেব। বাংলা সম্প্রীতির রাজ্য ছিল একটা সময়। মাথা পিছু বাংলায় আয় ছিল সবথেকে বেশি। কংগ্রেস, সিপিএম, তৃণমূল সব শেষ করেছে। তৃণমূলের আমলে সবাই চাকরি হারিয়েছে। দশ বছরে কজনকে বাড়ি দিয়েছে মমতা দিদি। প্রধানমন্ত্রী আবাস যোজনায় বাড়ি পেয়েছে বহু মানুষ। ২ কোটি ৪২ লাখ কৃষক ছয় হাজার টাকা করে পেয়েছে। কিন্তু বাংলার কৃষকরা কেন পায় না। মমতাদি জবাব দাও।''

    বিজেপির সোনার বাংলা কর্মসূচির কথা মনে করিয়ে যোগী আরও বললেন, ''বিকাশে কোনও রুচি নেই মমতার। হাইওয়ে, রেলপথ, কিছুই চাইছেন না দিনি। শ্রীরামের নাম শুনলে রেগে যাচ্ছেন। রামের জয়জয়কার আটকালে জনতা সেই সরকারকে সরাবে। উত্তরপ্রদেশেও তাই হয়েছে। এখন গেরুয়া কাপড় দেখলেই ভয় পাচ্ছে দিদি।''

    Published by:Suman Majumder
    First published:

    লেটেস্ট খবর