পার্বতীর মত জীবনসঙ্গী পাওয়ার উদ্দেশেই অবিবাহিত পুরুষেরা এই শিব মন্দিরেই পুজো দেন

পার্বতীর মত জীবনসঙ্গী পাওয়ার উদ্দেশেই অবিবাহিত পুরুষেরা এই শিব মন্দিরেই পুজো দেন
শ্রীবৈদ্যনাথ মন্দিরের শিবলিঙ্গ ৷ ছবি সংগৃহীত ৷

পুরাণ মতে সতীর হৃদয় পড়েছিল এইখানে, শিবরাত্রির সময় পূণ্যার্থীদের ভিড়ে তিল ধারণের জায়গা থাকে না মন্দিরে

  • Share this:

Venkateswar Lahiri

#দেওঘর: বৈদ্যনাথ ধাম বা দেওঘর । যা ছিল একসময় বাংলার মানভূম জেলার অর্ন্তভুক্ত। বর্তমানে ঝাড়খণ্ডের অন্তর্ভুক্ত । তবে মন্দিরের মূল পুরোহিত ও পান্ডারা বংশ পরম্পরায় সব বাঙালি। কথিত আছে শিব ও শক্তি এখানে একসঙ্গে বিরাজমান। দ্বাদশ জ্যোতিলিঙ্গের অন্যতম মনস্কামনা লিঙ্গ আর অন্যদিকে শক্তিপীঠ, এখানে মুখোমুখি । পুরাণ মতে সতীর হৃদয় পড়েছিল এখানে। এই মন্দিরটি তাই জয়দুর্গা নামে খ্যাত। কৈলাস থেকে জ্যোতিলিঙ্গ লঙ্কায় নিয়ে যাওয়ার পথে লঙ্কেশ্বর রাবণ এখানেই নামিয়ে ফেলেছিলেন শিবলিঙ্গ বৈদ্যনাথকে । যা আর পরে তোলা যায়নি। তাই মহাশিবরাত্রিতে উৎসবের চেহারা নেয় বৈদ্যনাথ ধাম ৷

শ্রীবৈদ্যনাথ মন্দির ৷ ছবি সংগৃহীত ৷ শ্রীবৈদ্যনাথ মন্দির ৷ ছবি সংগৃহীত ৷

স্থানীয় গ্রামের এক বাসিন্দার মতে, ‘‘তাঁদের গ্রামে তৈরি হয় হাজার হাজার টোপর। লাল, নীল, সবুজ-সহ নানা রঙের, নানা আকারের । অন্য এক গ্রামবাসীর মত অনুসারে, শুধু উপোস করে শিবের মাথায় দুধ ঢাললেই হবে না । মনষ্কামনা নিয়ে যে পুরুষরা বাবা বৈদ্যনাথের কাছে আসেন তাঁদের এই টোপরটি চড়াতে হবে বাবার মাথায় । ভক্তদের বিশ্বাস মাত্র দশ টাকার টোপরটি পাল্টে দিতে পারে ভাগ্যচক্র । তাঁদের আশা অবিবাহিত পাত্ররা এখানে পুজো দিয়ে পেতে পারেন তাঁদের জীবনসঙ্গিনীকে।

মন্দিরের জনৈক পান্ডা বললেন, ‘‘পাত্র নিজে ছাড়াও অভিভাবকরাও এই বিশেষ লোকাচারে পুজো দিতে পারেন। উপাচার হিসাবে দুধ, ঘি, আবির এবং চন্দন প্রয়োজনীয় ৷

শ্রীবৈদ্যনাথ মন্দিরের শিবলিঙ্গ ৷ ছবি সংগৃহীত ৷ শ্রীবৈদ্যনাথ মন্দিরের শিবলিঙ্গ ৷ ছবি সংগৃহীত ৷

শিবের মতো স্বামী পেতে কুমারী মহিলারা পালন করেন ষোলো সোমবার। মহাশিবরাত্রিতে শিবলিঙ্গের মাথায় ফুল, জল, দুধ ঢালেন মহিলারা ৷ দিনভর উপোস, কৃচ্ছসাধন করে তবে হয় মহাশিবরাত্রি পালন। মহাশিবরাত্রি শুধুই মহিলাদের জন্য? পার্বতীর মতো সুন্দরী ও পতিপরায়ণ স্ত্রী পেতেও তো ইচ্ছে করে স্বামীদের।

শ্রীবৈদ্যনাথ মন্দির ৷ ছবি সংগৃহীত ৷ শ্রীবৈদ্যনাথ মন্দির ৷ ছবি সংগৃহীত ৷

পাত্র পক্ষেরও একই মনস্কামনা থাকতে পারে। অবিবাহিত পুরুষরা শরণাপন্ন হন বাবা বৈদ্যনাথের। বিশেষ উপায়ে মহাশিবরাত্রিতে পুরুষদের জন্য রয়েছে বিশেষ পুজো লোকাচার যা একমাত্র দেওঘরেই দেখা যায়। শিবরাত্রিতে পুজোর ডালিতে বিশেষ টোপর দিয়ে বা মৌর চড়িয়ে এখানে পুজো দেন অনেক ভক্তই। প্রায় সারা বছরই ভিড় উপচে পড়ে দেওঘর মন্দিরে। দেশের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে ভক্তরা আসেন বৈদ্যনাথ ধামে। মনষ্কামনা পূরণের লক্ষ্যে । তবে যেহেতু শিবরাত্রির সময় পূণ্যার্থীদের ভিড়ে তিল ধারণের জায়গা থাকে না, তাই সারা বছরই ভক্ত সমাগম হয় এখানে ।

First published: December 21, 2019, 9:17 AM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर