Eid 2021 : ১৩ না ১৪ মে, কবে পালিত হবে খুশির ইদ? জেনে নিন...

আসছে খুশির ইদ

রমজান (Ramadan) মাসের শেষে ইদ-উল-ফিতর পালিত হয়। ইদ-উল-ফিতরের (Eid ul Fitr) অর্থ উপবাস শেষ করার উৎসব। শাওয়াল মাসের প্রথম দিন পালিত হয় ইসলাম সম্প্রদায়ের এই উৎসব।

  • Share this:

    গোটা রমজান (Ramadan) মাস জুড়ে চলে রোজার উপবাস। আর তারই শেষে আসে খুশির ইদ.. (Eid 2021) ইদের দিনে দরিদ্রদের খাদ্যদ্রব্য দান করারও রীতি রয়েছে। শুভেচ্ছা জানানো ও উপহার দেওয়ার রীতিও রয়েছে। ছোটদের ‘ইদি' অর্থাৎ ছোট উপহার দেন বড়রা। এবার দরজায় কড়া নাড়ছে সেই ইদ। রমজান মাসের শেষে ইদ-উল-ফিতর (Eid ul Fitr) পালিত হয়। ইদ-উল-ফিতরের অর্থ উপবাস শেষ করার উৎসব। শাওয়াল মাসের প্রথম দিন পালিত হয় ইসলাম সম্প্রদায়ের এই বৃহৎ উৎসব। শাওয়াল ইসলামিক ক্যালেন্ডারের দশম মাস। ইদের দিন বিশেষ নমাজের মাধ্যমে দিন শুরু করেন সকলে।

    ১৩ এপ্রিল থেকে রমজান মাস শুরু হওয়ার ফলে মনে করা হচ্ছে, মে মাসের ১৩ অথবা ১৪ তারিখ ইদ পালিত হবে। উল্লেখ্য, সৌদি আরবে ১২ মে ইদ। সাধারণত এর একদিন পরে ভারতে ইদ পালিত হয়। সেক্ষেত্রে ১৩ মে (বৃহস্পতিবার) ইদ পালনের সম্ভাবনা রয়েছে। যদিও চাঁদ দেখা যাওয়ার ওপর ভিত্তি করে ইদের দিন নির্ধারিত হয়। সে ক্ষেত্রে ১২ তারিখ চাঁদ দেখা গেলে ১৩ তারিখ ইদ পালিত হবে। তা নাহলে ১৩ তারিখ চাঁদ দেখা দেওয়ার পর ১৪ তারিখ ইদের উৎসবে মেতে উঠবেন সমস্ত ইসলাম ধর্মাবলম্বীরা।

    আল্লাহকে ধন্যবাদ জানানোর দিন এই ইদ। প্রচলিত ধারণা অনুযায়ী, আল্লাহের নির্দেশে রমজান মাসে ইসলাম ধর্মাবলম্বীরা রোজা পালন করেন। কোরান অনুযায়ী, ইদের নমাজের পূর্বে রোজাদারদের জাকাত-আল-ফিতরের নিয়ম পালন করতে হয়। জাকাত অর্থাৎ দান করা।

    ইদের দিনে সকালে উঠে সালাত-উল-ফজ্র (দৈনন্দিন নমাজ)-এর পর স্নান করে নতুন কাপড় পরেন সকলে। তার পর প্রাতঃরাশ সেরে বিশেষ নমাজ আদায়ের পালা। অনেকে এদিন তকবীর পড়েন। এদিন বাড়িতে অতিথি সমাগম হয়ে থাকে। রান্না করা হয় নানা পদ। কিন্তু করোনার দ্বিতীয় ঢেউয়ের কারণে এ বছরও উৎসবের আমেজ কিছুটা ফিকে থেকে যেতে পারে।

    প্রসঙ্গত, ইসলামিক ক্যালেন্ডার অনুসারে বছরের নবম মাসটি হল রমজান মাস। গোটা রমজান মাস সূর্যোদয় থেকে সূর্যাস্ত পর্যন্ত উপবাস বা রোজা পালন করার পর ইদ পালন করেন মুসলিমরা। আরবিক ভাষায় রমজান কথাটি এসেছে রামিদা থেকে, যার অর্থ প্রচণ্ড গরম। রমজান মাস চলে ৭২০ ঘণ্টা ধরে অর্থাৎ ২৯-৩০ দিন। গুরুতর অসুস্থ, বৃদ্ধ, গর্ভবতী মহিলা ছাড়া প্রাপ্তবয়স্ক সব মুসলিমকেই রমজান মাসে রোজা রাখতে হয়।দেখতে পাওয়ার পরেই ইদের তারিখ ঘোষণা করা হয়।

    Published by:Sanjukta Sarkar
    First published: