নজির গড়লেন স্থানীয় যুবকরা, গণপিটুনির হাত থেকে উদ্ধার করলেন মানসিক অবসাদগ্রস্ত ব্যক্তিকে

পর-পর গণপিটুনির ঘটনায় নাজেহাল জেলা প্রশাসন। সচেতনতা বাড়ানোর উদ্যোগে সাড়া মিলছিল না

News18 Bangla
Updated:Aug 15, 2019 03:22 PM IST
নজির গড়লেন স্থানীয় যুবকরা, গণপিটুনির হাত থেকে উদ্ধার করলেন মানসিক অবসাদগ্রস্ত ব্যক্তিকে
Photo - Video Grab
News18 Bangla
Updated:Aug 15, 2019 03:22 PM IST

#আলিপুরদুয়ার: এবার উলটপুরাণ আলিপুরদুয়ারে। ফের সচেতনার নজির জেলায়। ছেলেধরা সন্দেহে আটক মানসিক ভারসাম্যহীন ব্যক্তিকে জনরোষের হাত থেকে বাঁচিয়ে পুলিশের হাতে তুলে দিলেন স্থানীয় কয়েকজন যুবক। পর-পর গণপিটুনির ঘটনায় নাজেহাল জেলা প্রশাসন। সচেতনতা বাড়ানোর উদ্যোগে সাড়া মিলছিল না। এবার ব্যতিক্রমী।

কখনও ফালাকাটা...কখনও দমনপুর..কখনও আবার মাঝেরডাবরি বা পাটকাপাড়া চাবাগান.... গত তিনমাসে ছেলেধরা সন্দেহে একের পর এক গণপিটুনির ঘটনায় মাঝে-মাঝেই খবরের শিরোনামে উঠে আসে আলিপুরদুয়ার। সচেতনতা বাড়াতে শুরু হয় মাইকিং। বসে ক্যাম্প। তবু ছবিটা বদলাচ্ছিল না। এবার অন্য ছবি। জনরোষের হাত থেকে এক মানসিক ভারসাম্যহীনকে বাঁচিয়ে নজির গড়লেন কয়েকজন যুবক।

আলিপুরদুয়ার এক নম্বর ব্লকের পলাশবাড়িতে মঙ্গলবার দিনভর ভিক্ষা করতে দেখা যায় বছর চল্লিশের এক ব্যক্তিকে। সন্ধের পর ছেলেধরা সন্দেহে তাঁকে ঘিরে ধরে হাজার দুয়েক মানুষ। শুরু হয় মারধর। স্থানীয় বাসিন্দা ললিতকুমার দাসের নেতৃত্বে কয়েকজন যুবক রুখে দাঁড়ান। প্রতিবাদ করতে গিয়ে তাঁদেরও কিল, চড় হজম করতে হয়। জনতার হাত থেকে বাঁচিয়ে ওই ব্যাক্তিকে পুলিশের হাতে তুলে দেন তাঁরা।

ছেলেধরা সন্দেহে গণপিটুনি আটকাতে গিয়ে অনেক সময়ে আক্রান্ত হতে হয়েছে পুলিশকে। কালচিনিতে আক্রান্ত হন জয়গাঁর অতিরিক্ত পুলিশ সুপার। তাঁদের সচেতনতা উদ্যোগ কাজে আসায় খুশী পুলিশ আদিকারিকরা।

গণপিটুনির মত ঘটনা আটকাতে আরও অনেক ললিতকে তৎপর হতে হবে। এটা যেন একটা বিচ্ছিন্ন ঘটনা না হয়ে দাঁড়ায়। আর্জি জেলা পুলিশ-প্রশাসনের।

Loading...

First published: 03:22:06 PM Aug 15, 2019
পুরো খবর পড়ুন
Loading...
अगली ख़बर