• Home
  • »
  • News
  • »
  • north-bengal
  • »
  • ‘স্কুলে কোনওদিন ফার্স্ট বা সেকেন্ড হয়নি’, উচ্চমাধ্যমিকে প্রথম হয়ে গ্রন্থন জানালেন এমনই

‘স্কুলে কোনওদিন ফার্স্ট বা সেকেন্ড হয়নি’, উচ্চমাধ্যমিকে প্রথম হয়ে গ্রন্থন জানালেন এমনই

Photo Credit: Facebook

Photo Credit: Facebook

সারাদিন পড়তেন না গ্রন্থন ৷ কিন্তু যখন পড়তে বসতেন, তখন গোটা পৃথিবী একদিকে আর আরেক দিকে থাকতেন তিনি ৷

  • Share this:

    #জলপাইগুড়ি: সারাদিন পড়তেন না গ্রন্থন ৷ কিন্তু যখন পড়তে বসতেন, তখন গোটা পৃথিবী একদিকে আর আরেক দিকে থাকতেন তিনি ৷ অবসরে নাটকে অভিনয়, চলত ক্যুইজ, অল্প স্বল্প খেলাও ৷ তবে গানের প্রতি বরাবরই ঝোঁক ছিল গ্রন্থনের ৷ সুযোগ পেলে ফেসবুকেও টুকটাক ছবি পোস্ট, নানা লেখা ৷ এরই মাঝে কলাবিভাগ থেকে উচ্চমাধ্যমিকে প্রথম হয়ে তাক লাগিয়েছেন জলপাইগুড়ির গ্রন্থন সেনগুপ্ত ৷ ছক ভাঙা রেজাল্টে দৃষ্টান্ত গ্রন্থন ৷

    আরও পড়ুন 
    মাধ্যমিকের পর উচ্চ মাধ্যমিকেও বাজিমাত উত্তরবঙ্গের, শীর্ষে জলপাইগুড়ি

    রেজাল্টে পরেই সাংবাদিকদের প্রশ্নে গ্রন্থনের সোজা উত্তর,

    ‘রেজাল্ট দেখে খুবই অবাক ৷ ভালো রেজাল্ট করব জানতাম ৷ তবে প্রথম হব ভাবতে পারিনি ৷ আসলে, স্কুলে কোনও পরীক্ষাতেই ফার্স্ট বা সেকেন্ড হয়নি ৷ ’

    অনেকেই মনে করেন আর্টস নিয়ে পড়লে ভবিষ্যত সুদৃঢ় করাটা কঠিন হয়ে পড়ে ৷ গ্রন্থনের রেজাল্ট যেন সেই চলে আসা মানসিকতাকে চ্যালেঞ্জ ছুঁড়েছে ৷ গ্রন্থন জানান,
    ‘আমার মনে হয় ভালো ফল করার বিশ্বাসটা থাকলে, বিষয় বা বিভাগ বাধা হয়ে দাঁড়ায় না ৷ আর সাফল্যের মন্ত্র হওয়া উচিত দিনের পড়াটা সে দিনই সেরে ফেলা ৷ এটাই আমি শিক্ষকদের থেকে শিখেছি !’

    কলাবিভাগে ৯৯.২ শতাংশ নম্বর পেয়ে দৃষ্টান্ত সৃষ্টি করলেন গ্রন্থন ৷ পাঁচ বছর পরে উচ্চমাধ্যমিকের ফলে ঘটল এমন ঘটনা ৷

    ২০১৮ সালের উচ্চমাধ্যমিক পরীক্ষায় এবার প্রথম হলেন জলপাইগুড়ির গ্রন্থন সেনগুপ্ত ৷ গ্রন্থনের প্রাপ্ত নম্বর ৪৯৬ ৷

    অন্যদিকে এবারের উচ্চমাধ্যমিকে দ্বিতীয় হলেন তমলুক হ্যামিলটন হাই স্কুলের বিজ্ঞান বিভাগের ছাত্র ঋত্বিক কুমার শাহু ৷ ঋত্বিকের প্রাপ্ত নম্বর ৯৮.৬ শতাংশ ৷ উচ্চমাধ্যমিকে তৃতীয় হয়েছেন দু’জন ৷ তিমির বরণ দাশ ও শাশ্বত রায় ৷ তাঁদের প্রাপ্ত নম্বর ৪৯০ ৷

    First published: