• Home
  • »
  • News
  • »
  • north-bengal
  • »
  • করোনা আতঙ্কে 'বন্ধ' সেতু, খুলে দিলেন গ্রামবাসীরাই, নজরদারির দাবি

করোনা আতঙ্কে 'বন্ধ' সেতু, খুলে দিলেন গ্রামবাসীরাই, নজরদারির দাবি

বহিরাগতদের অবাধ যাতায়াত আটকাতে বেহুলা নদীর ওপর কাঠের সেতু বন্ধ করে দেন গ্রামবাসীরা

বহিরাগতদের অবাধ যাতায়াত আটকাতে বেহুলা নদীর ওপর কাঠের সেতু বন্ধ করে দেন গ্রামবাসীরা

বহিরাগতদের অবাধ যাতায়াত আটকাতে বেহুলা নদীর ওপর কাঠের সেতু বন্ধ করে দেন গ্রামবাসীরা

  • Share this:

#মালদহ: পুরাতন মালদহে করোনা আতঙ্কে খুলে দেওয়া সেতুকে ফের জুড়ে দিয়ে যাতায়াতের জন্য উন্মুক্ত করে দিলেন গ্রামবাসীরাই। বুধবার থেকে ফের বেহুলা নদীর ওপর কাঠের সেতু দিয়ে যাতায়াত শুরু হল। মালদহে নতুন করে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা বাড়ছে। তারমধ্যে দু'জন ওল্ড মালদহের মঙ্গলবাড়ি গ্রাম পঞ্চায়েতের বাসিন্দা। আতঙ্কে আশে পাশে গ্রামের বাসিন্দারা। বহিরাগতদের অবাধ যাতায়াত আটকাতে বেহুলা নদীর ওপর কাঠের সেতু বন্ধ করে দেন। সেতুর কাঠের পাটাতন খুলে ফেলেন গ্রামবাসীরা।

জলঙ্গা ও মৌলপুর গ্রামের মধ্যে যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে যায়। সমস্যায় পড়েন বিস্তীর্ণ এলাকার মানুষ। নিউজ 18 বাংলায় এই খবর সম্প্রচারের পরই গ্রামে যায় পুলিশ ও প্রশাসন। গ্রামবাসীদের সঙ্গে আলোচনার পর সেতু খুলে দেওয়া হয়। ভাঙা কাঠের পাটাতন সারিয়ে দেন গ্রামবাসীরাই। এদিকে সেতু চালু হতেই বুধবার সকাল থেকেই এইরাস্তায় মোটরবাইক, সাইকেল, লোকজন যাতায়াত বেড়ে যায়।

সেতু খুলে দিলেও আতঙ্কিত গ্রামবাসীরা। ফের শুরু হয়েছে বিভিন্ন গ্রামের বাসিন্দাদের যাতায়াত। অনেকের মুখেই মাস্ক নেই। লকডাউনে শটকাটের কারণে দূরদুরান্ত থেকে অনেকেই জলঙ্গা গ্রামের রাস্তা ব্যবহার করছেন। নেই কোনও নজরদারিও। সেতুর দু'ধারে বাঁশের ব্যারিকেড দেওয়ার দাবিও তুলেছেন গ্রামবাসীরা। এই অবস্থায় গ্রামবাসীরা এলাকায় পুলিশি নজরদারি বাড়ানোর দাবি করেছেন।

সেতু হয়ত খুলেছে। চালু হয়েছে যোগাযোগ। কিন্তু আতঙ্কে দিন কাটাচ্ছে জলঙ্গা ও মৌলপুরের বাসিন্দারা।

Sebak Deb Sarma

Published by:Ananya Chakraborty
First published: