বারাণসীর বিশ্বনাথ মন্দির সংস্কার কাজে গিয়ে ঘুমন্ত অবস্থায় বাড়ি চাপা পড়ে মৃত মালদহের ২ শ্রমিক

গুজরাতের একটি নির্মাণকারী সংস্থা কাশি বিশ্বানাথ মন্দির সংস্কারের কাজ করছে । ওই সংস্থার হয়ে সংস্কার কাজে যুক্ত রয়েছেন মালদহের কালিয়াচকের বেশ কিছু শ্রমিক ।

গুজরাতের একটি নির্মাণকারী সংস্থা কাশি বিশ্বানাথ মন্দির সংস্কারের কাজ করছে । ওই সংস্থার হয়ে সংস্কার কাজে যুক্ত রয়েছেন মালদহের কালিয়াচকের বেশ কিছু শ্রমিক ।

  • Share this:

#মালদহ: উত্তরপ্রদেশের বারাণসীতে বাড়ি ভেঙে পড়ে মৃত্যু মালদহের দুই শ্রমিকের। গুরুতর আহত আরও পাঁচ শ্রমিক। কাশী বিশ্বনাথ মন্দিরের সংস্কারের কাজে যুক্ত ছিলেন শ্রমিকরা। রাতে বাড়ি ফিরে ঘুমানোর সময় সোমবার রাত তিনটা নাগাদ বাড়ি ভেঙে পড়ে। সড়কপথে আজ দেহ আসছে মালদহের কালিয়াচকের শেরশাহীতে। আহতদের পরিবারের সঙ্গে কথা বলতে দুপুরে মালদহে আসছেন রাজ্য সরকারের প্রতিনিধি মন্ত্রী ফিরহাদ হাকিম। মৃত আমিনুল মোমিন(৪০), এবাদুল মোমিন(৩২)। গ্রামের আরও বেশ কয়েকজন আহত যুবক ভর্তি বারাণসী হাসপাতালে। ভাঙা বাড়ির নীচে ঘুমন্ত অবস্থায় চাপা পড়ে যান শ্রমিকরা। গত ১৯ মে কালিয়াচকের শতাধিক শ্রমিক বারাণসীতে কাজে গিয়েছিলেন। দুই শ্রমিকের মৃত্যুর ঘটনায় শোকের ছায়া শেরশাহী গ্রামে। পরিবারের একমাত্র উপার্জনকারী ব্যক্তির মৃত্যু। সরকারকে পাশে দাঁড়ানোর আর্জি মৃতদের পরিবারের। এবাদুল মোমিনের নয় বছর, ছয় বছর এবং পাঁচ মাসের তিন নাবালক ছেলে- মেয়ে রয়েছে। আমিনুলের পরিবারের ১৮ বছর, ১৩ বছর এবং ছয় বছরের তিন ছেলেমেয়ে বর্তমান।

বারানসির দুর্ঘটনায় মালদহের আরও যাঁরা আহত হয়েছেন তাঁদের মধ্যে রয়েছেন, আরিফ মোমিন , এমরাজ মোমিন , সায়েদ আখতার , হাতিম খান, আব্দুল জব্বার প্রমুখ । জানা গিয়েছে, গুজরাতের একটি নির্মাণকারী সংস্থা কাশি বিশ্বানাথ মন্দির সংস্কারের কাজ করছে । ওই সংস্থার হয়ে সংস্কার কাজে যুক্ত রয়েছেন মালদহের কালিয়াচকের বেশ কিছু শ্রমিক । মঙ্গলবার ভোর রাতে মন্দিরের কাছেই একটি পুরোনো বাড়িতে ঘুমোচ্ছিলেন মালদহের ১৪ জন শ্রমিক । সেই সময় আচমকা বাড়ি ধসে পড়ে । জানা গিয়েছে যে এলাকায় দুর্ঘটনা হয় তা প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির সাংসদ এলাকার অধীন । ইতিমধ্যেই ঘটনায় শোক প্রকাশ করেন প্রধানমন্ত্রীও । ইতিমধ্যে মন্দির কমিটির পক্ষ থেকে মৃতদের আর্থিক সাহায্য করা হয়েছে । পাশাপাশি আর্থিক সাহায্য দেওয়ার কথা জানিয়েছে নির্মাণ সংস্থাও । রাজ্য সরকারও তাঁদের আর্থিক সাহায্য করতে পারে বলে খবর ।

Published by:Simli Raha
First published: