corona virus btn
corona virus btn
Loading

চোপড়া সোনাপুরে মৃত দুই কিশোর কিশোরীর পরিবারের সঙ্গে দেখা করলেন তৃনমূল কংগ্রেসের প্রতিনিধি দল

চোপড়া সোনাপুরে মৃত দুই কিশোর কিশোরীর পরিবারের সঙ্গে দেখা করলেন তৃনমূল কংগ্রেসের প্রতিনিধি দল

পুলিশ এই ঘটনায় কড়া হাতে মোকাবিলা করবেন বলে জানিয়ে দিলেন মন্ত্রী গৌতম দেব

  • Share this:

#চোপড়া:  মুখ্যমন্ত্রী নির্দেশেই মৃত দুই ছাত্রছাত্রীর বাড়িতে গেলেন তৃনমূল কংগ্রেসের প্রতিনিধি দল।প্রতিনিধি দলে ছিলেন মন্ত্রী গৌতম দেব,গোলাম রব্বানি, সাংসদ মৌসম নূর,জেলা সভাপতি কানাইয়ালাল আগরওয়াল।মন্ত্রী দুই পরিবারকে আশ্বস্ত করেছেন,ঘটনায় কেউ জড়িত থাকলে পুলিশ তাদের রেয়াত করবে না। সোমবার তাঁরা প্রথমে মৃত কিশোরীর পরিবারের সঙ্গে দেখা করেন। পরে তারা মৃত কিশোরের পরিবারের সঙ্গে দেখা করেন। বিজেপি এই এলাকায় সম্প্রদায়িক গন্ডোগোল বাধাতে চাইছে।গতকাল বেশ কয়েকটি পুলিশের গাড়ি, সরকারি গাড়িতে আগুন ধরিয়ে দিয়েছে।এছাড়াও ছেলের পরিবারের বেশ কয়েকটি বাড়িতে আগুন ধরিয়ে দিয়েছে বিজেপি আশ্রিত দুস্কৃতিরা।পুলিশ এই ঘটনায় কড়া হাতে মোকাবিলা  করবেন বলে জানিয়ে দিলেন মন্ত্রী গৌতম দেব।

মৃত কিশোরীর দেহ ময়নাতদন্তের পর ইসলামপুর থেকে সোমবার সকালে চোপড়ার ছাত্রীর মরদেহ নিয়ে এলাকায় যাবার পরিকল্পনা ছিল বিজেপি প্রতিনিধি দলের।বিজেপি প্রতিনিধি দলে ছিলেন রাজু বন্দ্যোপাধ্যায়  ,সাংসদ সুকান্ত মজুমদার,নিশিথ প্রামানিক সহ জেলা বিজেপি নেতাদের।এই প্রস্তুতি চলাকালীন ওই এলাকার এক ডোবা থেকে এক কিশোরের দেহ উদ্ধার হয়।এই খবর ছড়িয়ে পড়তেই চোপড়ার বিভিন্ন এলাকায় উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে।মৃত কিশোরের আত্মীয়রা রাস্তা অবরোধ শুরু করেন। বিজেপি নেতারা এলাকায় পৌছালে নতুন করে উত্তেজনার সৃষ্টি হতে পারে পুলিশ এই আশঙ্কা করে বিজেপি নেতাদের মৃতদেহ সঙ্গে যেত বাধা দেন।পুলিশ তাদের আশ্বস্ত করেন আগামী সাতদিনের মধ্যে অভিযুক্তরা গ্রেপ্তার হবেন।পুলিশের এই আশ্বাসের পর বিজেপি নেতাদের কর্মসূচী বাতিল করেন।

ইসলামপুর বিজেপির রাজ্য সহ সভাপতি রাজু বন্দোপাধ্যায় বলেন, আইনশৃঙ্খলার অবনতির দোহাই দিয়ে পুলিশ আমাদের চোপড়ায় বসলামপুরে মৃতা ওই ছাত্রীর বাড়িতে যেতে আটকে দিয়েছে। আমরা অশান্তি চাইনা। পুলিশ আমাদের সাতদিন সময় দিয়েছে দোষীদের গ্রেফতারের।  সাতদিনের মধ্যে  মূল অভিযুক্তরা গ্রেফতার না হলে সারা উত্তরবঙ্গজুড়ে ভয়ঙ্কর আন্দোলনে নামবে বিজেপি। তিনি এও হুশিয়ারী দিয়ে বলেন, বিজেপি নেতা ও সাংসদদের মৃতা কিশোরীর গ্রামে যেতে আটকে দিল পুলিশ কিন্তু যদি কোনও তৃনমূল কংগ্রেস নেতা মন্ত্রী ওই গ্রামে যান তাহলে আমরাও সদলবলে ওই গ্রামে যাব। বিজেপির রাজ্য সহ সভাপতি  রাজু বন্দোপাধ্যায় আরও বলেন, সারা রাজ্যজুড়ে আদিবাসী মানুষদের উপর অত্যাচার চালাচ্ছে মমতা বন্দোপাধ্যায়ের দল। চোপড়ায় কিশোরী ছাত্রীর নৃশংস হত্যাকান্ডের তীব্র প্রতিবাদ জানাচ্ছি আমরা। যদিও মৃত কিশোরীর মৃতদেহ ময়নাতদন্তের রিপোর্টে বিষক্রিয়ায় মৃত্যু হয়েছে বলে জানা গিয়েছে এবং ধর্ষনের কোনও প্রমান মেলেনি। পুলিশের এই রিপোর্ট মানতে নারাজ বিজেপি নেতৃত্ব।

Uttam Paul

Published by: Debalina Datta
First published: July 20, 2020, 9:51 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर