Rafale in Bengal: হাসিমারায় পৌঁছে গেল তিনটি রাফাল, চিনকে মাথায় রেখেই পূর্ব প্রান্তের নিরাপত্তায় জোর

হাসিমারায় স্বাগত জানানো হচ্ছে রাফালকে৷

মূলত ভারতের পূর্ব প্রান্তের আকাশসীমার সুরক্ষা আরও মজবুত করতেই হাসিমারায় রাফালকে নিয়ে আসার সিদ্ধান্ত নিয়েছিল ভারত সরকার (Rafale in Bengal)৷

  • Share this:

    #আলিপুরদুয়ার: এবার পশ্চিমঙ্গের হাসিমারা বায়ুসেনা ঘাঁটিতেও চলে এল রাফাল যুদ্ধবিমান৷ এ দিন তিনটি রাফাল যুদ্ধবিমানকে হাসিমারায় ভারতীয় বায়ুসেনার ১০১ স্কোয়াড্রোনের অন্তর্ভুক্ত করা হল৷ বায়ুসেনা প্রধান আর কে এস ভাদৌরিয়ার উপস্থিতিতে তিনটি ফরাঁসি যুদ্ধবিমানকে হাসিমারায় স্বাগত জানানো হয়৷ এই প্রথম হাসিমারায় এল রাফাল৷

    ২০২০ সালের ২৯ জুলাই ভারতে প্রথম বার পৌঁছেছিল রাফাল যুদ্ধবিমান৷ এখনও পর্যন্ত মোট ২৬টি রাফাল ভারতে পৌঁছেছে৷ ফ্রান্সের থেকে মোট ৩৬টি রাফাল যুদ্ধ বিমান পাওয়ার কথা ভারতের৷

    মূলত ভারতের পূর্ব প্রান্তের আকাশসীমার সুরক্ষা আরও মজবুত করতেই হাসিমারায় রাফালকে নিয়ে আসার সিদ্ধান্ত নিয়েছিল ভারত সরকার৷ চিনের সঙ্গে লাদাখ সীমান্তে উত্তেজনার পর থেকে হাসিমারা বিমানঘাঁটির গুরুত্ব আরও বেড়েছে৷ কারণ সিকিম, অরুণাচল প্রদেশের মতো রাজ্যগুলির সঙ্গে চিনের সীমানা রয়েছে৷ ফলে কোনও ধরনের উত্তেজনা তৈরি হলে প্রয়োজনে হাসিমারা থেকে দ্রুত চিন সীমান্তে পৌঁছে যেতে পারবে রাফাল৷

    হাসিমারা বিমানঘাঁটিতে পৌঁছল তিনটি রাফাল৷ 

    বায়ুসেনা প্রধান আর কে এস ভাদৌরিয়াও এ দিন বলেন, 'সচেতন ভাবেই হাসিমারায় রাফাল যুদ্ধবিমান রাখার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে৷ যাতে দেশের পূর্বাঞ্চলে ভারতীয় বায়ুসেনার শক্তি আরও বৃদ্ধি করা যায়৷' হাসিমারা ছাড়াও হরিয়ানার আম্বালা বিমান ঘাঁটিতে রাফালের অধিকাংশ যুদ্ধবিমানগুলি রাখা হয়েছে৷

    বায়ুসেনার সদস্যদের সঙ্গে বায়ুসেনা প্রধান আর কে এস ভাদৌরিয়া (মাঝখানে)৷ 

    ভারতীয় বায়ুসেনায় ১০১ স্কোয়াড্রোন গঠিত হয়েছিল ১৯৪৯ সালের ১ মে৷ ১৯৬৫ এবং ১৯৭১ সালের ভারত- পাক যুদ্ধে উল্লেখযোগ্য ভূমিকা নিয়েছিল ভারতীয় বায়ুসেনায় 'আখনুর' নামে খ্যাত এই বাহিনী৷ ভারতীয় বায়ুসেনার দ্বিতীয় বাহিনী হিসেবে ১০১ স্কোয়াড্রোনে রাফালকে অন্তর্ভুক্ত করা হল৷

    Rajkumar Karmakar
    Published by:Debamoy Ghosh
    First published: