• Home
  • »
  • News
  • »
  • north-bengal
  • »
  • ব্যাংক থেকে টাকা তুলে বেরোতেই লুট, ফিল্মি কায়দায় টাকা নিয়ে পালালো দুষ্কৃতীরা !

ব্যাংক থেকে টাকা তুলে বেরোতেই লুট, ফিল্মি কায়দায় টাকা নিয়ে পালালো দুষ্কৃতীরা !

এক ব্যক্তির কাছ থেকে প্রায় সাড়ে তিন লক্ষ টাকা ছিনতাই করে পালালো দুষ্কৃতীরা।

এক ব্যক্তির কাছ থেকে প্রায় সাড়ে তিন লক্ষ টাকা ছিনতাই করে পালালো দুষ্কৃতীরা।

এক ব্যক্তির কাছ থেকে প্রায় সাড়ে তিন লক্ষ টাকা ছিনতাই করে পালালো দুষ্কৃতীরা।

  • Share this:

#মালদহ:  ব্যাংকের সামনে টাকা ছিনতাইয়ের ঘটনা মালদহের গাজোলে । এক ব্যক্তির কাছ থেকে প্রায় সাড়ে তিন লক্ষ টাকা ছিনতাই করে পালালো দুষ্কৃতীরা। মালদার গাজোলে একটি রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাংকের সামনে ঘটনা। একটি মোটর বাইকে চেপে এসেছিল দুই দুষ্কৃতী। মোটরবাইকে ঝোলানো টাকার ব্যাগ ছিনিয়ে নিয়ে চম্পট। অভিযোগ, দীনেশচন্দ্র পাল নামে এক ব্যক্তির। রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাংকের গ্রাহক সহায়তা কেন্দ্রের জন্য ৩ লক্ষ ৪৪ হাজার টাকা তুলে নিয়ে যাচ্ছিলেন । আগাম অপেক্ষায় থাকা দুষ্কৃতীরা মোটরবাইকে করে এসে টাকা ছিনিয়ে নিয়ে পালায়। ঘটনার তদন্তে গাজোল থানার পুলিশ।

নিরাপত্তা নিয়ে ক্ষোভ গ্রাহক ও  স্থানীয়দের।জানা গিয়েছে , ওই ব্যক্তির গাজোল এর দেওতলা পঞ্চায়েতের অর্জুনপুর এলাকায় ব্যাংকের অনুমোদিত গ্রাহক সহায়তা কেন্দ্র রয়েছে । প্রায় নিয়মিতই গাজোল এর প্রধান শাখা থেকে টাকা তুলে নিয়ে তিনি গ্রামে যান। বৃহস্পতিবার দুপুর আড়াইটে নাগাদ তিনি গাজলের শংকরপুর এলাকায় রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাংকের প্রধান শাখা থেকে টাকা তুলে নিয়ে একটি ব্যাগে করে নিয়ে যাচ্ছিলেন । সঙ্গে থাকা এক সহযোগীর সাথে কথা বলার সময় আচমকাই গাড়িতে ঝুলানো তাঁর টাকার ব্যাগ  নিয়ে চম্পট দেয় অজ্ঞাত পরিচয় দুই দুষ্কৃতী। মুহূর্তের মধ্যে এলাকায় হইচই পড়ে যায় ।স্থানীয় বেশ কয়েকজন মোটরবাইকে দুষ্কৃতীদের ধরার চেষ্টা করেন। কিন্তু, আটমাইল পর্যন্ত এলাকায় ধাওয়া করে এলেও দুষ্কৃতীদের আর কোনো খোঁজ মেলেনি। শেষ পর্যন্ত গাজল থানায় লিখিত অভিযোগ জানান তাঁরা। অভিযোগ পেয়ে  তদন্তে নেমেছে পুলিশ ।স্থানীয়দের অভিযোগ, এর আগেও গাজোলে এই রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাংকের এলাকায় ছিনতাইয়ের ঘটনা হয়েছে। নিরাপত্তা নিয়ে বারবার উদ্বেগ প্রকাশ করলেও পুলিশ বা কর্তৃপক্ষ সক্রিয় হয় নি। এদিকে ঘটনার পর এলাকায় পুলিশি নজরদারি বাড়ানোর দাবি উঠেছে।

 সেবক দেবশর্মা

Published by:Piya Banerjee
First published: