ট্যাব কেনার ১০ হাজার টাকা পেয়ে 'মমতা দি আরেকবার' গানের সঙ্গে নাচে মাতলেন পড়ুয়ারা, দেখুন

উচ্চমাধ্যমিক পড়ুয়ারা পিছিয়ে না পড়েন তার জন্য মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্য়ায় দ্বাদশ শ্রেণীর ছাত্রছাত্রদের ট্যাব দেবার কথা ঘোষণা করেন।

উচ্চমাধ্যমিক পড়ুয়ারা পিছিয়ে না পড়েন তার জন্য মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্য়ায় দ্বাদশ শ্রেণীর ছাত্রছাত্রদের ট্যাব দেবার কথা ঘোষণা করেন।

  • Share this:

#ইসলামপুর: মুখ্যমন্ত্রীর ঘোষণা অনুযায়ী দ্বাদশ শ্রেনীর ছাত্রছাত্রীদের ট্যাব কেনার জন্য ১০ হাজার টাকা হাতে পাওয়ার পর, বৃহস্পতিবার রামগঞ্জের ছাত্রছাত্রীরা আনন্দে গান বাজিয়ে নাচে মাতলেন। তবে বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষিকা অর্পনা সূর জানিয়েছেন, কী কারণে ছাত্ররা এই উচ্ছ্বাসে সামিল হলেন তা তাদের কাছে পরিষ্কার নয়। ছাত্রদের দাবি ট্যাবের জন্য ১০ হাজার টাকা হাতে পাবার পর তারা এই উচ্ছ্বাসে মেতেছেন।

সারা বিশ্ব জুড়ে করোনা আবহের কারণে দেশ জুড়ে লকডাউন চলেছে।এ ই করোনা আবহের কারণে এখনও সারা দেশে সমস্ত শিক্ষা প্রতিষ্ঠান  বন্ধ।শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকলেও বেশ কিছু শিক্ষা প্রতিষ্ঠান অনলাইনে পঠন পাঠন চালু রেখেছে। পশ্চিমবঙ্গেও এধরণের অনলাইন পঠন পাঠন চলছে। এই রাজ্য বহু ছাত্রছাত্রীর আর্থিক সংকটের কারণে অনলাইনে পঠন পাঠন চালু রাখতে পারেনি। ফলে আর্থিক দিক থেকে পিছিয়ে পড়া ছাত্রছাত্রী পড়াশুনা দিক থেকেও পিছিয়ে পড়ছে, এমনই মনে করা হচ্ছে। সামনে মাধ্যমিক ও উচ্চমাধ্যমিক পরীক্ষা। যাতে উচ্চমাধ্যমিক পড়ুয়ারা পিছিয়ে না পড়েন তার জন্য মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্য়ায় দ্বাদশ শ্রেণীর ছাত্রছাত্রদের ট্যাব দেবার কথা ঘোষণা করেন।  রাজ্যের দ্বাদশ শ্রেণীতে পাঠরত প্রায় নয় লক্ষ ছাত্রছাত্রীকে এই ট্যাব দেবার কথা জানিয়েছিলেন তিনি। এই বিপুল পরিমান ট্যাব এক সঙ্গে না পাওয়ায় পরবর্তীতে রাজ্য সরকার ছাত্রছাত্রী ট্যাব কেনার জন্য ১০ হাজার টাকা দেবার ঘোষণা  করে।

বুধবার থেকে ছাত্রছাত্রদের অ্যাকাউন্টে সেই টাকা আসে। টাকা হাতে পেয়ে উচ্ছ্বাসে ফেটে পড়েন পড়ুয়ারা। শনিবার, উত্তর দিনাজপুর জেলার ইসলামপুর ব্লকের রামগঞ্জ হাইস্কুলের ছাত্ররা ইউটিউবের একটি গান বাজিয়ে রামগঞ্জ শহর পরিক্রমা করে। গানটি মূলত তৃণমূল এবং মমতা বন্দ্যোাপাধ্যায়কে নিয়ে তৈরি হয়েছে। রামগঞ্জ হাইস্কুলের ছাত্র সাব্বির আলম জানান, ট্যাব কেনার জন্য ১০ হাজার টাকা তাদের অ্যাকাউন্টে এসেছে। তার জন্যই এই আনন্দ করছেন তারা। জানান তিনি। তবে স্কুলের তরফ থেকে এই বিষয়টি নিয়ে কোনও কথা বলা হয়নি।বিদ্যালয়ের প্রধান অপর্ণা সূর জানান, ট্যাবের জন্য ২১৯ জনের নাম পোর্টালে আপ লোড করা হয়েছে। কতজনের টাকা ব্যাঙ্কে ডুকেছে তা তিনি জানেন না, বলেছেন অপর্ণাদেবী।

Published by:Pooja Basu
First published: